শনিবার, ১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯
সংবাদ শিরোনাম

সেনাবাহিনী কর্তৃক বান্দরবানে স্কুল ছাত্র হত্যার প্রতিবাদে চট্টগ্রামে বিক্ষোভ

চট্টগ্রাম : বান্দরবানের রোয়াংছড়িতে সেনাবাহিনী কর্তৃক ৭ম শ্রেণীর ছাত্র ক্যসিংমং মারমাকে গুলি করে হত্যার প্রতিবাদে ও হত্যাকাণ্ডে জড়িত লেফটেন্যান্ট ফারহান সহ সেনা সদস্যদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে বুধবার (১৪ নভেম্বর ২০১৮) বিকাল ৩ টায় চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ (পিসিপি) ও গণতান্ত্রিক যুব ফোরাম চট্টগ্রাম মহানগর শাখা।

বিক্ষোভ মিছিলটি চট্টগ্রাম ডিসি হিল থেকে শুরু হয়ে চেরাগি পাহাড় মোড় ঘুরে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব এসে এক প্রতিবাদ সমাবেশের মধ্য দিয়ে শেষ হয়।

গণতান্ত্রিক যুব ফোরামে চট্টগ্রাম মহানগর শাখার সহ-সভাপতি শুভ চাক এর সভাপতিত্বে ও পিসিপি চট্টগ্রাম মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক অমিত চাকমার সঞ্চালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, পিসিপি কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক অমল ত্রিপুরা, চবি শাখার সহ-তথ্য প্রচার সম্পাদক ত্রিরত্ন চাকমা, হিল উইমেন্স ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক মন্টি চাকমা ও ইউনাইটেড ওয়ার্কার্স ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট-এর চট্টগ্রাম মহানগর শাখার সভাপতি বিজয় চাকমা প্রমুখ।

বক্তারা অভিযোগ করে বলেন, অপারেশন উত্তরণের নামে পার্বত্য চট্টগ্রামে অঘোষিতভাবে সেনা শাসন জারি থাকায় শিশু-ছাত্র-যুবক-নারী ও সাধারণ নিরীহ জনগণের উপর নিপীড়ন-নির্যাতন, নারী ধর্ষণ, ধর্মীয় অবমাননা সহ বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড সংঘটিত করা এখন সেনাবাহিনীর নিত্যনৈমিত্তিক কার্যে পরিণত হয়েছে। তারই ধারাবাহিকতায় বান্দরবানের রোয়াংছড়িতে স্থানীয় সেনা ক্যাম্পের লে: ফরহানের নেতৃত্বে সেনা সদস্যরা অত্যন্ত সুপরিকল্পিতভাবে ৭ম শ্রেণীর ছাত্র ক্যসিংমং মারমাকে গুলি করে হত্যা করেছে। শুধু তাই নয়, সেনাবাহিনী ক্যসিংমং মারমার লাশ সামাজিক ও ধর্মীয় রীতি অনুযায়ী সৎকার করতে বাধা প্রদান করেএবং দাহ এর পরিবর্তে জোরপূর্বকভাবে লাশ কবর দিতে বাধ্য করে।

তারা আরো বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামের এযাবত কাল সংঘটিত কোন ঘটনাই সত্য ও বস্তুনিষ্ঠভাবে মিডিয়ায় প্রকাশ করা হয়নি। একইভাবে উক্ত হত্যাকাণ্ডের ঘটনাকেও ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে সেনাবাহিনী মিথ্যা ও বানোয়াট সংবাদ দিয়ে বিভিন্ন মিডিয়ায় ফলাও করে প্রচার চালাচ্ছে।

প্রতিবাদ সমাবেশ থেকে বক্তারা ক্যসিংমং মারমা হত্যা ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তসহ হত্যাকারি সেনা কর্মকর্তা লে: ফরহান ও জড়িত সেনাসদস্যদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।

উল্লেখ্য, সোমবার (১২ নভেম্বর ২০১৮) দিবাগত রাত ৮ টার দিকে রোয়াংছড়ি উচ্চ বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণীর ছাত্র ক্যসিংমং মারমা পার্শ্ববতী দোকানে যাওয়ার পথে ঘেরাউ ভিতর পাড়ায় রোয়াংছড়ি ক্যাম্পের সেনা সদস্যদের গুলিতে গুরুতর আহত হন।  আহত অবস্থায় তাকে উপজেলা স্বাস্থ কমপ্লেক্সে নেওয়ার পর অবস্থার অবনতি হলে চট্টগ্রাম মেডিকেলে নেওয়ার পথে রাত ১১.৪০ মিনিটে তিনি মৃত্যু বরণ করেন।

———————-

সিএইচটি নিউজ ডটকম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।

 

 


Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.