রবিবার, ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮
সংবাদ শিরোনাম

নুনছড়িতে সেনাবাহিনী কর্তৃক লক্ষী নারায়ন মন্দির থেকে মুর্তি চুরি ঘটনার প্রতিবাদে এলাকাবাসীর মানববন্ধন

খাগড়াছড়ি : খাগড়াছড়ি জেলার মাইসছড়ি ইউনিয়নের নুনছড়ি দেবতাপুকুর এলাকায় স্থানীয় জনসাধারণের উদ্যোগে নির্মিত লক্ষী নারায়ন মন্দিরে সেনাবাহিনী কর্তৃক মন্দির ভাঙচুর এবং মূর্তি চুরির প্রতিবাদে আজ  শুক্রবার (১৬ নভেম্বর ২০১৮) দুপুর ১ টায় দেবতাপুকুর এলাকায় সনাতন ধর্মালম্বী ও এলাকাবাসীর ব্যানারে এক মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

ঘন্টাব্যাপি অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে পার্শ্ববতী রশিধন পাড়ার কার্বারী দীর্ঘ জয় ত্রিপুরা, তৈমাতাই পাড়ার মুরুব্বী রকিন্দ্র ত্রিপুরাসহ প্রায় দুই শতাধিক সনাতন ধর্মালম্বী নারী-পুরুষ স্বতস্ফর্তভাবে অংশগ্রহণ করেন।

মন্দির পরিচালনা কমিটির সভাপতি রতন ত্রিপুরার সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, দেবতাপুকুর পাড়ার মহিলা কার্বারি দৃহ ত্রিপুরা এবং যুব সমাজের পক্ষে ধহে ত্রিপুরা।

মানববন্ধনে বক্তারা অভিযোগ করে বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামে সেনাবাহিনী সংখ্যালঘুদের ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান ধ্বংস করে প্রতিষ্ঠানের ভূমি বেদখলের লক্ষ্যে বিভিন্ন ষড়যন্ত্র চালিয়ে যাচ্ছে। সেই যড়যন্ত্রের নীলনক্সা অনুযায়ী গত সোমবার (১২ নভেম্বর ২০১৮) মহালছড়ি জোন কমাণ্ডারের নির্দেশে একদল সেনাসদস্য নুনছড়ির দেবতাপুকুর লক্ষী নারায়ন মন্দিরে যায়। সে সময় মন্দিরে লোকজন না থাকার সুযোগকে কাজে লাগিয়ে সেনাসদস্যরা মন্দির ভাঙচুর করে মন্দিরে অবস্থিত মুর্তি, বাদ্যযন্ত্র চুরি করে নিয়ে যায়। একই সাথে মহোৎসবের জন্য এলাকাবাসীর কাছ থেকে উত্তোলিত সকল জিনিসপত্রাদি(চাল, আলু, ডাল, বিস্কুট এবং বিভিন্ন ধরনের কোমল পানীয়) নষ্ট করে দেয়। এতে করে সনাতন ধর্মালম্বীদের মহোৎসব পালনে বিঘ্ন ঘটানোসহ ধর্মীয় অনুভূতিতে চরমভাবে আঘাত করা হয়েছে।

বক্তারা মানববন্ধন থেকে সরকারের কাছে ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান ধ্বংসের ষড়যন্ত্র বন্ধসহ ঘটনার নির্দেশক মহালছড়ি জোন কমাণ্ডার এবং জড়িত সেনাসদস্যদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান। সেই সাথে মন্দির হতে চুরি হওয়া মূর্তি, বাদ্যযন্ত্র ফেরত ও নষ্ট করে দেওয়া সমস্ত সরঞ্জামাদির ক্ষতিপূরণও দাবি করেন।

————

সিএইচটি নিউজ ডটকম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।

 


Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.