রামগড় হামলায় ক্ষতিগ্রস্তদের পুনর্বাসনে প্রধানমন্ত্রীর কাছে ৫ দফার সুপারিশ করেছে ত্রাণ সংগ্রহ ও বিতরণ কমিটি

0
0

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি, সিএইচটিনিউজ.কম

গত ১৭ এপ্রিল ২০১১ রামগড় উপজেলার হাফছড়ি ইউনিয়নে সেটলার হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারসমূহকে স্থায়ী পুনর্বাসনের লক্ষে প্রধানমন্ত্রী বরাবরে ৫ দফা সুপারিশ করেছে খাগড়াছড়ি ত্রাণ সংগ্রহ ও বিতরণ কমিটি

গতকাল ২ মে, সোমবার খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে ত্রাণ সংগ্রহ ও বিতরণ কমিটির আহ্বায়ক বিনোদ বিহারী চাকমার স্বাক্ষরিত প্রধানমন্ত্রীর বরাবরে পাঠানো এক চিঠিতে তারা এ সুপারিশ করেনসুপারিশগুলো হলো : ১. ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার সমূহকে গৃহ নির্মাণের জন্য পর্যাপ্ত পরিমাণ ঢেউটিনসহ প্রয়োজনীয় উপকরণ সরবরাহ করা, ২. প্রতিটি পরিবারকে তির পরিমাণ যাছাই করে এককালী অর্থ সাহায্য দেয়া, ৩. ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার সমূহকে চাল, ডাল, তৈল, লবণ ইত্যাদি কমপক্ষে এক বছর বিনামূল্যে রেশন হিসাবে সরবরাহ করা, ৪. ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার সমূহের চাষাবাদে সহায়তার জন্য ধান ও আদা হলুদের বীজ বিনামূল্যে বিতরণ করা, ৫. ভূমি কমিশন কর্তর্ক ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত কোন প্রকার ভূমি দখল হতে সবাইকে বিরত রাখা

প্রধামন্ত্রীর বরাবরে পাঠানো চিঠিতে বলা হয়, ত্রাণ বিতরণকালে ক্ষতিগ্রস্ত লোকজনের কাছ থেকে জানা যায় যে, রামগড় হামলা অতি সহজে রোধ করা যেতো প্রশাসন উক্ত ভূমি দখল এবং ঐ ভুমি দখলকে কেন্দ্র করে সাম্প্রদায়িক উত্তেজনা সম্পর্কে সম্পূর্ণভাবে জ্ঞাত ছিল ইতিপূর্বে প্রশাসন উভয় পকে তলব করে এবং সতর্ক করে দেন বলে জানা যায়৷ কিন্তু পরবর্তীতে তত্ত্বাবধান না থাকার কারণে এই ঘটনা সংঘটিত হয়েছে

উক্ত চিঠিতে আরো বলা হয়, ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে এ যাবত দেয়া সাহায্যের পরিমাণ তাদের বেঁচে থাকার পক্ষে নিতান্ত অপ্রতুল সরকারিভাবে দেয়া সাহায্য ক্ষতিগ্রস্ত লোকজনের মাঝে ঠিকমত পৌঁছাচ্ছে না জরুরী ভিত্তিতে গৃহনির্মাণ সহায়তা দেয়া না হলে উক্ত ক্ষতিগ্রস্ত লোকজনের পক্ষে বেঁচে থাকা সম্ভব হবে না৷ সরকারকে এই বিষয়ে অতিসত্ত্বর জরুরী পদপে নিতে হবে

অপরদিকে গত ১ মে রবিবার ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেছে বাংলাদেশ ইন্ডিজিনিয়াস বুড্ডিস্ট ওয়েলফেয়ার সোসাইটি সংগঠনটির সভাপতি ভদন্ত উত্তীনানন্দ ভিক্ষু, সাংগঠনিক সম্পাদক ভদন্ত ধর্মরত্ন ভিক্ষু, ওবাসা মহাথেরো সহ ১৯ জন ভিক্ষু শ্রমণ ও সমাজকর্মী চঞ্চুমণি চাকমা সহ বেশ কয়েকজন স্বেচ্ছাসেবক ত্রাণ বিতরণ কাজে অংশগ্রহণ করেনক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে চাল সহ অন্যান্য ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়৷ পরে তারা এ ক্ষতিগ্রস্ত বৌদ্ধমন্দিরসহ ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করেন

সংঠনটির দপ্তর সম্পাদক লোকমিত্র ভিক্ষু স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ত্রাণ বিতরণকালে ক্ষতিগ্রস্ত আতঙ্কিত পাহাড়িরা তাদের নিরাপত্তাহীনতার কথা উল্লেখ করে ঔষধপত্র এবং স্কুল পড়ুয়া প্রায় ১৪০ জন ছাত্র-ছাত্রীর বইপত্র, ড্রেস ও প্রয়োজনীয় শিক্ষা সামগ্রী সরবরাহের জন্য সরকার, বিভিন্ন দাতব্য সংস্থা ও সুধী মহলের সহযোগিতা কামনা করেছেন

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়, এখনো দেবপ্রিয় চাকমার ছেলে আশীষ চাকমাসহ (১৯) অন্তত দুজন নিঁখোজ রয়েছে

সেটলাররা কেবল নিরীহ মানুষের ওপর হামলা, অগ্নিসংযোগ, লুটপাট করে ক্ষান্ত হয়নি, তারা বৌদ্ধমন্দিরেও অগ্নিসংযোগ করে ভষ্মিভূত করার কথা ক্ষতিগ্রস্ত পাহাড়িরা জানিয়েছেন বলে প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়

——————–


Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.