শনিবার, ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৮
সংবাদ শিরোনাম

সেনা কর্তৃক সুমন্ত ও মেনন চাকমাকে আটকের নিন্দা ও প্রতিবাদ পিসিপি’র

খাগড়াছড়ি : বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ (পিসিপি)-এর খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সভাপতি সোনায়ন চাকমা ও সাধারণ সম্পাদক অমল ত্রিপুরা আজ শুক্রবার সংবাদ মাধ্যমে প্রদত্ত বিবৃতিতে সেনা কর্তৃক পিসিপি খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সাংস্কৃতিক সম্পাদক সুমন্ত চাকমা ও মহালছড়ি উপজেলার শাখার সভাপতি মেনন চাকমাকে আটকের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

bibritiপিসিপি নেতৃদ্বয় অভিযোগ করে বলেন, গতকাল দিবাগত রাত ২টার সময় মহালছড়ি জোনের সেনারা পিসিপি নেতা সুমন্ত চাকমা ও মেনন চাকমাকে মহালছড়ি ভুয়াটেক গ্রামের সুমন্ত চাকমার নিজ বাড়ি থেকে  ঘুম থেকে তুলে বাড়িতে ব্যাপক মারধর ও আটক করে জোনে নিয়ে যায়। এছাড়া সেনারা সুমন্ত চাকমার ছোট ভাই ও বোনের জামাইকেও ব্যাপক মারধর করে।

নেতৃদ্বয় বলেন, পার্বত্য চট্টগামে কায়েমি সেনা চক্র দীর্ঘ কাল ধরে অব্যাহতভাবে দমন-পীড়ন চলছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয় দমনমূলক ‘১১দফা নির্দেশনা’ জারি করে দমন-পীড়ন আরো প্রসারিত করেছে এবং এই চক্রটিকে আরো উস্কে দিয়েছে। ফলে এই কায়েমি স্বার্থবাদী সেনাচক্র দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী এইচএসসি পরীক্ষার্থী রমেল চাকমাকে বর্বরভাবে পিটিয়ে খুন করার স্পর্ধা দেখিয়েছে। এই হত্যাকাণ্ডের ফলে মানবিকও গণতান্ত্রিক সমাজ ব্যাপক সোচ্চার হয়েছে। এত নিন্দার পরও এই কায়েমি স্বার্থান্বেষী সেনা চক্র ক্ষান্ত হচ্ছেনা, অব্যাহতভাবে ধরপাকড়-নিপীড়ন, ঘেরাও তল্লাশি চালিয়ে যাচ্ছে। কয়েকদিন আগেও পানছড়িতে সেনা সদস্যরা পিসিপি নেতা জুয়েল চাকমা এবং নান্যাচরে রিপন আলোচাকমাকে আটক করেছিল। সর্বশেষ গতকাল গভীর রাতে সুমন্ত ও মেনন চাকমাকে মারধর ও আটক করে তাদের ঘৃণ্য চরিত্র আবারো উম্মোচিত করেছে।

নেতৃদ্বয় আরো বলেন, কায়েমী স্বার্থবাদী সেনা চক্র নাগরিক অধিকারকে চরমভাবে লঙ্ঘন করে চলেছে। তারা তাদের খেয়াল খুশী মতো আটক- নির্যাতন চালিয়ে সংবিধানে স্বীকৃত নাগরিক অধিকার পদদলিত করে যাচ্ছে। নেতৃদ্বয় আরো বলেন, সেনা চক্রটি যত্র-তত্র হয়রানিমূলক টহল-তল্লাশি জিজ্ঞাসাবাদ করে চলাফেরার স্বাধীনতাকেও খর্ব করছে।

‘দমনপীড়ন চালিয়ে ন্যায্য আন্দোলন স্তব্ধ করা যায়না’ এ অমোঘ বিধান সেনা প্রশাসনকে স্মরণ করে দিয়ে নেতৃদ্বয় বলেন, সেনা প্রশাসন পার্বত্য চট্টগ্রামে অতীতে দমন-পীড়ন করে আন্দোলনকে দমন করতে পারেনি, বর্তমানেও পারবেনা। বরং যত দমন-পীড়ন চলবে জনগণ তত ফুঁসে উঠবে।

বিবৃতিতে নেতৃদ্বয় পিসিপি নেতা সুমন্ত চাকমা ও মেনন চাকমার আটকের তীব্র নিন্দা ও নিঃশর্ত মুক্তির দাবি জানিয়ে বলেন, মহালছড়ি জোনের সেনা কর্তৃক ন্যক্কারজনকভাবে তারা অন্যায় আটকের শিকার হয়েছেন, তাদের বিরুদ্ধে কোন গ্রেফতারি পরোয়ানা নেই এবং সম্পূর্ণ নির্দোষী। তাই এই দুই নেতাকে নিঃশর্ত মুক্তি দিতে হবে। এছাড়া নেতৃদ্বয় পার্বত্য চট্টগ্রামে দমন-পীড়ন বন্ধের জোর দাবি জানান।
—————–
সিএইচটি নিউজ ডটকম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।


Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.