রামগড়ে সেনাবাহিনী কর্তৃক দুই ইউপিডিএফ সদস্য গ্রেফতার, ইউপিডিএফ’র নিন্দা

0
0
খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি
সিএইচটিনিউজ.কম
রামগড়: খাগড়াছড়ির রামগড় উপজেলার গুইমারা থানাধীন চেংগুলি পাড়া থেকে সেনাবাহিনী কর্তৃক দুই ইউপিডিএফ সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। গ্রেফতারকৃতরা হলেন- সাজাইমং মারমা(৩৫) পিতা- অংক্যজাই মারমা, গ্রাম- হাফছড়ি, রামগড় ও মনিন্দ্র কিশোর ত্রিপুরা(৩৪) পিতা- সচিন্দ্র লাল ত্রিপুরা, গ্রাম- ধামাই পাড়া, মাটিরাঙ্গা।জানা যায়, আজ ২৫ মে শনিবার ভোররাত আনুমানিক ৩টার সময় গুইমারা ব্রিগেড থেকে একদল সেনা সদস্য চেংগুলি পাড়ায় হানা দেয়। এ সময় সেনারা ঐ পাড়ার বাসিন্দা কালা মারমার বাড়ি ঘেরাও করে ব্যাপক তল্লাশি চালায়। পরে সেখানে অবস্থানরত উক্ত দুই ইউপিডিএফ সদস্যকে গ্রেফতার করে। এ সময় সেনারা কালা মারমার ছেলে হ্লাথোয়াই মারমাকে(১৮) রশি দিয়ে বেঁধে মারধর করে। পরে দুই ইউপিডিএফ সদস্যকে নিয়ে চলে যাবার সময় সেনারা কালা মারমার স্ত্রী আক্রা মারমা ও ছেলে হ্লাথোয়াই মারমাকেও তাদের সাথে নিয়ে যায়। তবে অর্ধেক রাস্তা থেকে ইউপিডিএফ সদস্যদের রেখে আক্রা মারমা ও হ্লাথোয়াই মারমাকে ছেড়ে দিয়ে সেনারা ক্যাম্পে ফিরে যায়। গ্রেফতারকৃত দুই ইউপিডিএফ সদস্যকে অস্ত্র গুঁজে দিয়ে সকালে গুইমারা থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

ইউনাইটেড পিপল্‌স ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ) খাগড়াছড়ি জেলা ইউনিটের সমন্বয়ক প্রদীপন খীসা এক বিবৃতিতে এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে অবিলম্বে গ্রেফতারকৃতদের নিঃশক্তি মুক্তি দাবি করেছেন।

বিবৃতিতে তিনি বলেন, সম্প্রতি রামগড়-মাটিরাঙ্গা-গুইমারা-মানিকছড়ি এলাকায় ইউপিডিএফসহ সাধারণ জনগণের উপর নির্যাতনের মাত্রা বেড়ে গেছে। পাহাড়ি গ্রামে হামলা, ভয়ভীতি প্রদর্শন, নারী ধর্ষণ, বিনা কারণে গ্রেফতার, ভূমি বেদখল ইত্যাদি মানবাধিকার হরণের ঘটনা নতুন করে শুরু হয়েছে। তিনি এসব অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদে সোচ্চার হওয়ার জন্য সকল গণতান্ত্রিক ও মানবতাবাদী শক্তির প্রতি আহ্বান জানান।

 

 


Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.