দীঘিনালায় পিসিপির ২৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালনে বাধা দেয়ার প্রতিবাদে চট্টগ্রামে বিক্ষোভ

0
0

ctg protest,20.05.20162

চট্টগ্রাম : খাগড়াছড়ি জেলার দীঘিনালায় পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের ২৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী অনুষ্ঠানের মঞ্চ ভেঙ্গে দিয়ে অনুষ্ঠান ভন্ডুল করে দেওয়ার প্রতিবাদে এবং পাহাড় থেকে সেনা শাসন প্রত্যাহারের দাবিতে চট্টগ্রাম নগরীতে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ (পিসিপি) চট্টগ্রাম মহানগর ও চবি শাখা।

শুক্রবার (২০ মে) সকাল সাড়ে ১০টায় বিক্ষোভ মিছিলটি নগরীর শহীদ মিনার প্রাঙ্গন থেকে শুরু হয়ে নন্দন কানন হয়ে প্রেস ক্লাব ঘুরে চেরাগী পাহাড় মোড়ে এসেএক সমাবেশের মধ্য দিয়ে শেষ হয়।

পিসিপি’র নগর শাখার সহ-সভাপতি পলাশ চাকমা’র সভাপতিত্বে ও চবি শাখার তথ্য ও প্রচার সম্পাদক রুপন চাকমার সঞ্চালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের কেন্দ্রীয় সভাপতি অংগ্য মারমা, নগর শাখার সহ-সভাপতি শুভ চাক, পিসিপি চবি শাখার সাধারণ সম্পাদক সুনয়ন চাকমা ও সংহতি জানিয়ে বক্তব্য রাখেন জাতীয় মুক্তি কাউন্সিলের কেন্দ্রীয় সদস্য সামিউল আলম।

সমাবেশে বক্তারা অভিযোগ করে বলেন, আজ ২০শে মে পার্বত্য চট্টগ্রামের ছাত্র আন্দোলনের ইতিহাসের এক গৌরবজ্জ্বল দিন। প্রতি বছরের ন্যায় আজকের এই দিনেও খাগড়াছড়ির দীঘিনালা উপজেলার বানছড়া উচ্চবিদ্যালয় মাঠে বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ২৭তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন করার জন্য সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করার শেষ পর্যায়ে গতকাল বিকাল তিনটার দিকে দীঘিনালা জোনের সেনাবাহিনীরএকটি টিম দুইটি জীপে করে হানা দেয় এবং মঞ্চস্থলের পুরো এলাকা ঘিরে ফেলে মঞ্চনির্মাণকারীদের মঞ্চ নির্মাণ করতে বাধা দেয়। এই সময় সেনারা জোরপূর্বক পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের কর্মীসহ মঞ্চস্থলের শ্রমিকদের সেখান থেকে তাড়িয়ে দেয়। এরপর তারা (সেনাবাহিনী) মঞ্চ ও প্যান্ডেল নির্মাণের জন্য সমাবেশস্থলে রাখা বাঁশ ও অন্যান্য সরঞ্জাম তছনছ করে দিয়ে ছড়িয়ে ছিটিয়ে রাখে। এ সময় পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের কর্মীরা প্রতিবাদ করতে চাইলে তাদের হুমকি-ধামকি দেয়া হয়।

ctgprotest3

সমাবেশে বক্তারা আরো অভিযোগ করে বলেন, গতবছরও পিসিপি’ ২৬তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী চট্টগ্রাম নগরীতে পালন করার জন্য প্রশাসনিক অনুমতি প্রদান করা হলেও অনুষ্ঠানের দিন সকালে ব্যানার কেড়ে নিয়ে অগণতান্ত্রিক পুলিশী হস্তক্ষেপে ভন্ডুল করে দেয়া হয়েছিল। জনগণকে বিভ্রান্ত ও ছাত্র সমাজ থেকে পিসিপিকে বিচ্ছিন্ন করার অপচেষ্টা চালানোর উদ্দেশ্যেই প্রশাসন বারবার মূল ধারার পিসিপি’র প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালনে বাধা দিচ্ছে। সংবিধানে গণতান্ত্রিক মিছিল, মিটিং, সভা, সমাবেশসহ মত প্রকাশের স্বাধীনতার নিশ্চয়তা উল্লেখ থাকলেও দীঘিনালায় পাহাড়ি ছাত্র ছাত্র পরিষদের শান্তিপূর্ণ সমাবেশ আয়োজনে বাধা দেয়ার মাধ্যমে সরকার নিজেই সংবিধান লঙ্ঘন করেছে বলে বক্তাদের অভিযোগ।

বক্তারা আরও বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম বাংলাদেশের অবিচ্ছিন্ন অঞ্চল হওয়া সত্ত্বেও পাহাড় ও সমতলে দুই ভিন্ন শাসন ব্যবস্থা জারি রেখেছে। পশ্চিম পাকিস্তানের ন্যায় শাসকগোষ্ঠী পার্বত্য চট্টগ্রামের জনগণকে শাসন ও শোষণ করার জন্য অগণতান্ত্রিক ১১ দফা নির্দেশনা জারি করে অঘোষিত জরুরী অবস্থা কায়েম করেছে।

বক্তারা অবিলম্বে পাহাড় থেকে অঘোষিত সেনা শাসন প্রত্যাহার করে পার্বত্য চট্টগ্রামসহ সারা দেশে গণতান্ত্রিক পরিবেশ নিশ্চিত করার জন্য সরকারের নিকট জোর দাবি জানান।
——————

সিএইচটিনিউজ.কম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।


Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.