গুইমারায় পিসিপি’র সমাবেশে সেনা-পুলিশের হামলায় ১২ জন আহত, আটক ১

1
1

সিএইচটিনিউজ.কম
Guimaraখাগড়াছড়ি জেলার গুইমারায়  বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ(পিসিপি)-এর শান্তিপূর্ণ সমাবেশে সেনাবাহিনী ও পুলিশের হামলায়  কমপক্ষে ১২ জন আহত হয়েছেন।  এছাড়া সেনারা পিসিপি’র এক কর্মীকে আটক করে নিয়ে গেছে।  আজ ৮ আগস্ট শুক্রবার এ হামলার ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, গত ৬ আগস্ট ২০১৪ গুইমারা বাজার থেকে সেনাবাহিনী কর্তৃক আটক হওয়া গুইমারা উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণীর ছাত্র চিকন চান চাকমা (১৬) ও গুইমারার বটতলী গ্রামের অংশি প্রু মারমার(১৭) নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের গুইমারা থানা শাখা  আজ শুক্রবার বেলা ২টায় এক বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশের আয়োজন করে।  গুইমারার রামেসু বাজার মুখ থেকে বিক্ষোভ মিছিলটি শুরু হয়ে গুইমারা বাজার প্রদক্ষিণ শেষে  প্রেসক্লাবের সামনে শান্তিপূর্ণ সমাবেশ চলাকালে বিনা কারণে সেনাবাহিনী ও পুলিশ সমাবেশে অংশগ্রহণকারীদের উপর হামলা ও লাঠিচার্জ করে ছত্রভঙ্গ করে দেয়।  এ হামলায় কমপক্ষে ১২ জন পিসিপি কর্মী ও স্কুল-কলেজের ছাত্র আহত হয় (বিশেষ কারণে আহতদের  নাম উল্লেখ করা হলো না)।  এ সময় সেনা সদস্যরা পিসিপি খাগড়াছড়ি সরকারি কলেজ শাখার নেতা রিয়েল ত্রিপুরাকে মারধর করার পর আটক করে নিয়ে যায়।

এদিকে এ হামলার পর পরই সেনারা গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক অংগ্য মারমার বাড়িতে তল্লাশি চালিয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

সর্বশেষ বিকাল সাড়ে ৫টায় প্রাপ্ত খবরে জানা গেছে এলাকার  বিভিন্ন স্থানে এখনো সেনাবাহিনী ও পুলিশ অবস্থান করছে।

বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ(পিসিপি)-এর কেন্দ্রীয় সভাপতি থুইক্যচিং মারমা ও সাধারণ সম্পাদক রিটন চাকমা সংবাদ মাধ্যমে প্রদত্ত এক বিবৃতিতে এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

বিবৃতিতে নেতৃদ্বয় এ হামলাকে ন্যাক্কারজনক উল্লেখ করে বলেন, অন্যায়-অবিচার নিপীড়ন-নির্যাতনের বিরুদ্ধে মিছিল-মিটিং, সভা সমাবেশ করার অধিকার সংবিধান স্বীকৃত গণতান্ত্রিক অধিকার। কিন্তু সেনাবাহিনী এ গণতান্ত্রিক অধিকারের উপর নগ্ন হস্তক্ষেপ করে চলেছে। সেনা-পুলিশের এ নগ্ন হামলার মাধ্যমে সরকারের ফ্যাসিবাদী চরিত্র উন্মোচিত হয়েছে।

বিবৃতিতে তারা অবিলম্বে আটককৃতদের  নিঃশর্ত মুক্তি, হামলাকারী সেনা ও পুলিশ সদস্যদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ ও গণতান্ত্রিক অধিকারের উপর নগ্ন হস্তক্ষেপ বন্ধ করার জোর দাবি জানান।
—————

সিএইচটিনিউজ.কম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।


Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.