মঙ্গলবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৭
সংবাদ শিরোনাম

পার্বত্য চট্টগ্রামে ব্রিটিশ শাসনের ইতিহাসের উপর মানিকছড়িতে আলোচনা সভা

মানিকছড়ি : পার্বত্য চট্টগ্রামে ব্রিটিশ শাষণের ইতিহাস উপর গত বৃহস্পতিবার (১৭ আগস্ট) দুপুর ১২টায় খাগড়াছড়ির মানিকছড়িতে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সভায় পিসিপি মানিকছড়ি কলেজ শাখার সভাপতি সুইথুই মারমার সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের কেন্দ্রীয় সভাপতি অংগ্য মারমা, ইউপিডিএফ সংগঠক চিংনু মারমা ও পিসিপি’র খাগড়াছড়ি জেলা শাখার অর্থ সম্পাদক সমর চাকমা।

Mসভায় অংগ্য মারমা তার বক্তব্যে বলেন, পার্বত্য অঞ্চল একসময় স্বাধীন ছিল। পাহাড়িদের পূর্বপুরুষরা এদেশের মোঘল, ব্রিটিশদের বিরুদ্বে গৌরবোজ্জ্বল প্রতিরোধ সংগ্রাম করেছিল। মোঘল শাষণের পর পার্বত্য আঞ্চল ব্রিটিশ শাসকদের হাতে চলে গেলে তারা পাহাড়িদের ওপর শাসন-শোষণ করতে থাকে। এই অন্যায় শোষণের বিরোধিতা করেছিলো আমাদের পাহাড়ি রাজারা।

তিনি আরো বলেন, ব্রিটিশ শাসকরা বাণিজ্যিকভাবে এই অঞ্চলে প্রবেশ করে শাসন-শোষণ কায়েম করে এবং স্বাধীন পার্বত্য অঞ্চলকে সাধারণ একটি জেলায় পরিণত করে। ১৯৪৭ সালে ভারত পাকিস্তান ভাগ করার সময় ব্রিটিশ শাসকরা পার্বত্য অঞ্চলকে ষড়যন্ত্র করে পাকিস্তানে অর্ন্তভূক্ত করে। পরে পাকিস্তান বেলুচ রেজিমেন্ট এসে পার্বত্য অঞ্চল দখল করে নেয়। ওই সময় পাহাড়িদের মধ্যে থেকে কোন ভালো নেতৃত্ব এবং ভালো রাজনৈতিক সংগঠন না থাকার কারণে কোন প্রতিরোধ গড়ে তুলতে পারিনি।

সমর চাকমা তার বক্তব্যে বলেন, বাংলাদেশ নামক একটি স্বাধীন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পরও পাহাড়িদের উপর নিপীড়ন-নির্যাতন কমেনি। এদেশের সরকার তথা শাসকগোষ্ঠী পাহাড়িদের উপর নিপীড়ন-নির্যাতন অব্যাহত রেখেছে।

চিংনু মারমা তার বক্তব্যে শান্তিপূর্ণভাবে বাঁচার তাগিদে পার্বত্য চট্টগ্রামের নিপীড়িত নির্যাতিত জনগণকে অধিকার আদায়ের আন্দোলনে সামিল হওয়ার আহ্বান জানান।
————–
সিএইচটিনিউজ.কম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।


Print Friendly

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।