স্মরণ :

ইউপিডিএফ নেতা মিঠুন চাকমার ১ম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

0
0

আজ ৩ জানুয়ারি ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট(ইউপিডিএফ)-এর অন্যতম সংগঠক মিঠুন চাকমার ১ম মৃত্যুবার্ষিকী। গত বছর (২০১৮) আজকের এই দিনে সেনা সৃষ্ট নব্য মুখোশ-সংস্কারবাদী জেএসএস সন্ত্রাসীদের দ্বারা তিনি হত্যার শিকার হন।

সেদিন দুপুর ১২টার দিকে খাগড়াছড়ি জেলা আদালত থেকে একটি মামলায় হাজিরা দিয়ে শহরের অপর্ণা চৌধুরী পাড়ার নিজ বাড়িতে ফিরছিলেন মিঠুন চাকমা। বাড়িতে পৌঁছার আগে বাড়ির প্রবেশ গেটে দেখা হয় তার ছোট ভাইয়ের সাথে। সেখানে দু’ভাইয়ে পারিবারিক আলাপ করছিলেন তারা। এ সময় হঠাৎ মোটর সাইকেলযোগে সন্ত্রাসীরা এসে তাদের ঘিরে ধরে এবং সেখান থেকে মিঠুনকে অস্ত্রের মুখে তুলে নিয়ে যায়। এরপর দক্ষিণ পানখাইয়া পাড়া এলাকায় নিয়ে গিয়ে রাস্তার মাঝে সন্ত্রাসীরা তাকে মাথায় ও বুকে গুলি করে ফেলে রেখে যায় । পরে স্থানীয় লোকজন গুলিবিদ্ধ অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। নিভে যায় একটি উজ্জ্বল প্রদীপ।

মিঠুন চাকমা ইউপিডিএফ তথা পার্বত্য চট্টগ্রামের জনগণের একজন নিবেদিতপ্রাণ কর্মী ছিলেন। তার মধ্যে ছিল সমাজ পরিবর্তনের বিশাল তাড়না। তিনি শুধু পার্বত্য চট্টগ্রামের শোষিত-নিপীড়িত মানুষের কথা ভাবতেন না, ভাবতেন বিশ্বের সকল নিপীড়িত-নির্যাতিত মানুষের কথাও। মৃত্যুর বছরখানিক আগে তিনি ফিলিস্তিনের জনগণের সংগ্রামের উপর একটি লেখাও লিখেছিলেন। যেটি তিনি পুস্তিকা আকারেও বিলি করেছিলেন।

রাজনীতি কর্মকাণ্ডের পাশাপাশি তিনি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও বিভিন্ন ব্লগেও সমান সক্রিয় ছিলেন। বিভিন্ন বিষয়ে তিনি ব্লগে নিয়মিত লিখতেন। mithunchakma.blogspot.com নামে তার নিজস্ব একটি ব্লগসাইটও রয়েছে। কেউ পড়তে চাইলে এই ব্লগে ঢুকে তার লেখাগুলো পড়ে উপকৃত হতে পারেন। এছাড়া তিনি সামহোয়ারইন ব্লগসহ বিভিন্ন ব্লগে সক্রিয় থেকে নানা বিষয়ে লেখালেখির কাজে যুক্ত ছিলেন।

মিঠুন চাকমা হয়তো আজ বেঁচে নেই, কিন্তু তিনি পার্বত্য চট্টগ্রাম তথা বিশ্বের মুক্তিকামী মানুষের কাছে অমর হয়ে থাকবেন। ঘাতকরা তাকে মেরে ফেলতে পারলেও তার চিন্তা-চেতনা, তার সৃষ্টিকে মেরে ফেলতে পারেনি। তার সৃষ্টি ও চিন্তা-চেতনা থেকে আগামী প্রজন্ম যদি কিছুটা হলেও ধারণ করতে পারে তাহলেই তার মৃত্যু সার্থক হবে বলে আমরা মনে করি।

মিঠুন চাকমার মৃত্যুর এক বছর হয়ে গেলেও তার খুনিরা এখনো ধরাছোঁয়ার বাইরে রয়ে গেছে। খাগড়াছড়ি শহরে প্রকাশ্যে দাবড়িয়ে বেড়াচ্ছে প্রশাসনের নাকের ডগায়। সেনা-প্রশাসনের আশ্রয়-প্রশ্রয় পেয়ে এই সন্ত্রাসীরা এখন খুন, অপহরণ, জোরপূর্বক চাঁদাবাজিসহ জনগণের উপর নানা উপদ্রব চালিয়ে যাচ্ছে। হুমকি হয়ে দাঁড়িয়েছে জননিরাপত্তার। জনগণকেই এই সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে।

আজ ১ম মৃত্যুবার্ষিকীতে সিএইচটি নিউজ পরিবারের পক্ষ থেকে আমরা মিঠুন চাকমাকে গভীর শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করছি।
——————-
সিএইচটি নিউজ ডটকম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।


Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.