গুইমারায় স্কুলছাত্রীসহ ৮ পাহাড়ি নারী-পুরুষকে আটক করেছে সেনা-পুলিশ, তিন সংগঠনের নিন্দা ও প্রতিবাদ

0
0

খাগড়াছড়ি : খাগড়াছড়ির গুইমারা উপজেলার বাইল্যাছড়িতে রাতের আধারে ঘর বাড়ি তল্লাশি চালিয়ে স্কুল ছাত্রীসহ ৮  পাহাড়ি নারী-পুরুষকে আটক করেছে সেনাবাহিনী ও পুলিশ। গতকাল মঙ্গলবার (১০ অক্টোবর ২০১৭)  দিবাগত মধ্যরাত ২টায় বাইল্যাছড়ি ২নং রাবার বাগানে এই আটকের ঘটনা ঘটে।

আটককৃতরা হলেন- গুইমারা সদর ইউনিয়নের বাইল্যাছড়ি ২নং রাবার বাগানের মৃত: মনোরঞ্জন ত্রিপুরার ছেলে রিজেন্দ্র ত্রিপুরা (৪৫), তার ছেলে রামগড় সরকারি কলেজে ১ম বর্ষের ছাত্র সুশীল ত্রিপুরা (১৯), তার ছোট বোন গুইমারা উচ্চ বিদ্যালয়ে ১০ম শ্রেণীর ছাত্রী জেসীকা ত্রিপুরা (১৬) ও তাদের বাড়িতে থাকা বাইল্যাছড়ি সেন্টপল উচ্চ বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণী ছাত্র রিটন ত্রিপুরা (১৩), একই গ্রামে স্নেহ কুমার চাকমার স্ত্রী সুনালী চাকমা (৪০) ও তার মেেেয় গুইমারা উচ্চ বিদ্যালয়ের এসএসসি পরীক্ষার্থী রেহেনা চাকমা (১৭), কিরন ত্রিপুরার স্ত্রী চিনতা রানী ত্রিপুরা (২৮) ও বিবর্তন চাকমার স্ত্রী কমলা দেবী চাকমা (৩২)।

এলাকাবাসীর সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার দিবাগত মধ্যরাত ২টার দিকে গুইমারা থানার ওসি সাহাদাৎ হোসেন টিটু’র নেতৃত্বে ৪০-৫০ জনের মত পুলিশ ও সেনাবাহিনী সদস্য কোন কারণ ছাড়াই বাইল্যাছড়ি ২নং রাবার বাগান পাড়ায় ৪টি বাড়ি ঘেরাও করে উক্ত ৮ জন নারী-পুরুষকে আটক করে নিয়ে যায়। এ সময় কমলা দেবীর চাকমার ছেলে অনিমেষ চাকমা আটকের বিষয়ে পুলিশের কাছ থেকে জানতে চাইলে পুলিশ ‘কারণ আছে, সেজন্য আটক করছি’ বলে তাদেরকে আটক করে নিয়ে যায়।
পার্বত্য চট্টগ্রামে রাতে বিরাতে সেনাবাহিনী দ্বারা পাহাড়ি বাড়িতে বেআইনী ও জোরজবরদস্ত তল্লাশি সাধারণ ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে।

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত (বুধবার দুপুর ১:৩০টা) আটককৃতদের কাউকে ছেড়ে দেওয়া হয়নি। তাদের নামে কি মামলা রুজু করা হয়েছে তাও এখনো জানা সম্ভব হয়নি।

তিন সংগঠনের নিন্দা ও প্রতিবাদ
বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ (পিসিপি), হিল উইমেন্স ফেডারেশন (এইচডব্লিউএফ) ও গণতান্ত্রিক যুব ফোরাম (ডিওয়াইএফ) খাগড়াছড়ি জেলা শাখার নেতৃবৃন্দ পিসিপি’র গুইমারা উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক সুশীল ত্রিপুরা ও মাটিরাঙ্গা উপজেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক রেহেনা চাকমাসহ উক্ত ৮ নারী-পুরুষকে আটকের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

পিসিপি খাগড়াছড়ি জেলা শাখার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি তপন চাকমা, এইচডব্লিউএফ’র জেলা সভাপতি দ্বিতীয়া চাকমা ও ডিওয়াইএফ’র জেলা ভারপ্রাপ্ত সভাপতি কৃঞ্চ চরণ ত্রিপুরা আজ বুধবার সংবাদ মাধ্যমে প্রদত্ত যুক্ত বিবৃতিতে এই নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান।

বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, গতকাল রাতের আঁধারে অন্যায়ভাবে বাড়ি-ঘর ঘেরাও করে স্কুল-কলেজের ছাত্র-ছাত্রীসহ ৮জনকে অন্যায়ভাবে আটকের ঘটনা খুবই নিন্দনীয়। এই ঘটনা তৎকালীন পাক হানাদার বাহিনীদের কর্মকাণ্ডের সমতূল্য। জেসীকা ত্রিপুরাকে আজকের এসএসসি নির্বাচনী পরীক্ষা দিতে দেওয়া হয়নি বলে নেতৃবৃন্দ অভিযোগ করেছেন।

বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ পাহাড়ে সেনা-পুলিশের ষড়যন্ত্রমূলক অপতৎপরতা বন্ধ করে আটককৃতদের অবিলম্বে নিঃশর্ত মুক্তি দেয়ার দাবি জানান।
—————-

সিএইচটি নিউজ ডটকম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।


Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.