রাঙ্গামাটি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ যে কোনভাবে বিজয়ী হতে ষড়যন্ত্র করছে

0
1

রাঙামাটি প্রতিনিধি ॥ রাঙামাটি জেলায় সারা দেশের মত আগামী ০৪ জুন ২০১৬ ইং ৬ষ্ঠ ধাপে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন হতে যাচ্ছে। গত ২৩ এপ্রিল তৃতীয় ধাপে এ নির্বাচন হবার কথা ছিল। কিন্তু জেলার ৪৯টি ইউনিয়ন পরিষদ আসনের মধ্যে প্রায় ১৯টি ইউনিয়ন পরিষদ আসনে আওয়ামী লীগ প্রার্থী দিতে না পারায় সরকারী ক্ষমতার অপব্যবহার করে নির্বাচন কমিশনকে দিয়ে নির্বাচন পিছিয়ে ৬ষ্ঠ ধাপে নিয়ে যাওয়া হয়।

upelectionজানা যায়, তৃতীয় ধাপে রাঙামাটি সদর উপজেলার ৬টি, জুরাছড়ি উপজেলার ৪টি, বাঘাইছড়ি উপজেলার ৫টি, বরকলে ১টি ও নান্যাচর উপজেলায় দুইট ইউনিয়ন পরিষদ আসনে আওয়ামী লীগ প্রার্থী দিতে সক্ষম হয়নি। প্রার্থী দিতে সক্ষম না হওয়ার দায় আওয়ামী লীগ পার্বত্য চট্টগ্রামের অধিকারের জন্য লড়াই সংগ্রাম পরিচালনাকারী সংগঠন সমূহের উপর চাপিয়ে দেয়। নির্বাচন পিছিয়ে ৬ষ্ঠ ধাপে নিয়ে যাওয়ার পরেও আওয়ামী লীগ অন্তত ৫টি ইউনিয়ন পরিষদের আসনে নিজস্ব প্রার্থী দিতে সক্ষম হয়নি বলে জানা গেছে। এছাড়া বাকী বিভিন্ন এলাকায় নিজেদের প্রার্থী দিতে সক্ষম হলেও দেখা গেছে পাহাড়ি অধ্যুষিত এলাকায় সেটলার বাঙালিকে প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা দিয়ে তারা তাদের প্রার্থী শুন্যতা থেকে উতরে যাওয়ার চেষ্টা করে। মূলত, পার্বত্য জুম্ম জনগণের আস্থা তলানিতে নেমে যাওয়ায় সরকারী দল হয়েও আওয়ামী লীগ রাঙামাটির বিভিন্ন আসনে প্রার্থী দিতে সক্ষম হয়নি।

অথচ এই ব্যর্থতার দায়ভার আওয়ামী লীগ পার্বত্য চট্টগ্রামের অধিকারকামী দলগুলোর কাঁধে ঝুলিয়ে দিয়ে নিজেদের দুর্বলতা ঢামাচাপা দিতে চাইছে।

৬ষ্ঠ ধাপের আগামী ৪ জুন নির্বাচনে নিশ্চিত পরাজয় হবে জেনে আওয়ামী লীগ গত ২৫/২৬ মে সংবাদ সম্মেলন করে ঘোষণা দেয় যে, নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ সৃষ্টি না হলে তারা নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়াতে বাধ্য হবে। দলটি আঞ্চলিক দলগুলোর ‘সশস্ত্র তৎপরতা’র মিথ্যা অভিযোগও তুলেছে। তাদের অভিযোগ রাঙামাটির বেশির ভাগ এলাকাতেই তাদের প্রার্থীরা কাজ করতে পারছেন না।

কিন্তু বাস্তব পরিস্থিতি ভিন্ন। জুম্মদের উপর বাঙালি জাতীয়তাবাদ চাপিয়ে দেয়া, ভূমি বেদখল, সরকারের দেয়া প্রতিশ্রুতি পালন না করা, দুর্নীতি, টেন্ডারবাজি ইত্যাদি নানা কারণে জনগণ আওয়ামী লীগের উপর অত্যন্ত ক্ষুদ্ধ। তাছাড়া পাহাড়ি আওয়ামী লীগাররা এলাকায় দালাল, সুবিধাবাদী, ধান্দাবাজ ও প্রতিক্রিয়াশীল হিসেবে চিহ্নিত। সমাজে তাদেরকে বরাবরই হেয় চোখে দেখা হয়। এজন্য সমাজে নাজেহাল হওয়ার ভয়ে অনেকে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হতে আগ্রহী হয় না।

