নান্যাচরের বগাছড়িতে পাহাড়ি বসতিতে অগ্নিসংযোগের প্রতিবাদে ঢাকায় বিক্ষোভ

0
0

সিএইচটিনিউজ.কম
Dhaka demo

ঢাকা প্রতিনিধি: রাঙামাটির নান্যাচর উপজেলার বগাছড়িতে সেটলার ও সেনা কর্তৃক বৌদ্ধ বিহার, পাহাড়ি বসতি, দোকানপাটে হামলা, অগ্নিসংযোগ-ভাঙচুর-লুটপাট ও কাপ্তাইয়ে স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ-খুনের প্রতিবাদে মঙ্গলবার (১৬ ডিসেম্বর) বেলা সাড়ে ৩টায় ঢাকায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এক বিক্ষোভ সমবেশ ও মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের সভাপতি মাইকেল চাকমার সভাপতিত্বে ও পিসিপি’র কেন্দ্রীয় দপ্তর সম্পাদক বিপুল চাকমার সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন মানবাধিকার কর্মী ব্যারিস্টার জ্যোতির্ময় বড়ুয়া, বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশনের সভাপতি সামিউল আলম রিচি, পিসিপি’র কেন্দ্রীয় সভাপতি থুইক্যচিং মারমা, হিল উইমেন্স ফেডারেশনের সভাপতি নিরূপা চাকমা ও পিসিপি’র নেতা রিয়াল ত্রিপুরা।

বিজয় দিবসের দিনে ঢাকায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে আহূত প্রতিবাদ মিছিলকে জ্যোতির্ময় বড়ুয়া ক্ষমতাসীন সরকারের মুখে চুনকালি দেয়ার সামিল বলে মন্তব্য করেন এবং বলেন, এত বড় একটি জাতীয় গুরুত্বপূর্ণ দিনে আনন্দ উল্লাসের পরিবর্তে পাহাড়ি জনগণকে ক্ষোভে-দুঃখে রাজপথে প্রতিবাদ-বিক্ষোভ জানাতে হচ্ছে, এটা ক্ষমতাসীন সরকারের বড় ব্যর্থতা ও লজ্জার বিষয়, যা বিজয় দিবসে সরকারের সকল আয়োজনকে ম্লান করে দিয়েছে। তিনি নান্যাচরের বগাছড়িতে হামলাকারী সেটলার ও অগ্নিসংযোগে জড়িত সেনা কর্মকর্তা-জওয়ানদের অবিলম্বে বিচারের আওতায় আনার এবং সেটলারদের প্রত্যাহারের দাবি জানান।

বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশনের সভাপতি সামিউল আলম রিচি তার ব্ক্তব্যে ক্ষমতাসীন সরকারের তীব্র সমালোচনা করেন। স্বাধীনতার সপক্ষ শক্তি হিসেবে নিজেদের জাহির করলেও বিজয় দিবসের দিনটিতে রাঙ্গামাটিতে হামলা-লুটপাটের ঘটনার জন্য সরকারই দায়ী এবং এরাই স্বাধীনতার বিরোধিতা করছে বলে তিনি মন্তব্য করেন। তিনি আরও বলেন, আওয়ামীলীগ দেশে উগ্র বাঙালি জাতীয়তা ও সাম্প্রদায়িকতার বিষবাষ্প ছড়াচ্ছে। বিএনপি’কে সমালোচনা করলেও আওয়ামীলীগ সেটলার ও সেনাবাহিনী পার্বত্য চট্টগ্রাম থেকে প্রত্যাহার করে নি। বরং পাহাড়ি জনগণের ন্যায়সঙ্গত আন্দোলন দমন করতে সেটলারদের গুটি হিসেবে ব্যবহার করছে। দেশের সাধারণ জনগণ শাসকগোষ্ঠীর এ ঘৃণ্য খেলা দেখতে চায় না। পাহাড়ি জনগণ এ দেশের নাগরিক, সরকার এটা মানতে চায় না। পার্বত্য চট্টগ্রাম ছাড়াও দেশের সমতল অঞ্চলে বসবাসকারী সান্তাল, গারোসহ অন্যান্য জাতিসত্তাসমূহও প্রতিনিয়ত নির্যাতিত হচ্ছে, কারোরই অধিকার নেই। পাহাড়-সমতলে লড়াই জোরদার করে নিজেদের অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে বলে মন্তব্য করেন।

পিসিপি’র সভাপতি থুইক্যচিং মারমা বলেন, বিতর্কিত পঞ্চদশ সংশোধনী আইন পাস করিয়ে আওয়ামীলীগ বাহাত্তরের সংবিধান পুনঃপ্রতিষ্ঠার নামে ভিন্ন ভাষা-ভাষী জাতিসমূহের ওপর বাঙালি জাতীয়তা চাপিয়ে দিয়েছে। অধিকার তো দূরের কথা, ক্ষমতাসীন সরকার বিজয় দিবসের দিনেও আমাদের শান্তিতে থাকতে দিচ্ছে না। কাপ্তাইয়ে স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ ও খুনের নিন্দা জানিয়ে বলেন, পাহাড়িরা যাতে সংঘবদ্ধ হয়ে আন্দোলন করতে না পারে সেজন্য বিভেদ সৃষ্টির ষড়যন্ত্র চলছে। তিনি মাইসছড়িতে চিং সা মং-এর মৃত্যুকে পুঁজি করে চিহ্নিত চক্রের মিছিলেরও তীব্র সমালোচনা করেন এবং তাদেরকে সেনা গোয়েন্দা সংস্থার এজেন্ট বলে কঠোর নিন্দা জানান।

হিল উইমেন্স ফেডারেশনের সভানেত্রী নিরূপা চাকমা তার বক্তব্যে কাপ্তাইয়ে জেএসসি পরীক্ষার্থী ছাত্রীকে ধর্ষণ ও খুনের ঘটনা বিচ্ছিন্ন নয়, সরকারের নীলনক্সা অনুযায়ী ঘটছে বলে মন্তব্য করেন। কল্পনা চাকমার চিহ্নিত অপহরণকারী লে.ফেরদৌসদের বিচার না হওয়ায় দুর্বৃত্তরা এভাবে অপহরণ, ধর্ষণ ও খুন করতে প্ররোচিত হচ্ছে। তিনি ছাত্রীদেরকে নিজেদের আত্মসম্মান নিশ্চিত করার জন্যও আন্দোলনে যুক্ত হতে হবে বলে মন্তব্য করেন।

পিসিপি নেতা রিয়াল ত্রিপুরা তার কাপ্তাইয়ে ধর্ষণ-খুন, বগাছড়িতে অগ্নিসংযোগের তীব্র নিন্দা জানান। মাটিরাঙ্গা-গুইমারায় প্রতিনিয়ত যে নিপীড়ন চলছে তা স্মরণ করিয়ে দেন।

প্রেস ক্লাবে সমাবেশ শেষে বিক্ষোভকারীরা মিছিল নিয়ে পল্টনের দিকে অগ্রসর হতে চাইলে তীব্র যান জটের কারণে আর অগ্রসর হতে পারে নি।
————–

সিএইচটিনিউজ.কম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।


Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.