শনিবার, ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৮
সংবাদ শিরোনাম

চবি’তে পিসিপি’র শহীদ রমেল স্মরণে আয়োজিত প্রদীপ প্রজ্জ্বলন কর্মসূচীতে প্রশাসনের বাধা

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়: নান্যাচরে সেনাবাহিনী কতৃক বেআইনী আটক ও নির্যাতনে মৃত্যু বরণকারী শহীদ পিসিপি নেতা ও এইচএসসি পরীক্ষার্থী রমেল চাকমার স্মরণে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ (পিসিপি)’র প্রদীপ প্রজ্জ্বলন অনুষ্ঠানে হাটাজারী থানার ওসি  কামাল হোসেন ও বিশ্ববিদ্যালয় পুলিশ ফাঁড়ির ইনসার্চ আক্তার হোসেনকে সাথে নিয়ে সরাসরি বাধা প্রদান করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর লিটন মিত্র। শুধু বাধা প্রদান করেই তিনি ক্ষান্ত থাকেননি, শহীদ মিনারের পাদদেশে প্রজ্জ্বলিত মোমবাতিগুলো তিনি নিজের পায়ে মাড়িয়ে নিভিয়ে দিয়েছেন।18198134_1389458314477957_1696741211_n

অংশগ্রহণকারী কয়েকজন শিক্ষার্থী নাম প্রকাশ না করার শর্তে দুঃখ ও ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, রমেলকে সেনাবাহিনী নির্যাতন চালিয়ে একবার হত্যা করেছে আর আজ সহকারী প্রক্টর স্যার মোমবাতিগুলো পায়ে মাড়িয়ে দেয়ার মাধ্যমে তাকে দ্বিতীয়বার হত্যা করলেন। ওনার কাছ থেকে এমন আচরণ আমরা আশা করিনি।

“অবিলম্বে বিচার বিভাগীয় তদন্ত কমিটি গঠন কর! নান্যাচর জোন কমান্ডার বাহালুল আলম ও মেজর তানভীরসহ জড়িতদের গ্রেপ্তার, বিচার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাও” এই দাবিতে আজ ২৯ এপ্রিল ২০১৭, শনিবার বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ (পিসিপি) চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শাখার উদ্যোগে বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মিনারের পাদদেশে প্রদীপ প্রজ্জ্বলন কর্মসূচী পালিত হয়েছে।18191418_1389457994477989_1723151540_n

প্রশাসনের বাধার মুখে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ (পিসিপি) চবি শাখার সহ-সভাপতি অংকন চাকমা।

তিনি বলেন,  রমেল হত্যার বিচারের দাবিতে যেখানে পাহাড় এবং সমতলের প্রগতিশীল ব্যক্তি, সংগঠন তথা সর্বস্তরের মানুষ প্রতিবাদে সোচ্চার হয়েছে সেখানে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন শান্তিপূর্ণ প্রদীপ প্রজ্জ্বলন অনুষ্ঠান করতে দিচ্ছে না, এটা সত্যি দুঃখজনক ও নিন্দনীয়।18191762_1389458327811289_622332663_n

এসময় তিনি আরো বলেন, দমন-নিপীড়ন চালিয়ে যে কোন ন্যায্য আন্দোলনকে দমানো যায় না। পার্বত্য চট্টগ্রামে যে রাজনৈতিক অধিকার আদায়ের সংগ্রাম চলছে তা শত রমেলকে হত্যা করেও তা স্তব্ধ করে দেয়া যাবে না। আমরা পাহাড়ের ছাত্র-যুবকরা জেগেছি সুতরাং ভয় দেখিয়ে কোন লাভ হবে না।18197818_1389458081144647_1164212839_n

তিনি অবিলম্বে রমেল হত্যার বিচার বিভাগীয় তদন্তের দাবি এবং খুনী সেনা সদস্যদের গ্রেফতার ও শাস্তির দাবি জানান।
_________
সিএইচটি নিউজ ডটকম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।


Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.