নির্বাচনী প্রচারণায় সরগরম দীঘিনালা উপজেলা

0
0

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি, সিএইচটিনিউজ.কম
U-election Dighinala copyখাগড়াছড়ির দীঘিনালা উপজেলায় ৫ম পর্যায়ের ৪র্থউপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে ঘিরে জমে উঠেছে নির্বাচনী আমেজ। প্রতীক বরাদ্দ পাওয়ার পর থেকে উপজেলার সর্বত্র ছড়িয়ে পড়েছে নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা। প্রার্থী ও সমর্থকরা ছুটে বেড়াচ্ছেন উপজেলার এক প্রান্ত থেকে অন্যপ্রান্তে। সাদা-কালো নির্বাচনী পোষ্টার, ব্যানার ও মাইকিং’এ এখন সরগরম দীঘিনালা উপজেলা।

দীঘিনালা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ৯ জন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৪ জন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৩ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন। বড় দুুই দলের পাশাপাশি পাহাড়ের আঞ্চলিক রাজনৈতিক দলগুলোর পক্ষ থেকেও দেয়া হয়েছে নিজেদের প্রার্থী। তবে বিএনপি’র পক্ষ থেকে একাধিক প্রার্থী থাকায় দীঘিনালা উপজেলার আসন নিয়ে বেকায়দায় রয়েছে বিএনপি। চেয়ারম্যান পদে জেলা বিএনপি‘র প্রচার সম্পাদক খনি রঞ্জন ত্রিপুরা(ব্যাটারী প্রতীকে), জেলা বিএনপির পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক ও মেরুং ইউপি চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন (ঘোড়া প্রতীকে), উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি আলহাজ্ব মোঃ কাশেম (চিংড়ি মাছ প্রতীকে), পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির (এম এন লারমা) সাংগঠনিক সম্পাদক চয়ন বিকাশ চাকমা (আনারস প্রতীকে), ইউপিডিএফ সমর্থিত নবকমল চাকমা (হেলিকপ্টার প্রতীকে), বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান ধর্মবীর চাকমা স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে (কাপ-পিরিচ প্রতীকে), প্রিয়দর্শী চাকমা (মোটরসাইকেল প্রতীকে), পাহাড়ী ছাত্র পরিষদের সাবেক সভাপতি রিপন চাকমা (টেলিফোন প্রতীকে) ও মেরুং উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মোহাম্মদ আমজাদ হোসেন চৌধুরী স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে (দোয়াত কলম প্রতীকে) প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন।

ভাইস চেয়ারম্যান পদে বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যন সুপ্রিয় চাকমা (তালা প্রতীকে), সুসময় চাকমা (চশমা প্রতীকে), ইউপি সদস্য আব্দুল ছালাম (টিয়া পাখি প্রতীকে) ও আব্দুর রহমান (টিউবওয়েল প্রতীকে) প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ইউপিডিএফ সমর্থিত হিল উইমেন্স ফেডারেশনের সাবেক কেন্দ্রীয় সভানেত্রী সোনালী চাকমা (কলস প্রতীকে), বাবুছড়া ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক মহিলা সদস্য গোপা দেবী চাকমা (প্রজাপতি প্রতীকে) ও মেরুং ইউনিয়ন পরিষদের মহিলা সদস্য আফরোজা বেগম (পদ্মফুল প্রতীকে) প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন।

উপজেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা ফজলুল জাহিদ পাভেল জানান, দীঘিনালা উপজেলার ২৫টি ভোট কেন্দ্রের মধ্যে নাড়াইছড়ি কেন্দ্রটি ঝুঁকিপূর্ণ। ঐ কেন্দ্রে ব্যবহারের জন্য সেনাবাহিনীর হেলিকপ্টার সহায়তায় চাওয়া হয়েছে। দীঘিনালা উপজেলায় ৩১শে মার্চ অনুষ্ঠিতব্য ৫ম পর্যায়ের ৪র্থ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে অবাধ ও সুষ্ঠ করতে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সবধরণের প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে।


Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.