চাঁন্দপুর ও বেগমখাঁন চা শ্রমিক ভূমি রক্ষা কমিটির বিক্ষোভ সমাবেশ

0
1

সিএইচটি নিউজ ডটকম

চা শ্রমিক ভূমি রক্ষা কমিটির বেক্ষাভ সমাবেশের একাংশ
চা শ্রমিক ভূমি রক্ষা কমিটির বিক্ষোভ সমাবেশে প্রতিবাদী নারী শ্রমিকদের একাংশ

বেগমখাঁন (চুনারুঘাট, হবিগঞ্জ): “আমার মাটি আমার মা, কেড়ে নিতে দেবো না” এ স্লোগানে গতকাল শনিবার (২৬ ডিসেম্বর) পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে চাঁন্দপুর ও বেগমখাঁন চা শ্রমিক ভূমি রক্ষা কমিটির উদ্যোগে এক বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। উল্লেখ্য, গত ১৩ ডিসেম্বর এক সমাবেশ থেকে প্রতিবাদ কর্মসূচি ঘোষিত হয়েছিল।

সমাবেশে বক্তব্য রাখছেন হিল উইমেন্স ফেডারেশনের সভাপতি নিরূপা চাকমা
সমাবেশে বক্তব্য রাখছেন হিল উইমেন্স ফেডারেশনের সভাপতি নিরূপা চাকমা

সকাল সোয়া দশটার দিকে হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলার বেগমখাঁন চা ফ্যাক্টরীর সামনে থেকে শত শত চা শ্রমিকের একটি মিছিল শুরু হয়। মিছিলে বিভিন্ন বয়সী নারী পুরুষ তীর, ধনুক, বল্লম ও লাঠি উঁচিয়ে মিছিলে অংশগ্রহণ করেন। এ সময় ভূমি বেদখল বিরোধী শ্লোগানে শ্লোগানে প্রকম্পিত হয় গোটা চা বাগান এলাকা। বিক্ষোভ মিছিলটি বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলের নামে অধিগ্রহণের জন্য পরিকল্পনাধীন ধান্য জমির ওপর দিয়ে যাওয়া সড়কটির অর্ধেক রাস্তা প্রদক্ষিণ করে স্থানীয় বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন নির্মাণাধীন স্কুল মাঠে সমাবেশের রূপ নেয়।

সমাবেশের শুরুতে ভূমি রক্ষা কমিটির পক্ষ থেকে উপস্থিত প্রতিবাদী চা শ্রমিকদের উদ্দেশ্যে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য দেয়ার পর প্রতিবাদী গান পরিবেশন করা হয়।

সমাবেশে হিল উইমেন্স ফেডারেশনের সভাপতি নিরুপা চাকমা সংহতি জানিয়ে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন। তিনি সমাবেশে আগত প্রতিবাদী শ্রমিক জনতাকে পার্বত্য চট্টগ্রামের লড়াকু সংগঠন ইউপিডিএফ-এর ১৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর শুভেচ্ছা জানান।

লাঠি-বল্লম-দা-তীর ধনুক সজ্জিত প্রতিবাদী চা শ্রমিক
লাঠি-বল্লম-দা-তীর ধনুক সজ্জিত প্রতিবাদী চা শ্রমিক

সমাবেশে তিনি চাঁন্দপুর ও বেগমখাঁন চা শ্রমিকদের শত বছর ধরে বংশপরম্পরায় চাষাবাদ করে ভোগ দখল করে আসা জমিকে পতিত জমি দেখিয়ে “বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল” প্রতিষ্ঠার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান।

তিনি পার্বত্য চট্টগ্রামে সাজেক ভূমি রক্ষা কমিটির উদ্যোগে ভূমি বেদখল ভূমি বিরোধী সংগ্রামের উদাহরণ দিয়ে বলেন, এ সংগ্রাম করতে যেয়ে সেনাবাহিনীর ব্রাশ ফায়ারে লক্ষী বিজয় ও বুদ্ধপুদি চাকমা শহীদ হয়েছিল এবং ৪ শতাধিক বাড়িঘর পুড়ে ছাড়খার করে দেয়া হয়েছিল। এত কিছুর পরও সাজেকের বীর জনতা দমে যায়নি। অবশেষে তারা সফল হয়েছে। তিনি চাঁন্দপুর ও বেগমগঞ্জ চা বাগানের আন্দোলনরত শ্রমজীবী নারী পুরুষ তথা সমগ্র এলাকাবাসীর উদ্দেশ্যে বলেন, যে কোন ত্যাগের বিনিময়ে হলেও আপনাদের ভূমি রক্ষার এ ন্যায্য আন্দোলন চালিয়ে নিতে হবে। যতক্ষণ সরকার দাবি মেনে না নিচ্ছে, ততক্ষণ সাহসের সাথে আন্দোলন চালিয়ে নেবার জন্য তিনি শ্রমিকদের প্রতি জোর আহ্বান জানান। এ সময় উপস্থিত জনতা তুমুল করতালি দিয়ে সমর্থন ব্যক্ত করেন।

তীর-ধনুক হাতে একজন প্রতিবাদী শ্রমিক
তীর-ধনুক হাতে একজন প্রতিবাদী শ্রমিক

নিরূপা চাকমা তার বক্তব্যে চাঁন্দপুর ও বেগমগঞ্জ চা শ্রমিক ভূমি রক্ষা কমিটির ন্যায় সঙ্গত সংগ্রামে পার্বত্য চট্টগ্রামের লড়াকু সংগঠন ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ) তথা সমগ্র পার্বত্য চট্টগ্রামের জনগণ পাশে থাকবে বলে আশ্বাস দেন। এতে সমবেত জনতা উল্লসিত হয়ে হর্ষধ্বণি দেয় এবং তুমুল করতালিতে সভা মুখর করে তোলে।

উল্লেখ্য, সিলেটের হবিগঞ্জ জেলার চুনারুঘাট উপজেলার “ডানকান্স এন্ড ব্রাদার্স” মালিকানাধীন চাঁন্দপুর ও বেগমগঞ্জ চা বাগানের ৫১১.৮৩ একর কৃষি জমিকে অকৃষি খাস বা পতিত জমি দেখিয়ে বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের কাছে হস্তান্তর করেছে। এর ফলে উক্ত জমির ওপর প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে নির্ভরশীল শত শত পরিবারের উপার্জনের পথ বন্ধ হবে, তাদেরকে নিঃস্ব হয়ে পথে বসতে হবে।
——————–

সিএইচটিনিউজ.কম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।


Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.