লামার ফাঁসিয়াখালীতে অষ্টম শ্রেণীর এক পাহাড়ি ছাত্রীকে অপহরণের অভিযোগ

0
0

বান্দরবান প্রতিনিধি: লামা উপজেলায় ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়ন সাপের ঘাটা গ্রামে হারাগাজা নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী হ্লাছাই মার্মা (১৩), পিতা-অংছা প্রু মার্মা নামে এক পাহাড়ি ছাত্রীকে অপহরণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। অপহরণের ৮ দিন অতিবাহিত হলেও এখনো উদ্ধার হয়নি।

# অপহৃত হ্লাছাই মারমা
# অপহৃত হ্লাছাই মারমা

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, গত ২৪ মে  সন্ধ্যা ৭টায় দিকে প্রতিদিনের মতদাদির বাড়িতে ঘুমাতে যায়। মেয়েটির দাদির বাড়ি নিজ বাড়ি থেকে একটু দূরে। কিন্তু রাত হলেও মেয়েটি দাদির বাড়িতে পৌঁছেনি। মেয়েটির পরিবার মনে করেছিল সে হয়ত দাদির বাড়িতে ঘুমাছে। আর তার দাদি মনে করেছিল সে তার বাবার বাড়িতে ঘুমিয়েছে। কিন্তু সকালে মেয়েটি বাড়িতে ফিরে না আসলে শুরু হয় খোঁজ। কিন্তু অনেক খোঁজার পরেও সন্ধান মেলেনি।

মেয়ের কোন খুঁজ না পাওয়ায়, এ ঘটনায় অপহৃত হ্লাছাই মার্মার পিতা অংছাপ্রু মার্মা মেয়ের অপহরণের ব্যাপারে প্রথমে স্থানীয় চেয়ারম্যান এর কাছে আশ্রয় নেয়। স্থানীয়ভাবে উদ্ধারের আশ্বস্তও হয়। এর ৩ দিন অতিবাহিত হয়ে যাওয়ার পরও মেয়েটি উদ্ধার না হওয়ায় নিরুপায় হয়ে গত ২৭ মে লামা থানায় অপহৃত মেয়েটির পিতা অংছা প্রু মার্মা মামলা দায়ের করেন। লামা থানার মামলা নং- ১১, তারিখ- ২৭ মে ২০১৬।

আসামীরা হলেন, ছৈয়দ আহাম্মদের ছেলে মোঃ মিজান (২১) এর নেতৃত্বে মনছুর আলম (২২), পিতা- নুর মোহাম্মদ, মোঃ জসিম (১৯), পিতা- করন আলী, মোঃ মঞ্জুর (১৮), পিতা- শফিক কালু, মোঃ মিজান (২০), পিতা- ফয়েজ আহাম্মদ ও মোঃ হাছন (২৫), পিতা- মকবুল হোসেন।

অপহৃত হ্লাছাই মার্মার পিতা অংছাপ্রু মার্মা কান্নাজড়িত কন্ঠে বলেন, আমার মেয়ে বেঁচে আছে কিনা মারা গেছে জানি না। আমি জমি চাষ করে অনেক কষ্টে মেয়ের লেখাপড়া খরচ ও সংসারের খরচ বহন করে যাচ্ছি। আমার মেয়ে হারগাজা নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ৮ম শ্রেণী ছাত্রী। তাঁর জন্ম তারিখ ১৬/১১/২০০৩ ইং।

মেয়েটির বাবা আরো বলেন, গতকাল ৩০ মে বেলা দুইটার দিকে তার বড় মেয়ে নদী থেকে পানি আনতে যাওয়ার সময় আসামীদের কয়েকজন এই বলে হুমকি দেয় যে, ‘কোন রকম ঝামেলা করলে তোমার ছোটবোনের মত তোমাকেও তুলে নিয়ে যাব আর তোদের নামে উল্টো মামলা করবো’। আমার মেয়েকে যারা অপহরণ করেছে তারা রাবার প্লটের শ্রমিক বলে তিনি জানান।

এ ব্যাপারে লামা থানার মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক (এস আই) হারুন অর রশিদ এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি এ প্রতিবেদককে বলেন, মেয়েটিকে উদ্ধারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। আমি আশাবাদী শিঘ্রই তাকে উদ্ধার করা যাবে।
—————-

সিএইচটিনিউজ.কম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।


Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.