শনিবার, ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৮
সংবাদ শিরোনাম

রামগড়ে পাহাড়ি গ্রামে সেটলারদের হামলা : বাড়িঘর-দোকান ভাঙচুর, আহত ১

রামগড় : খাগড়াছড়ি জেলাধীন রামগড় উপজেলায় পাহাড়িদের তিনটি গ্রামে সেটলার বাঙালিরা হামলা চালিয়ে কমপক্ষে বাড়িঘর ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠার ভাঙচুর চালিয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। এতে কমপক্ষে ১১টি বাড়ি ও ২টি দোকান ভাঙচুর ও ১জন আহত হয়েছেন।

গতকাল শুক্রবার (৩০ জুন) রাত সাড়ে ১০টায় রামগড় সদর ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের সোনাইআগা, তালতলী ও ব্রতচন্দ্র কার্বারী পাড়ায় এই হামলার ঘটনা ঘটে।

এলাকাবাসীর সূত্রে জানা যায়, গতকাল (শুক্রবার) রাত সাড়ে ১০টার দিকে রামগড় সদর ইউনিয়নের কালাডেবা এলাকা থেকে ৫ নং ওয়ার্ডের মেম্বার মো: হোসাইন, ৭নং ওয়ার্ডে সাবেক পৌর কমিশনার মো: জসীম, ৪নং ওয়ার্ডে সাবেক ইউপি সদস্য মো: নূরনবী ও মো: মিন্টু (কোম্পানী) নেতৃত্বে কোন কারণ ছাড়াই হঠাৎ করে তিন শতাধিক সেটলার বাঙালি সংঘবদ্ধ হয়ে ‘আল্লাহু আকবর, পাহাড়িদের ঘর জ্বালিয়ে দাও, পুড়িয়ে দাও, ধর-মার-কাট’ ইত্যাদি উস্কানিমূলক শ্লোগান দিয়ে প্রথমে সোনাইআগা পাহাড়িদের গ্রামে প্রবেশ করে পাহাড়িদের দুইটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান (দোকান) ভাঙচুর চালায়। এরপর হামলাকারী সেটলাররা তালতলী গ্রামে হামলা ও ভাঙচুর করে। এসময় তৈচালা বিজিবি ক্যাম্প থেকে বিজিবি সদস্যরা ঘটনাস্থলে পৌঁছলে তাদের উপস্থিতিতে সেটলাররা আবারো পার্শ্ববর্তী গ্রাম ব্রত চন্দ্র কার্বারী পাড়ায় হামলা ও ঘরবাড়িতে ভাংচুর চালায়।রামগড় হামলা-৩

এসময় সেটলারদের আক্রমনের মুখে পাহাড়িরা আতঙ্কিত হয়ে বাড়িঘর ছেড়ে পার্শ্ববর্তী বিভিন্ন স্থানে নিরাপদ আশ্রয় নেয়। বাড়ি থেকে পালিয়ে যেতে না পারায় সোনাইআগা গ্রামের পেতাং ত্রিপুরার ছেলে খাম্প্র ত্রিপুরা (২৩)-কে নিজ বাড়ি থেকে বের করে মারধর করে সেটলাররা। এতে তিনি আহত হন।

যাাদের বাড়িঘর ভাংচুর করা হয়েছে তারা হলেন- ব্রত চন্দ্র কার্বারী পাড়ার জাম্বু ত্রিপুরা, কাশি রঞ্জন ত্রিপুরা, তরণী ত্রিপুরা, জামিরায় ত্রিপুরা, উত্তরাম ত্রিপুরা, উরাচান ত্রিপুরা, গিতু কুমার ত্রিপুরা, সুমন ত্রিপুরা; তালতলি গ্রামের পেতাং ত্রিপুরা, রিই প্রু মারমা ও সুমন মারমা। এছাড়া সোনাইআগা গ্রামের কালা মারমা ও ক্যউজাই মারমার দোকান ভাংচুর করে হামলাকারী সেটলাররা।

হামলার পর ফিরে যাওয়ার পথে সেটলাররা কালাডেবা মারমা গ্রামে প্রবেশ করে উক্ত হামলার ঘটনা প্রকাশ করা হলে তাদের গ্রামেও হামলা ও অগ্নিসংযোগ করা হবে বলে হুমকি দেয়।

এদিকে আজ শনিবার (১ জুলাই ২০১৭) সকালে প্রাপ্ত খবরে জানা গেছে হামলার ঘটনা ফেসবুকে প্রচারের অভিযোগ করে সকাল পৌনে ১০টার দিকে সেটলাররা কালাডেবা এলাকায় পাত্তুরুংসা ত্রিপুরা (১৫) নামে নবম শ্রেণীর এক ছাত্রকে আটকে রেখেছে।তিনি গর্জনতলী গ্রামের বাসিন্দা।

সকাল পৌনে ১১টায় পাওয়া খবরে জানা গেছে, সেটলার বাঙালিরা সংঘবদ্ধ হয়ে আবারো সোনাইআগা পাহাড়ি গ্রামের দিকে প্রবেশ করছে।

বর্তমানে এলাকায় পাহাড়িদের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে।
—————–
সিএইচটি নিউজ ডটকম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।


Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.