নির্বাচনে বিজয়ী হতে মরীয়া রাঙামাটি আওয়ামী লীগ
রাঙামাটিতে আওয়ামী লীগের জনপ্রিয়তা তলানিতে নেমে যাওয়ায় জেলা নেতৃবৃন্দ এখন মরীয়া হয়ে উঠেছে। আগামী ৪ জুন অনুষ্ঠিতব্য নির্বাচনে যে কোন প্রকারে নিজেদের প্রার্থীদের জিতিয়ে আনার জন্য তারা প্রয়োজনে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা ব্যবহার করতে পারে বলে জানা গেছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক রাঙামাটি সদরের এক জুম্ম আওয়ামী লীগ নেতাকে ফোন করে নির্বাচন বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি জানান, আওয়ামী লীগের এটা প্রেস্টিজ ইস্যু হয়ে গেছে। অনেকের মতে আওয়ামী লীগের এটা অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে।

জেলা পরিষদের প্রাক্তন চেয়ারম্যান হিসেবে ও আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী সদস্য হিসেবে নিখিল চাকমা নান্যাচর (নানিয়ারচর) উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে নিজেদের দলের প্রার্থীদের বিজয়ী করতে নানা ষড়যন্ত্রের আশ্রয় নিচ্ছে বলে জানা গেছে।

এই তথ্য বিভিন্ন জনের এখন মুখে মুখে যে, নান্যাচর সদর ইউপিতে বিজয় ছিনিয়ে নিতে  ১, ৪ ও ৫ নং কেন্দ্রে আওয়ামী লীগ পেশি শক্তির আশ্রয়সহ জোর করে ভোট কেন্দ্র দখল করতে চেষ্টা করবে। এছাড়া বুড়িঘাট ইউনিয়ন পরিষদের ১, ২, ৫ ও ৬ন নং কেন্দ্র দখল করার পরিকল্পনা নেয়া হতে পারে। এই উদ্দেশ্য সফল করার জন্য নান্যাচর এলাকার আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ পাশের উপজেলা মহালছড়ি আওয়ামী লীগের সহায়তা চেয়েছে বলে জানা গেছে। তারা মহালছড়ি থেকে নির্বাচনের দিন ৪০/৫০ জন যুবক চেয়েছে যাতে পেশি শক্তি প্রদর্শন করে ভোট কেন্দ্র দখল করা যায়।

এছাড়া লুঙুদু উপজেলার আদরকছড়া, গুলশাখালী, লুঙুদু সদর এই ইউনিয়ন পরিষদ আসনেও আওয়ামী লীগ জোর করে বিজয় ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা চালাবে বলে কথা শোন যাচ্ছে।।

অন্য একজন আওয়ামী লীগ সদস্য জানাচ্ছেন, আওয়ামী লীগ উপজেলা সদরের জীবতলী, মগবান, সাপছড়ি, বন্দুকভাঙা, বালুখালী এই ইউনিয়নে নিজেদের প্রার্থীদের বিজয়ী করতে যে কোন ছল চাতুরির আশ্রয় নেবে। প্রয়োজনে সেনাবাহিনীর সহায়তা নেয়া হবে বলে তিনি জানিয়েছেন। তবে এলাকার জনগণের অভিমত হল, এবারের ইউপি নির্বাচনে আওয়ামী লীগকে তারা ভোট দেবে না। যে কোন ভাবে হোক তারা নিজেদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করে জনগণের মনোনীত প্রার্থীদের বিজয়ী করবে।

শেষ ধাপের নির্বাচন হওয়ায় এবং নানা কারণে দেশের মিডিয়ায় প্রচারে আসার কারণে রাঙামাটি জেলার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের দিকে সারা দেশের জনগণের দৃষ্টি নিবদ্ধ রয়েছে।
—————–

সিএইচটি নিউজ ডটকম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।


Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.