শনিবার, ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৮
সংবাদ শিরোনাম

খাগড়াছড়িতে বৌদ্ধ ভিক্ষুর উপর হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে সচেতন নাগরিক সমাজ

খাগড়াছড়ি : খাগড়াছড়ি জেলা সদরের মহাজনপাড়াস্থ জনবল বৌদ্ধ বিহারের ভিক্ষু জিমিতা থেরো ও সেবক নিঞোমং মারমার উপর গতকাল শুক্রবার(২৮ জুলাই ২০১৭) রাাতে চিহ্নিত দুষ্কৃতকারীর হামলার ঘটনাকে সাধারণ চুরিচামারি হিসেবে দেখার অবকাশ নেই এই অভিমত ব্যক্ত করে হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে খাগড়াছড়ি জেলা সচেতন নাগরিক সমাজ। সচেতন নাগরিক সমাজের সভাপতি কিরন মারমা ও সাধারণ সম্পাদক মিলন দেওয়ান মনাং আজ শনিবার(২৯ জুলাই,,২০১৭) সংবাদ মাধ্যমে প্রেরিত এক বিবৃতিতে একথা বলেন। বিবৃতিতে নেতুবৃন্দ বলেন, এই হামলাকে সাধারণ একটি চুরির ঘটনা হিসেবে সংবাদ মাধ্যমে চিত্রিত করা হলেও এই ঘটনার মূলে সাম্প্রদায়িকভাবাপুষ্ট হুমকি ও উস্কানী জারি রাখার প্রবণতা রয়েছে। এই সাম্প্রদায়িক উস্কানীমূলক প্রেক্ষাপটকে খাটো করে দেখার কোনো অবকাশ নেই। এই ঘটনার পেছনে অন্য কোনো ভিন্ন উদ্দেশ্যও থাকতে পারে বলে নেতৃবৃন্দ বিবৃতিতে উল্লেখ করেন।

bibritiনেতৃবৃন্দ বিবৃতিতে বলেন, বিহার কর্তৃপক্ষের বিভিন্নজনের সাথে কথা বলে জানা গেছে, গতকালকের হামলার ঘটনা সংঘটিত হবার সপ্তাহখানেকের মধ্যে রাতের মধ্যভাগে বেশ কয়েকবার বিহারে ঢোকার চেষ্টা করে একদল অচিহ্নিত দুষ্কৃতকারী। তবে বিহারে অবস্থানকারীদের সতর্কতার কারণে দুষ্কৃতকারীরা বারবার তাদের উদ্দেশ্য সফল করতে ব্যর্থ হয়। নেতৃবৃন্দ বলেন, বিহার এলাকার জায়গার উপরও কারো কারো লোলুপ দৃষ্টি রয়েছে। গত এক বছরের মধ্যে বিহারের নিরাপত্তা প্রদানকারী বেশ কয়েকটি কুকুরকে বিষ প্রয়োগ করে হত্যা করা হয়েছে।  সুতরাং, সকল বিষয়ের দিকে খেয়াল রেখে এই হামলাকে শুধুমাত্র সাধারণ চুরিচামারির ঘটনা হিসেবে চিত্রায়িত করা যায় না। এছাড়া এই হামলার প্রতিবাদে কোনো ধরণের প্রতিবাদ বিক্ষ্ভো যেন সংঘটিত হতে না পারে তারজন্য প্রশাসনের জোর প্রচেষ্টারও তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন নেতৃবৃন্দ।

নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে এই হামলার ঘটনার সুষ্ঠু নিরপেক্ষ তদন্ত দাবি করেন এবং পার্বত্য চট্টগ্রামে সাম্প্রদায়িক হামলা, উস্কানী ও সংঘাতমূলক পরিস্থিতি সৃষ্টি করার মূল হোতাদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ গ্রহণ করে পাহাড়ি জনগণের মধ্যে আস্থার পরিবেশ ফিরিয়ে আনার দাবি জানান।

উল্লেখ্য, গতকাল শুক্রবার রাত আনুমানিক আটটার দিকে মহাজন পাড়া জনবল বৌদ্ধ বিহারের ভিক্ষু জিমিতা থেরো ও বিহারের সেবক নিঞোমং মারমাকে জাহাঙ্গীর নামে এক ব্যক্তি নির্বিচারে রড দিয়ে আঘাত করে আহত করে। ঘটনার বিবরণে জানা যায়, রাতের দিকে বিহারের কুকুরগুলো ঘেউ ঘেউ করলে বিহারের ভিক্ষু ও সেবক বিহার ঘর থেকে বের হয়ে এক ব্যক্তিকে দেখতে পান। তাকে এতরাতে বিহারের ভেতর কী করছে প্রশ্ন করলে উক্ত ব্যক্তি পালাতে চেষ্টা করে। তাকে আটকের চেষ্টা করা হলে উক্ত ব্যক্তি হাতে থাকা লোহার রড দিয়ে জিমিতা ভিক্ষুর মাথায় আঘাত করে এবং বিহারের সেবককেও মাথায়-হাঁটুতে রড দিয়ে হামলা করে। এতে দুইজন জখম হন। তবে এরইমধ্যে জিমিতা ভিক্ষু তার হাতে থাকা মোবাইল দিয়ে হামলাকারীর ছবি তুলতে সক্ষম হয়। পরে ছবি দেখে উক্ত ব্যক্তিকে শনাক্ত করে পুলিশ গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয় বলে সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশ করেছে।
————
সিএইচটি নিউজ ডটকম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।


Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.