নান্যাচরে সেনাবাহিনী কর্তৃক ১৪ জন নিরীহ গ্রামবাসী আটক, ইউপিডিএফ’র নিন্দা ও প্রতিবাদ

0
1

Nannyachar m copyরাঙামাটি।। খাগড়াছড়ির মহালছড়ি উপজেলা সীমান্তবর্তী রাঙামাটির নান্যাচর উপজেলার সাবেক্ষ্যং ইউনিয়নের মধ্যআদাম নামক গ্রামে সেনাবাহিনী কর্তৃক  জনপ্রতিনিধি, গ্রামের কার্বারী, স্কুলছাত্রসহ ১৪ জন নিরীহ গ্রামবাসীকে আটকের খবর পাওয়া গেছে। আজ শুক্রবার (১২ আগস্ট) সকালে এ ঘটনা ঘটে।

উক্ত আটকের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট(ইউপিডিএফ)।

আটককৃত গ্রামবাসীরা হলেন-১. বৃষকেতু চাকমা(৪০) পিং- তরুণী কুমার চাকমা। তিনি নান্যাচর ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডের নবনির্বাচিত ইউপি সদস্য। ২. পূর্ণ চন্দ্র চাকমা (গ্রাম প্রধান), বয়স: ৬০, ৩. এডিশন চাকমা (১৬), পিতা-নয়ন জ্যোতি চাকমা। সে গেন্দিয়ং করল্যাছড়ি উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণীর ছাত্র। ৪. স্বপন চাকমা(৩২), পিতা-হিরণ কুমার চাকমা, ৫. পরেশ চাকমা(২৯), পিতা-কমলালোচন চাকমা, ৬. তুঙ্গ্যা চাকমা(২২), পিতা-বক্র সেন চাকমা, ৭.নয়ন জীবন চাকমা(৪২), পিং-হিরণ কুমার চাকমা। তিনি একজন গ্রাম্য দোকানদার, ৮. বেন্দ চাকমা (৩৫), পিতা-প্রফুল্ল চাকমা, ৯. নিতু চাকমা(৪১), পিতা- শরৎ চন্দ্র চাকমা, ১০. চরণ চাকমা (২৬),পিতা-সিংহ চাকমা, ১১. মণি চাকমা(৩৫),পিতা-কৃঞ্চ চাকমা, ১২. রূপেন্টু চাকমা, পিতা-অমল বিকাশ চাকমা, ১৩. ওয়াসিম চাকমা, ১৪. পূর্ণ বসু চাকমা, পিতা-সুরতি বিকাশ চাকমা। বিকাল ৪টা পর্যন্ত তাদেরকে ছেড়ে দেওয়া হয়নি।

সেনাবাহিনীর এ ধরনের অন্যায় আটকের ঘটনায় মধ্যআদামসহ আশে-পাশের গ্রামবাসীদের মধ্যে চরম আতঙ্ক বিরাজ করছে।

ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ) রাঙ্গামাটি জেলা ইউনিটের সংগঠক সচল চাকমা সংবাদ মাধ্যমে প্রদত্ত এক বিবৃতিতে উক্ত আটকের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

বিবৃতিতে তিনি অভিযোগ করে বলেন, আজ (শুক্রবার) সকাল সাড়ে ৬টায় মহালছড়ি জোনের জোন কমান্ডার লে.কর্ণেল হুমায়ুন কবীর (৩২ বীর)-এর নেতৃত্বে একদল সেনা সদস্য নান্যাচর উপজেলার সাবেক্ষ্যং ইউনিয়নের মধ্যআদাম নামক গ্রামের হানা দেয়। এ সময় গ্রামবাসীরা তাদের ক্ষেত-খামার, বাগান-বাগিছা ও ধান্য জমিতে কাজে যাওয়ার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। গ্রামবাসীরা কোন কিছু বুঝে উঠার আগেই সেনারা জনপ্রতিনিধি, গ্রামের কার্বারী, স্কুল ছাত্রসহ ১৪ জন নিরীহ গ্রামবাসীকে আটক করে মহালছড়ি জোনে নিয়ে যায়।

বিবৃতিতে সচল চাকমা আরো বলেন, সেনারা নিরীহ গ্রামবাসীদের আটক করে ক্ষান্ত হয়নি, তারা নির্বিচারে নিরীহ লোকজনের ওপর অমানুষিক নির্যাতন চালিয়েছে। এছাড়া গ্রামের প্রায় বাড়ি-ঘরে তল্লাশি ও বাড়িতে থাকা মূল্যবান জিনিসপত্র তচনছ করে দিয়েছে।

বিবৃতিতে তিনি নিরীহ গ্রামবাসীদের অন্যায়ভাবে আটক ও নির্যাতনের ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে অবিলম্বে আটককৃত গ্রামবাসীদের মুক্তি, অন্যায় ধরপাকড় ও নির্যাতন বন্ধের দাবি জানিয়েছেন।
—————-

সিএইচটি নিউজ ডটকম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।


Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.