শিক্ষার মান উন্নয়ন ও সামাজিক অবক্ষয় রোধ কল্পে

লক্ষীছড়িতে তিন সংগঠনের যৌথ কর্মী সম্মেলন

0
2

সিএইচটি নিউজ ডটকম
Laxmichari
লক্ষীছড়ি : খাগড়াছড়ি জেলার লক্ষীছড়িতে শিক্ষার মান উন্নয়ন ও সামাজিক অবক্ষয় রোধ কল্পে আজ শনিবার(১৪ নভেম্বর) সকাল ১০টায় তিন সংগঠনের যৌথ কর্মী সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। গণতান্ত্রিক যুব ফোরাম, হিল উইমেন্স ফেডারেশন ও পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ (পিসিপির) এর যৌথ উদ্যোগে উপজেলা সদরের হেডম্যান এসোসিয়েশন কার্যালয়ে এই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

সম্মেলনে উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের দুই শতাধিক ছাত্র-ছাত্রী, উপজেলার বিভিন্ন ইউয়িনের জনপ্রতিনিধিগণ, সুশীল সমাজের বিভিন্ন শ্রেণীর লোকজন অংশগ্রহণ করেন।

গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের লক্ষীছড়ি উপজেলা আহবায়ক উচাই প্রু মারমার সভাপতিত্বে ও দুল্যাতলী ইউনিয়ন শাখার সাধারণ সম্পাদক ত্রিলন চাকমা(দয়া)-এর সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন লক্ষীছড়ি উপজেলা চেয়ারম্যান সুপার জ্যোতি চাকমা, বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের খাগড়াছড়ি জেলার আহবায়ক জিকো ত্রিপুরা, সদর ইউপি চেয়ারম্যান রাজেন্দ্র চাকমা, জাতিসত্তা মুক্তি সংগ্রাম পরিষদের কেন্দ্রীয় সদস্য বিনোদ মুণ্ডা, খাগড়াছড়ি জেলার পিসিপি সাধারণ সম্পাদক সুনীল ত্রিপুরা, হিল ইউমেন ফেডারেশনের খাগড়াছড়ি জেলা দপ্তর সম্পাদক দ্বিতীয়া চাকমা।

এছাড়া আরো উপস্থিত ছিলেন বার্মাছড়ি ইউপি’র সাবেক চেয়ারম্যান স্বপন চাকমা, লক্ষীছড়ি কলেজের অধ্যক্ষা ডথৈপ্রু মার্মা(ডলি), বিশিষ্ট মুরুব্বী মনিভদ্র চাকমা, লক্ষ্মীছিড় উপজেলা কার্বারী এসোসিয়েশনের সভাপতি অসীম চাকমা প্রমুখ।

লক্ষীছড়ি উপজেলা চেয়ারম্যান সুপার জ্যোতি চাকমা অয়োজক তিন সংগঠনকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, ছাত্র সমাজের অবক্ষয় রোধে সর্বপ্রথম প্রয়োজন প্রাথমিক শিক্ষা ব্যবস্থাকে উন্নত করা। কিন্তু বর্তমানে জেলা পরিষদ যেভাবে অনিয়মের মাধ্যমে অযোগ্য লোককে শিক্ষক হিসাবে নিয়োগ দিচ্ছে তাতে শিক্ষার পরিবেশ ভালো হওয়ার বদলে খারাপের দিকে ধাবিত হচ্ছে, তাই আমাদের সকলকে এই ব্যাপারে সচেতন থাকতে হবে। জেলা পরিষদ যদি উপজেলা ভিত্তিক উপজেলার স্থানীয় শিক্ষক নিয়োগ না দেয় তাহলে প্রয়োজনে হাইকোর্ট পর্যন্ত বিষয়টি নিয়ে যাওয়া হবে বলে তিনি জানান। প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বেশিরভাগ শিক্ষকে শাস্তিমূলক বদলী হিসেবে লক্ষ্মীছড়ি উপজেলায় পোস্টিং দেওয়া হয় বলেও তিনি অভিযোগ করেন। এছাড়া তিনি বর্তমান জেলা পরিষদকে যখন যে সরকার ক্ষমতায় থাকে তখন সেই দলের নেতা কর্মীদের পূনর্বাসনের কারখানা বলে উল্লেখ করেন।

জিকো ত্রিপুরা বলেন, আমাদের বর্তমান প্রজন্ম বিভিন্ন অপ-সংষ্কৃতির আগ্রাসনে প্রভাবিত হয়ে বিপথে পরিচালিত হচ্ছে। বর্তমান প্রজন্মকে এই বিপদগামীতার হাত হতে বেরিয়ে আসার লক্ষ্যে পিসিপিকে এগিয়ে আসতে হবে এবং পিসিপির নব্বই দশকের রাজপথ কাঁপানো সোনালী অধ্যায়কে মুল মন্ত্র করে লড়াই সংগ্রামে এগিয়ে যেতে হবে।

বক্তারা এই ধরনের অংশগ্রহন মুলক কর্মশালা বর্তমান ছাত্র-যুব সমাজের নৈতিক অবক্ষয় রোধে কার্যকর ভুমিকা রাখতে পারে বলে মতামত ব্যক্ত করেন।

কর্মী সম্মেলনে হিল উইমেন্স ফেডারেশনের লক্ষ্মীছড়ি উপজেলা নেত্রী রেশমী মারমা, পিসিপি’র লক্ষ্মীছড়ি উপজেলা শাখার সভাপতি ঊষাঅং মারমা, পিসিপি’র সাবেক নেতা আপ্রুসি মারমাসহ তিন সংগঠনের উপজেলার প্রতিনিধিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
———————

সিএইচটিনিউজ.কম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।


Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.