অব্যাহত ধর্ষণ ও চিম্বুক পাহাড়ে জমি দখলের প্রতিবাদে নান্যাচরে তিন নারী সংগঠনের সমাবেশ

0
86

নান্যাচর প্রতিনিধি ।। ‘পার্বত্য চট্টগ্রামে অব্যাহতভাবে নারী ধর্ষণ কেন, প্রধানমন্ত্রীর জবাব চাই’ শ্লোগানে লংগদুতে স্কুলছাত্রী ধর্ষণকারী প্রধান শিক্ষক আব্দুর রহিমের সর্বোচ্চ শাস্তি ও বান্দরবানের চিম্বুক পাহাড়ে ম্রোদের জমি বেদখলের প্রতিবাদে রাঙামাটির নান্যাচরে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে তিন নারী সংগঠন ঘিলাছড়ি নারী নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটি, পার্বত্য চট্টগ্রাম নারী সংঘ ও হিল উইমেন্স ফেডারেশন।

আজ মঙ্গলবার (১৩ অক্টোবর) সকালে অনুষ্ঠিত সমাবেশে নারী সংঘের নান্যাচর উপজেলা সভাপতি এলিজা চাকমা সভাপতিত্বে ও সাবেক ইউপি সদস্য কল্পনা চাকমার সঞ্চালনায বক্তব্য রাখেন, ঘিলাছড়ি নারী নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটি নেত্রী টেলি চাকমা, হিল উইমেন্স ফেডারেশন নেত্রী রিতা চাকমা, প্রশিখা চাকমা প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামসহ সারাদেশে নারী ধর্ষণের ঘটনা অব্যাহত রয়েছে। প্রতিনিয়ত এ ধরনের ঘটনা ঘটার প্রধান কারণ হচ্ছে বিচারহীনতা। আর পার্বত্য চট্টগ্রামে এই বিচারহীনতা সবচেয়ে বেশি। এখানে এ যাবত যতগুলো পাহাড়ি নারী ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে তার কোনটিরই সুষ্ঠু বিচার ও দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হয়নি। যার কারণে এখানে স্কুলছাত্রী থেকে শুরু করে প্রতিবন্ধী, মানসিক ভারসাম্যহীন নারীরাও ধর্ষণের হাত থেকে রেহাই পাচ্ছেন না।

বক্তারা আরো বলেন, বান্দরবানের চিম্বুক পাহাড়ে পাঁচতারকা হোটেলসহ বিলাসবহুল পর্যটন স্থাপনা নির্মাণের নামে ম্রো জাতিসত্তাদের শত শত একর জমি জবরদখল করে তাদেরকে উচ্ছেদ করা হচ্ছে। অনতিবিলম্বে ভূমি বেদখল বন্ধ করে ম্রোদের স্ব স্ব জমি ফিরিয়ে দেয়ার দাবি জানান বক্তারা।

বক্তারা লংগদুতে ছাত্রীকে ধর্ষণকারী করল্যাছড়ি আর এস উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুর রহিম ও খাগড়াছড়িতে প্রতিবন্ধী নারীকে ধর্ষণকারীদের ফাঁসি, পার্বত্য চট্টগ্রামে এ যাবত সংঘটিত নারী ধর্ষণ-হত্যার বিচার, নারী নির্যাতন বন্ধ ও নারীর নিরাপত্তা নিশ্চিত করার দাবি জানান।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.