রাঙামাটিতে সেনাসৃষ্ট দুর্বৃত্তদের হামলা ও দুই নেত্রীকে অপহরণের প্রতিবাদে

ঢাকায় হিল উইমেন্স ফেডারেশনের বিক্ষোভ

0
1

ঢাকা : রাঙামাটির কুদুকছড়িতে সেনাসৃষ্ট দুর্বৃত্তদের হামলা-অগ্নিসংযোগ, হিল উইমেন্স ফেডারেশন(এইচডব্লিউএফ)-এর সাধারণ সম্পাদক মন্টি চাকমা ও রাঙামাটি জেলা শখার সাধারণ সম্পাদক দয়াসোনা চাকমাকে অপহরণ এবং গণতান্ত্রিক যুব ফোরাম নেতা ধর্মশিং চাকমাকে গুলি করে জখম করার প্রতিবাদে ঢাকায় বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে হিল উইমেন্স ফেডারেশন ঢাকা শাখা।

আজ রবিবার (১৮ মার্চ ২০১৮) বিকাল ৪টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অনুষ্ঠিত বিক্ষোভ সমাবেশে হিল উইমেন্স ফেডারেশনের ঢাকা শাখার আহ্বায়ক কইঞ্জনা মারমার সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, হিল উইমেন্স ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় সভাপতি নিরুপা চাকমা, ইউপিডিএফ সংগঠক মাইকেল চাকমা, পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের সভাপতি বিনয়ন চাকমা, গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের দপ্তর সম্পাদক রিপন চাকমা। এতে সংহতি জানিয়ে বক্তব্য রাখেন, জাতীয় মুক্তি কাউন্সিলের সাধরণ সম্পাদক ফয়জুল হাকিম, বাংলাদেশ নারী মুক্তি কেন্দ্রের সভাপতি সীমা দত্ত, নারী সংহতির সাংগঠনিক সম্পাদক এ্যাডভোকেট জান্নাতুল মরিয়ম, সিপিবি নারী সেলের কেন্দ্রীয় সদস্য লাকী আক্তার, বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশনের সভাপতি এম এম পারভেজ লেলিন, বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক হেমন্ত দাশ। সমাবেশ পরিচালনা করেন এইচডব্লিউএফের ঢাকা শাখার নেত্রী নীতি শোভা চাকমা।

হিল উইমেন্স ফেডারেশনের সভাপতি নিরুপা চাকমা বলেন, আজ সকালে রাঙামাটির কুদুকছড়িতে সেনাসৃষ্ট নব্য মুখোশরা তিন সংগঠনের নেতা-কর্মীদের উপর হামলা, হিল উইমেন্স ফেডারেশনের দুই নেত্রীকে অপহরণ এবং গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের কেন্দ্রীয় নেতা ধর্মশিং চাকমাকে গুলি করে জখম করার মধ্য দিয়ে জঘন্য কাপুরুষোচিত ঘটনা সংঘটিত করেছে। সেনাদের প্রত্যক্ষ সহযোগিতায় তারা এ ন্যাক্কারজনক কাজ করেছে। এর জন্য জনগণের কাঠগড়ায় তাদের অবশ্যই দাঁড়াতে হবে। তিনি মন্টি চাকমা ও দয়া সোনা চাকমাকে সুস্থ ও অক্ষত অবস্থায় উদ্ধারের দাবি জানান।

নারী মুক্তি কেন্দ্রের সভপতি সীমা দত্ত বলেন, মন্টি চাকমা বিভিন্ন অন্যায়ের বিরুদ্ধে আন্দোলনের প্রথমসারির একজন সৈনিক। আন্দোলন দমনের অংশ হিসেবে আজকে তাকেসহ দুই জনকে অপহরণ করা হলো। তিনি বলেন, সরকার অপরাধকারীদের প্রশ্রয় দিচ্ছে। কল্পনা অপহরণকারী লে. ফেরদৌসকে পুরষ্কৃত করেছে, তাকে উচ্চপদে আসীন করেছে। তিনি বলেন, সম্পূর্ণ অক্ষত অবস্থায় হিল উইমেন্স ফেডারেশনের নেত্রীদের মুক্তি দিতে হবে।

নারী সংহতির সাংগঠনিক সম্পাদক এ্যাডভোকেট জান্নাতুল মরিয়ম বলেন, মন্টি চাকমাদের সংগ্রামী চেতনাকে ধ্বংস করার উদ্দেশে এই ভয়াবহ হামলা সংঘটিত করা হয়েছে। শাসকগোষ্ঠী মন্টি চাকমাদের মত তারুণ্যের শক্তিকে ভয় পায় বলে আজকে আন্দোলনকারী তরুণদের টার্গেট করা হয়েছে। অবিলম্বে যদি মন্টি চাকমাদের মুক্তি দেয়া না হলে প্রগতিশীল নারী সংগঠনসমূহ তীব্র আন্দোলন গড়ে তুলবে বলে তিনি দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

সিপিবি নারী সেলের কেন্দ্রীয় সদস্য লাকী আক্তার বলেন, সরকার পার্বত্য চট্টগ্রামে ভয়াবহ দমনপীড়নের মধ্য দিয়ে জনগণের প্রতিবাদী কণ্ঠকে টুটিঁ চেপে ধরেছে। সরকার নির্বিকার থেকে সেনাবাহিনীর দমনপীড়নকে মদদ দিচ্ছে। তিনি জোর দাবি জানিয়ে বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামে সেনাশাসন বিলুপ্ত করে সমস্ত সেনা সরাতে হবে। তিনি পাহাড় ও সমতলে প্রত্যেক জায়গায় অন্যায়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর আহ্বান জানান।

সমাবেশে বক্তারা অপহৃত দুই নারী নেত্রীকে অবিলম্বে অক্ষত অবস্থায় মুক্তি, অপহরণের সাথে জড়িত সেনাসৃষ্ট নব্য মুখোশ সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারপূর্বক তাদের সন্ত্রাসী কর্মকা- বন্ধের দাবি জানান।

সমাবেশ শেষ হওয়ার পর প্রেসক্লাব এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়।

————————

সিএইচটিনিউজ ডটকম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।


Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.