খাগড়াছড়ি সরকারি কলেজে পাহাড়ি ছাত্রীর ছবি বিকৃত করে ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়ার হুমকির অভিযোগ

0
0

Khagrachariখাগড়াছড়ি প্রতিনিধি।। খাগড়াছড়ি সরকারি কলেজে এক পাহাড়ি (মারমা) ছাত্রীকে ছবি বিকৃত করে ইন্টারনেটে (ফেসবুকে) ছড়িয়ে দেয়ার হুমকির অভিযোগ পাওয়া গেছে। মোঃ আরমান ভূঁইয়া নামে কলেজের এক সেটলার ছাত্র এই হুমকি দেয় বলে অভিযোগে জানা যায়।

আরমান ভূঁইয়া মাটিরাঙ্গা উপজেলা চেয়ারম্যান ও বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মো: তাজুল ইসলামের জামাতার ছোট ভাই বলে জানা গেছে। সে খাগড়াছড়ি সরকারি কলেজের বিএ ২য় বর্ষের ছাত্র।

ভিকটিম ওই ছাত্রীর অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, গত শনিবার (২০ আগস্ট) বিকাল ৩টায় ডিগ্রী পাস কোর্সের বিএ ২য় বর্ষের নির্বাচনী পরীক্ষা চলাকালীন মো: আরমান ভূঁইয়া(২৪) নামের এক সেটলার ছাত্র জোরপূর্বক ওই ছাত্রীর ছবি তোলে প্রেমের প্রস্তাব দেয় এবং রাজি না হলে ছবি বিকৃত করে ফেসবুকে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেয়।ঘটনাটি তাৎক্ষনিকভাবে জানাজানি হলে কলেজের এক প্রফেসর ছেলেটির মোবাইল জব্দ করে এবং ওই ছাত্রীকে লিখিত অভিযোগ দিতে বলে।

পরে ওই ছাত্রীর কাছ থেকে বিস্তারিত জিজ্ঞেস করা হলে তিনি অভিযোগ করে বলেন- ‘আরমান ভুঁইয়া কলেজে প্রায়সময়ই আমাকে উত্যক্ত করে এবং গত ১০ আগস্ট বাংলা পরীক্ষার দিনে প্রেমের প্রস্তাব দেয় ও আমার সাথে অশোভন আচরণ করে। সেদিন ভয়ে ঘটনাটি কাউকে জানায়নি। কিন্তু আজ জোরপূর্বক ছবি তোলার কারণে প্রতিবাদ করতে বাধ্য হয়েছি।’

পরে ভিকটিম ছাত্রীর লিখিত অভিযোগ আমলে নিয়ে কলেজ কর্তৃপক্ষ কৌশলে ওই ছাত্রীকে বাড়িতে পাঠিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করে এবং মোঃ আরমানকে কলেজের শিক্ষক মিলনায়তনে নিয়ে একপাক্ষিকভাবে কথাবার্তা বললে অন্যান্য ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে ক্ষোভ দেখা দেয়। ঘটনার খবর পেয়ে ভিক্টিম ছাত্রীর অভিভাবক কলেজে আসেন। এর ফাঁকে কলেজ প্রশাসন সুষ্ঠু বিচারের আশ্বাস দিয়ে শিক্ষার্থীদের দ্রুত কলেজে ক্যাম্পাস ত্যাগ করতে নির্দেশ দেয়। এ নিয়ে শিক্ষকদের সাথে ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে দফায় দফায় তর্ক-বিতর্ক চলে। শিক্ষার্থীরা হুমকিদাতা আরমান ভূঁইয়াকে বহিষ্কার না করা পর্যন্ত কলেজ ক্যাম্পাস ত্যাগ করবে না বলে সাফ জানিয়ে দেয়।

মোঃ আরমান ভূঁইয়া নিজের অপরাধ স্বীকার করলেও সময় স্বল্পতার অজুহাত দেখিয়ে কলেজ প্রশাসন ছেলেটির মানসিক সমস্যা আছে বলে ঘটনাটি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করে। এ সময় উপস্থিত ছাত্রীটির অভিভাবক ও শিক্ষার্থীরা এর তীব্র আপত্তি জানায়। এ সময় শিক্ষার্থীরা দোষী আরমান ভূঁইয়াকে কলেজ থেকে বহিষ্কারের দাবি জানালে কলেজ প্রশাসন এক সপ্তাহের মধ্যে সমাধান ও সুষ্ঠু বিচারের আশ্বাস দেয়।

এদিকে, খাগড়াছড়ি পৌরসভার ২নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মোঃ মাসুম রানা (বাঙ্গালি ছাত্র পরিষদ জেলা সাধারণ সম্পাদক) কলেজটি নিজের এলাকা দাবি করে পাহাড়ি ছাত্র-ছাত্রীদের বলেন- ‘তোমরা কলেজ ত্যাগ করো, না হলে কিভাবে কলেজ ত্যাগ করাতে হয় তা আমি জানি’ বলে হুমকি দেয়। কিন্তু প্রতিবাদি সংঘবদ্ধ শিক্ষার্থীরা হুমকি উপেক্ষা করে ক্যাম্পাসে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত অবস্থান করে।

বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ(পিসিপি) খাগড়াছড়ি সরকারি কলেজ শাখার সভাপতি সোনায়ন চাকমা ও সাধারণ সম্পাদক এলটন চাকমা আজ সোমবার (২২ আগস্ট) সংবাদপত্রে দেয়া এক বিবৃতিতে উক্ত ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

বিবৃতিতে তারা গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে অবিলম্বে হুমকিদাতা মোঃ আরমান ভূঁইয়াকে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন।
—————-

সিএইচটি নিউজ ডটকম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।


Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.