সোমবার, ২১ আগস্ট, ২০১৭
সংবাদ শিরোনাম

ইভটিজিং-এর প্রতিবাদ করায় গুইমারায় পাহাড়ি ছাত্রদের উপর ছাত্রলীগের হামলা

গুইমারা : খাগড়াছড়ির গুইমারায় মুন্না নামে এক সেটলার বাঙলি ছাত্র কর্তৃক স্কুলের নবম শ্রেণীতে পড়ুয়া এক পাহাড়ি ছাত্রীকে ইভটিজিং করার প্রতিবাদ করায় ছাত্রলীগ গুইমারা মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের পাহাড়ি ছাত্রদের উপর হামলা করেছে। আজ সোমবার(৩১ জুলাই, ২০১৭) সকালে এই হামলার ঘটনা ঘটে। গুইমারা উপজেলা শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি সাগর এবং আনন্দ, বিজয় ও আকাশের নেতৃত্বে এই হামলা করা হয় বলে জানা গেছে।

Guimaraআজ সকাল সাড়ে ৮ টা দিকে পাহাড়ি ছাত্ররা স্কুলে আসলে ছাত্রলীগের সাগর, আনন্দ, বিজয়, আকাশের নেতৃত্বে ২০-৩০ জনের মত নেতা-কর্মী গুইমারা মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ে লাঠি ও  দা, কুঁড়াল নিয়ে প্রবেশ করে। এরপর তারা স্কুলে আগত পাহাড়ি ছাত্রদের উপর অতর্কিত হামলা চালায়। এক পর্যায়ে পাহাড়ি ছাত্ররা ছাত্রলীগ সন্ত্রাসীদের হামলার পালটা জবাব হিসেবে প্রতিরোধ   গড়ে তোলে।

প্রতিরোধের কারণে ছাত্রলীগের সন্ত্রাসীরা স্কুলের বাউন্ডারি ছেড়ে পালিয়ে যায়। এরপর তারা গুইমারা বাজারে নেমে পাহাড়িদের মোটর সাইকেল আরোহীদের উপত হামলা চালায়। এ সময় সাম্প্রদায়িক উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। তবে পাহাড়ি ও বাঙালি মোটর সাইকেল ড্রাইভাররা পরে একত্রিত হয়ে একযোগে হামলাকারীদের ধাওয়া করলে তারা সেখান থেকে পালিয়ে চলে যায়। পরে অবস্থা স্বাভাবিক করতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সেখানে চলে আসে।

উল্লেখ্য, গতকাল রবিবার (৩০জুলাই) গুইমারা মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ে নবম শ্রেণীতে পড়ুয়া এক পাহাড়ি ছাত্রীকে একই স্কুলের মুন্না নামে এক ছাত্র উত্যক্ত তথা ইভটিমিজিং করে।  ঘটনাটি পাহাড়ি ছাত্রদের নজরে পড়লে তারা মুন্নাকে শাসায়। কিন্তু মুন্না বেশি বাড়াবাড়ি করলে এবং পাহাড়ি ছাত্রদের তুচ্ছতাচ্ছিল্য ও সাম্প্রদায়িকভাবে হেনস্থা করলে  তাকে পাহাড়ি এক ছাত্র দুই থাপ্পর দেয়।

এই ঘটনার জের ধরে ছাত্রলীগের সন্ত্রাসীরা আজকে পাহাড়ি ছাত্রদের উপর হামলা করে। এতে দুইজন ছাত্র সামান্য আহত হয়। তবে নিরাপত্তার কথা বিবেচনা করে আহতদের নাম প্রকাশ করা হলো না।

এই হামলার প্রতিবাদে গুইমারা মডেল স্কুলের পাহাড়ি ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। অভিভাবকগণও এই ঘটনায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন।
————-
সিএইচটি নিউজ ডটকম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।


Print Friendly

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।