শনিবার, ১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯
সংবাদ শিরোনাম

সারাদেশে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে গণতান্ত্রিক পরিবেশ নিশ্চিতের দাবিতে ঢাবিতে পিসিপি’র বিক্ষোভ

ঢাকা: পার্বত্য চট্টগ্রামসহ সারাদেশে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে গণতান্ত্রিক পরিবেশ নিশ্চিত করা ও ডাকসু নির্বাচনে ভোটকেন্দ্র ‘হল’ থেকে সরিয়ে একাডেমিক ভবনে স্থানান্তরের দাবিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ (পিসিপি)।

আজ বৃহষ্পতিবার (৭ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১১ টায় বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের মধুর ক্যান্টিন থেকে এই বিক্ষোভ মিছিলটি শুরু হয়ে কলা ভবন হয়ে কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার ভবন ঘুরে অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে সমাবেশে মিলিত হয়।

পিসিপি’র কেন্দ্রীয় সভাপতি বিপুল চাকমার সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন পিসিপির নেতা রিপন চাকমা। এছাড়া সংহতি জানিয়ে বক্তব্য রাখেন

ছাত্র গণমঞ্চের ঢাবি শাখার সংগঠক আফনান আক্তার ও বিপ্লবী ছাত্র যুব আন্দোলনের সভাপতি আতিফ অনিক এবং সংহতি জানিয়ে উপস্থিত ছিলেন সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের সাধারণ সম্পাদক রাশেদ শাহরিয়ার। সমাবেশ পরিচালনা করেন পিসিপির সাধারণ সম্পাদক সুনয়ন চাকমা।

বক্তারা বলেন, ডাকসু নির্বাচনের পূর্বে ক্যাম্পাসে ক্রিয়াশীল সকল ছাত্র সংগঠনের পারস্পারিক সহাবস্থান ও সমান সুযোগ নিশ্চিত না করে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয়। প্রশাসন বিভিন্ন ছাত্র সংগঠনের সাথে মতবিনিময় করলেও সকল প্রগতিশীল সংগঠনের যৌক্তিক দাবি-দাওয়া তোয়াক্কা না করে সরকার মদদপুষ্ট বিশেষ ছাত্র সংগঠনকে নির্বাচনে যেনতেনভাবে জিতিয়ে আনার প্রচেষ্টা করে যাচ্ছে। ক্যাম্পাসের হলগুলো সরকার সমর্থিত ছাত্র সংগঠন প্রশাসনিক ক্ষমতা অপব্যবহার করে একচ্ছত্র দখলে নিয়ে ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে। এমতাবস্থায় হলগুলোতে সুষ্ঠুভাবে ভোটগ্রহণ কোনভাবে সম্ভব নয়।

স্বৈরচারী সরকারের আমলেও বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সংসদগুলোতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে জানিয়ে বক্তারা বলেন, নব্বইয়ের গণঅভ্যুত্থানের পর তথাকথিত গণতান্ত্রিক সরকার ব্যবস্থা কায়েম হলেও তারা বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্র সংসদ নির্বাচনকে স্থগিত করে দেয়। ফলে, বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ না থাকায় বিভিন্ন সময়ে ছাত্রদের দাবি-দাওয়া, আশা আকাঙ্ক্ষার প্রতিফলন ঘটেনি। প্রশাসন বৈদেশিক কর্পোরেট প্রতিষ্ঠানগুলোর ওপর নির্ভরশীল হওয়ায় দেশে জাতীয় নেতৃত্ব ও বিবেকবান নাগরিক তৈরির বদৌলতে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো পরিণত হয়েছে মেরুদন্ডহীন লেজুড় দাস তৈরির কারখানায়।

বক্তারা অভিযোগ করেন, পার্বত্য চট্গ্রামসহ সারাদেশে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে গণতান্ত্রিক শিক্ষা পরিবেশকে ভূলন্ঠিত করা হচ্ছে। পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ ২০১৭ সালে নান্যাচর কলেজে নবীন বরণ করলে, উক্ত নবীন বরণ অনুষ্ঠানকে রাষ্ট্রবিরোধী আখ্যায়িত করে কলেজ কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে শিক্ষা মন্ত্রনালয় থেকে সার্কুলার জারি করা হয়। অথচ, সরকার সমর্থিত ছাত্র সংগঠনের সভা সমাবেশে এসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে বাধ্যতামূলকভাবে ছাত্র-ছাত্রীদের নিয়ে যাওয়া হয়।

বক্তারা অবিলম্বে পার্বত্য চট্টগ্রামসহ সারাদেশে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে গণতান্ত্রিক পরিবেশ নিশ্চিত করা এবং ডাকসু নির্বাচন সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য করতে ভোটকেন্দ্র ‘হল’ থেকে সরিয়ে একাডেমিক ভবনে স্থানান্তরের জোর দাবি জানান।
——————–
সিএইচটি নিউজ ডটকম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।


Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.