কৃত্তিকা ত্রিপুরাকে ধর্ষণ ও হত্যার প্রতিবাদে ঢাকায় পিসিপি-এইচডব্লিউএফ’র বিক্ষোভ

0
0

ঢাকা : খাগড়াছড়ির দীঘিনালা উপজেলার ৯ মাইল এলাকায় ৫ম শ্রেণির ছাত্রী কৃত্তিকা ত্রিপুরা ওরফে পূর্ণা ত্রিপুরাকে গণধর্ষণের পর বর্বরোচিতভাবে হত্যার প্রতিবাদে এবং ঘটনায় জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে ঢাকায় বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ(পিসিপি) ও হিল উইমেন্স ফেডারেশন(এইচডব্লিউএফ) ঢাকা শাখা।

“পার্বত্য চট্টগ্রামে খুন-ধর্ষণ ও জাতিগত নিপীড়ন বন্ধ কর” এই শ্লোগানে আজ সোমবার (৩০ জুলাই ২০১৮) বিকাল ৪টায় ঢাকা জাতীয় প্রেসক্লাবে সামনে মিছিল শুরুর আগে প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

পিসিপি ঢাকা শাখার সভাপতি রিয়েল ত্রিপুরার সঞ্চালনায় এবং হিল উইমেন্স ফেডারেশন ঢাকা শাখার আহ্বায়ক কইংজনা মারমার সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন গনতান্ত্রিক যুব ফোরাম কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ন-সাধারন সম্পাদক বরুন চাকমা, হিল উইমেন্স ফেডারেশন কেন্দ্রীয় সভাপতি নিরুপা চাকমা, বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ এর কেন্দ্রীয় সভাপতি বিনয়ন চাকমা। এছাড়া সমাবেশে সংহতি জানিয়ে আরো বক্তব্য রাখেন সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট ঢাকা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক ছায়িদুল হক নিশান।

সমাবেশে যুব ফোরাম নেতা বরুন চাকমা বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামে এরকম ঘটনা নতুন নয়। প্রশাসনের সদিচ্ছা ও দোষীদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি না হওয়ার এরকম ঘটনা প্রতিনিয়ত ঘটেই চলেছে।

বিনয়ন চাকমা বলেন, ধর্ষণের ঘটনা শুধু পাহাড়ে সংঘটিত হচ্ছে তা নয়, সারা বাংলাদেশে এই ধর্ষণ অহরহ ঘটেই চলেছে। কিন্তু সমতলে কিছু ধর্ষণ ঘটনার বিচার হলেও পাহাড়ে বিচারের নামে কোন আইন আছে বলে আমাদের জানা নেই।  মাঝেমধ্যে ধর্ষকরা গ্রেপ্তার হলেও তারা সামান্য কিছু টাকার বিনিময়ে আইনের ফাঁক দিয়ে বেরিয়ে যায়।

তিনি বলেন, সমতলে ধর্ষণের চিত্রের সাথে পাহাড়ের ধর্ষণের চিত্র সম্পূর্ন ভিন্ন, সেখানে জাতিগত নিপীড়নের উদ্দেশ্যই পরিকল্পিতভাবে এমন ঘটনা সংঘটিত করা হয়।

নিরুপা চাকমা বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামে ধর্ষণের ঘটনা ভয়ংকর রুপ নেয়ার একটাই কারন, ধর্ষকদের উপযুক্ত শাস্তি না হওয়া। ধর্ষনের ঘটনায় মেডিকেল রিপোর্ট প্রকাশে গোপন নিষেধাজ্ঞা জারি রয়েছে। তাই সব ধর্ষণের ঘটনায় নেগেটিভ রিপোর্ট দেওয়া হয়।

ছায়িদুল হক বলেন, একজন শিশুকে যেভাবে ধর্ষণের পর নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়েছে তা সব ধর্ষণকে হার মানায়। তিনি ধর্ষক ও হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবি জানান।

সমাবেশ থেকে কৃত্তিকা ত্রিপুরাকে ধর্ষণ ও হত্যার সাথে জড়িত প্রকৃত অপরাধীদের খুঁজে বের করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদানসহ পার্বত্য চট্টগ্রামে খুন, ধর্ষণ ও জাতিগত নিপীড়ন বন্ধের দাবি জানানো হয়।

সমাবেশ শেষে একটি মিছিল বের হয়। মিছিলটি প্রেসক্লাব থেকে শুরু হয়ে হাইকোর্ট মোড় ঘুরে পল্টন মোড়ে গিয়ে শেষ হয়।
——————–
সিএইচটিনিউজ ডটকম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।


Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.