আন্তর্জাতিক মানবাধিকার দিবসে

রাঙামাটিতে বগাছড়ির ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারবর্গের মানববন্ধন

0
0

সিএইচটি নিউজ ডটকমRangamati photo, 10.12.2015
রাঙামাটি : আন্তর্জাতিক মানবাধিকার দিবসে বগাছড়ি ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারবর্গ ও নানিয়াচর ভূমি রক্ষা কমিটির উদ্যোগে আজ বৃহস্পতিবার (১০ ডিসেম্বর) সকাল ১১টায় রাঙামাটির ডিসি অফিসের সম্মুখে এক মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

‘পার্বত্য চট্টগ্রামে সংবিধান স্বীকৃত মৌলিক অধিকার নিশ্চিত কর, সাম্প্রদায়িক হামলা-ভূমি বেদখল বন্ধ কর, ষড়যন্ত্রমূলক মামলা তুলে নাও’ এই দাবি সম্বলিত শ্লোগানে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন ১৬ ডিসেম্বর ২০১৪ বগাছড়িতে সেটলার হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের পক্ষে বুড়িঘাট ইউপি’র ১,২, ৩ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত আসনের মেম্বার কাজলী ত্রিপুরা, একই ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত ও নানিয়ারচর ভূমি রক্ষা কমিটির সদস্য বুড়িঘাট ইউপি’র ৩নং ওয়ার্ড মেম্বার সুবিন্তু চাকমা ও পার্বত্য নারী সংঘের কেন্দ্রীয় সদস্য শান্তি প্রভা চাকমা।

মানববন্ধন অনুষ্ঠানে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের প্রায় ২ শতাধিক সদস্য অংশগ্রহণ করেন। এ সময় তারা মানবাধিকার সংক্রান্ত বিভিন্ন শ্লোগান সম্বলিত প্ল্যাকার্ড প্রদর্শন করেন।

ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধনে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবেরর সদস্যরা বলেন, গতবছর ১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবসে বগাছড়ির ১৪ মাইল এলাকায় তিনটি পাহাড়ি গ্রামে সেনাবাহিনীর প্রত্যক্ষ সহযোগীতায় একদল সেটলার দুর্বৃত্ত হামলা চালায়। এ ঘটনায় তিনটি গ্রামের মোট ৬১টি বাড়িঘর পুড়িয়ে দেয়া হয়। ঘটনার পর আজ প্রায় এক বছর পূর্ণ হতে চলেছে, প্রশাসনের পক্ষ থেকে পুড়ে যাওয়া বাড়িঘর নির্মাণের আশ্বাস দেয়া হলেও এখনো তা করা হয়নি। ইতিমধ্যে যে ২৫টি বাড়ি নির্মান করে দেয়া হয়েছে তাও প্রয়োজনের তুলনায় যথেষ্ট নয়। বাদবাকী বাড়িঘর নির্মাণের আদৌ কোন উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে না। ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের সদস্যরা বর্তমানে মানবেতর জীবন যাপন করতে বাধ্য হচ্ছে।

বক্তারা আরো বলেন, এ ঘটনার পর হামলা ও অগ্নিসংযোগের সাথে জড়িত চিহ্নিত সেটলারদের বিরুদ্ধে মামলা করা হলেও প্রশাসন তাদের বিরুদ্ধে কোন আইনগত পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি। আসামীরা প্রকাশ্যে ঘুরাফেরা করছে অথচ প্রশাসন তাদের গ্রেফতার করছে না। বক্তারা প্রশাসনের এহেন পক্ষপাতমূলক আচরণে ক্ষোভ প্রকাশ করেন এবং অবিলম্বে দোষীদের গ্রেফতারে দাবি জানান। ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারে সদস্যরা আগামী বর্ষাকালের আগে পুড়ে যাওয়া বাড়িঘর নির্মানের দাবি জানান।
—————-

সিএইচটিনিউজ.কম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।


Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.