বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৮
সংবাদ শিরোনাম

খাগড়াছড়িতে সংস্কার-মুখোশ কর্তৃক সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে কাউখালীতে তিন সংগঠনের বিক্ষোভ

কাউখালী(রাঙামাটি) : খাগড়াছড়ি সদরের স্বনির্ভর ও পেরাছড়ায় সংস্কারবাদী জেএসএস ও নব্য মুখোশ বাহিনীর সন্ত্রাসী কর্তৃক সশস্ত্র হামলা চালিয়ে পিসিপি নেতা তপন, এল্টন ও যুব ফোরাম নেতা পলাশ চাকমাসহ ৭ জনকে হত্যার প্রতিবাদে কাউখালীতে বিক্ষোভ মিছিল করেছে পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ, গণতান্ত্রিক যুব ফোরাম ও হিল উইমেন্স ফেডারেশন কাউখালী থানা শাখা।

আজ শনিবার (১৮ আগস্ট ২০১৮) বিকাল সাড়ে ৩টায় উপজেলার কচুখালী হতে একটি মিছিল শুরু হয়ে উপজেলা সদর ঘুরে আবার একই স্থানে এস প্রতিবাদ সমাবেশের মধ্য দিয়ে শেষ হয়।

সমাবেশে বক্তব্য রাখেন পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের রাঙামাটি জেলা সাংগঠনিক সম্পাদক কংচাই মারমা ও হিল উইমেন্স ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক মন্টি চাকমা।

বক্তারা খাগড়াছড়ির স্বনির্ভরে সন্ত্রাসী হামলার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বলেন,  সেনা-প্রশাসনের সেনা প্রশাসনের প্রত্যক্ষ সহযোগীতায় সংস্কার-মুখোশ সন্ত্রাসীরা আজ পিসিপি-যুব ফোরামের নেতা-কর্মী ও সাধারণ জনগণের উপর কাপুরুষোচিত হামলা চালিয়ে ৭ জনকে হত্যা করেছে। সরকার এই সংস্কার-মুখোশ সন্ত্রাসীদের লেলিয়ে দিয়ে পার্বত্য চট্টগ্রামে খুন-অপহরণসহ সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড চালিয়ে অরাজক পরিস্থিতি সৃষ্টি করেছে।

সমাবেশ থেকে বক্তারা সংস্কার-মুখোশ সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে এলাকায় এলাকায় গণপ্রতিরোধ গড়ে তোলার জন্য জনগণের প্রতি আহ্বান জানান।

তারা অবিলম্বে হামলাকারী সংস্কার-মুখোশ সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার ও তাদের সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড বন্ধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের দাবি জানান।

উল্লেখ্য, আজ সকাল ৮টার দিকে সংস্কার-মুখোশদের একটি সশস্ত্র সন্ত্রাসী দল স্বনির্ভরে এতে অতর্কিতে পিসিপি নেতা-কর্মী ও সাধারণ জনগণের উপর অতর্কিতে এলোপাতাড়ি ব্রাশ ফায়ার করে। এতে পিসিপি-যুব ফোরামের তিন নেতাসহ ৬ জন নিহত হয়। এছাড়া বেশ কয়েকজন আহত হয়।

এদিকে উক্ত ঘটনার কয়েক ঘন্টা পর মনিগ্রাম থেকে বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসীর ব্যানারে হাজার হাজার জনতা মিছিল নিয়ে স্বনির্ভরের দিকে আসার পথে পেরাছড়া ব্রিজের কাছে পৌঁছলে সন্ত্রাসীরা আবারো মিছিলকারী জনতার উপর হামলা চালায়। এতে নারীসহ ৪ জন আহত হয়। আহতদের মধ্য থেকে পরে হাসপাতালে সন কুমার চাকমা নামে ৭০ বছরের এক বৃদ্ধ মারা যায়।
——————-
সিএইচটি নিউজ ডটকম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।


Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.