ত্রিপুরা কিশোরীকে গণধর্ষণের প্রতিবাদে খাগড়াছড়িতে তিন সংগঠনের বিক্ষোভ

0
0

খাগড়াছড়ি : খাগড়াছাড়ি সদরের জেলা পরিষদ পার্কে এক ত্রিপুরা কিশোরীকে গণধর্ষণের প্রতিবাদে এবং ধর্ষকদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে খাগড়াছড়িতে এক বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ (পিসিপি), হিল উইমেন্স ফেডারেশন (এইচডব্লিউএফ) ও গণতান্ত্রিক যুব ফোরাম (ডিওয়াইএফ) খাগড়াছড়ি জেলা শাখা।

আজ শুক্রবার (২২জুন ২০১৮) দুপুর ১২টায় মিছিলটি ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ)-এর জেলা কার্যালয়ের সামনে থেকে বের হয়। এরপর জেলা পরিষদ ও রেড স্কোয়ার হয়ে উপজেলা পরিষদ এলাকা প্রদক্ষিণ করে স্বনির্ভর বাজারের শহীদ অমর বিকাশ চাকমা সড়কে গিয়ে প্রতিবাদ সমাবেশ করে।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, ২১ জুন দুপুর ২টায় খাগড়াছড়ি জেলা শহরস্থ জেলা পরিষদ পার্কের ভেতর মোজাম্মেল, রুবেলসহ সেটলার বাঙালিদের ৮ জনের একটি দল দশম শ্রেণীতে পড়ুয়া এক ত্রিপুরা কিশোরীকে জোরপূর্বক গণধর্ষণ করে। এসময় কিশোরীর সাথে থাকা পাহাড়ি যুবককে বেঁধে রাখে সেটলার দুর্বৃত্তরা।

এত বিপুল সংখ্যক সেনা-পুলিশের নিরাপত্তা বেষ্টনীর মধ্যে দিন দুপুরে শহরের প্রাণকেন্দ্রে এ ধরণের মধ্যযুগিয় বর্বর ঘটনা কিভাবে ঘটতে পারে এ প্রশ্ন রাখেন বক্তারা।

বক্তারা আরো বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামে ধর্ষক, খুনী ও সস্ত্রাসীদের অভয়ারণ্যে পরিণত হয়েছে। এতে সেনা-প্রশাসনের প্রত্যক্ষ মদদ রয়েছে। ফলে সাম্প্রতিক সময়ে হত্যা, ধর্ষণ, খুন-গুম-অপহরণের মত ঘটনা রেকর্ড সংখ্যক বেড়েছে। সরকার নব্য মুখোশবাহিনী সৃষ্টি করে এবং সংস্কারবাদী জেএসএস নামে একটি আঞ্চলিক গ্রুপকে পকেটস্থ করে পার্বত্য চট্টগ্রামের জনগণের উপর সন্ত্রাস ও তথাকথিত ভ্রাতৃঘাতি সংঘাত চাপিয়ে দেয়ার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। এ সুযোগে সরকার পার্বত্য চুক্তিকে বৃদ্ধাঙ্গুলী দেখিয়ে বিভিন্ন এলাকায় নতুন করে সেনা ক্যাম্প নির্মান ও সম্প্রসারণ করছে।

বক্তারা ক্ষোভের সাথে বলেন, পার্বত্য চুক্তি পক্ষের দাবিদার লোকজন এর বিরুদ্ধে কোন একটি বাক্যও উচ্চারণ করছে না। বরং এমএন লারমা আদর্শ অনুসারী দাবিদার তথাকথিত একটি আঞ্চলিক দল সেনা ক্যাম্প সম্প্রসারণে পরোক্ষভাবে সহযোগিতা দিয়ে যাচ্ছে। এতেই দৃশ্যমান হয় যে, তাঁরা রাজনৈতিকভাবে পরাজিত, অধঃপতিত ও সরকারের তাবেদারে পরিণত হয়েছে।

সমাবেশ থেকে বক্তারা অবিলম্বে ত্রিপুরা কিশোরী ধর্ষণের সাথে জড়িত সকল দুর্বৃত্তকে গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি, অবৈধভাবে সেনা ক্যাম্প নির্মাণ ও সম্প্রসারণ বন্ধ করা এবং সারাদেশে নারী নির্যাতন বন্ধের দাবি জানান।

সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন ডিওয়াইএফ-এর খাগড়াছড়ি জেলা সাধারণ সম্পাদক রতন স্মৃতি চাকমা। এতে বক্তব্য রাখেন এইচডব্লিউএফ নেত্রী এন্টি চাকমা ও পিসিপি খাগড়াছড়ি জেলা ভারপ্রাপ্ত সভাপতি তপন চাকমা। সমাবেশে সঞ্চালনা করেন পিসিপি খাগড়াছড়ি জেলা সাধারণ সম্পাদক অমল ত্রিপুরা।
—————
সিএইচটিনিউজ ডটকম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।


Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.