শেষ পর্ব

ইউরোপের স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চলসমূহ

0
0

।। উবাই মারমা ।।

ইউরোপের কয়েকটি দেশের স্বায়ত্তশাসিত এলাকা সম্পর্কে এখানে ধারাবাহিকভাবে যে আলোচনা করা হলো আজকে তার শেষ পর্বে রুশ ফেডারেশনের তাতারস্থান প্রজাতন্ত্র (The Republic of Tatarstan, Russian Federation)।

শেষ পর্ব:
তাতারস্থান প্রজাতন্ত্র, রুশ ফেডারেশন
রাশিয়ান ফেডারেশনের অন্তর্গত তাতারস্থানের আয়তন ৬৭,৮৩৬.২ বর্গকিলোমিটার। এর জনসংখ্যা ২০০২ সালের হিসেবে ৩৭,৭৯,২৬৫ জন। রাজধানীর নাম কাজান। সরকারী ভাষা রাশিয়ান ও তাতার।

tatarstan-mapফেডারেল রাষ্ট্রে আঞ্চলিক স্বায়ত্তশাসনকে দ্বন্দ্বাত্মক (contradictory) মনে হতে পারে, কারণ ফেডারেশনের অন্তর্ভুক্ত প্রত্যেক অঞ্চল এমনিই কিছু নির্দিষ্ট মাত্রায় স্বায়ত্তশাসন ভোগ করে থাকে। রাশিয়ান ফেডারেশন হলো পৃথিবীর মধ্যে “অসম ফেডারেশনের” (asymmetrical federation) সর্বোৎকৃষ্ট দৃষ্টান্ত। রাশিয়ান ফেডারেশন ছয় ধরনের ফেডারেল অঞ্চলের স্বীকৃতি দেয়, যেমন: প্রজাতন্ত্র, জেলা , অঞ্চল (territory), ফেডারেল গুরুত্ব-সম্পন্ন শহর, স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চল (autonomous territories) এবং স্বায়ত্তশাসিত জেলা (autonomous districts)। অসমতা তিনটি দিক স্পর্শ করে। এগুলো হলো: বিভিন্ন প্রকার সাংবিধানিক মর্যাদা, ফেডারেল ইউনিট ও ফেডারেশনের (কেন্দ্র) মধ্যে সম্পাদিত দ্বিপক্ষীয় চুক্তির মাধ্যমে প্রদত্ত বিভিন্ন প্রকার নির্বাহী ক্ষমতা এবং ভিন্ন ধরনের অভ্যন্তরীণ রাজনৈতিক ব্যবস্থা, যা অনেক সময় কেন্দ্রীয় সংবিধানের সাথে দ্বন্দ্বাত্ত্বক।

তাতারস্থান কেবল রাশিয়ান ফেডারেশনের সবচেয়ে জনবহুল স্বায়ত্তশাসিত প্রজাতন্ত্র নয়, সে এক উন্নত ধরনের বিশেষ স্বায়ত্তশাসন ভোগ করে। তাতারস্থান সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়েনের (Union of Soviet Socialist Republics, USSR) সদস্য ছিল। বর্তমান রাশিয়ান ফেডারেশন গঠিত হওয়ার আগে সোভিয়েত ইউনিয়ন ১৫টি ইউনিয়ন রিপাবলিক, ২০টি স্বায়ত্তশাসিত রিপাবলিক, ৪টি স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চল ও দশটি জাতীয় জেলায় (national district) বিভক্ত ছিল।

তাতারস্থান সে সময় একটি স্বায়ত্তশাসিত সমাজতান্ত্রিক সোভিয়েত প্রজাতন্ত্র ছিল। তাতারস্থানের প্রধান প্রধান জাতিগুলো হলো তাতার (৫১%), রাশিয়ান (৪৩.৩%) এবং চুভাস (৩.৭%)। এছাড়া মরড্ভিনিয়ান, উদমুর্ত, মারি এবং বাস্কির জাতিগোষ্ঠীর লোকও এখানে বাস করে। ধর্মীয় বিশ্বাসে তাতাররা মুসলমান, এবং তারা পুরো রাশিয়ান ফেডারেশনে দ্বিতীয় বৃহত্তম জাতি — রুশদের পরেই তাদের স্থান। তারা তুর্কি বংশোদ্ভুত, তবে পরবর্তীকালে তারা উত্তর-পূর্ব মঙ্গোলীয়ায় এবং উইঘুর অঞ্চলে বসবাস শুরু করে। ১১ শতাব্দীতে বিশাল সংখ্যক তাতার মধ্য ভলগা এলাকায় এবং তার আশেপাশের অঞ্চলগুলোতে বসতি গড়ে তোলে। বর্তমানে তাতাররা রাশিয়ান ফেডারেশন এবং বিশ্বের বিভিন্ন জায়গায় ছড়িয়ে রয়েছে। ১৯৮৯ সালের রাশিয়ার লোকগণনা অনুসারে তাদের সংখ্যা ৬৬,৪৫,৫৫৮ জন, যার মধ্যে ৫৪ লক্ষ রুশ ফেডারেশনে বসবাস করছে। ১৯৮০র দশক থেকে তাতাররা বৃহত্তর স্বায়ত্তশাসনের জন্য এবং বিশেষত তাদের অঞ্চলের তেল ও সমৃদ্ধ প্রাকৃতিক সম্পদের উপর নিজেদের নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠার জন্য সংগ্রাম করছে। অর্থনৈতিক উৎপাদনের দিক থেকে রুশ ফেডারেশনে সকল সদস্য রাষ্ট্র বা অঞ্চলের মধ্যে তাতারস্থানের অবস্থান হলো অষ্টম। এ অঞ্চলটি রুশ ফেডারেশনের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ, কারণ দেশের ৭৯% তেল, অধিকাংশ ভারী ট্রাক এবং যুদ্ধ বিমান এখানেই উৎপাদিত হয়। এছাড়া অত্যন্ত উচ্চমানের যন্ত্রপাতি তৈরির ভিতও রয়েছে এখানে।

১৯৯০ সালের ৩০ আগস্ট গরবাচেভের নেতৃত্বে সোভিয়েত রাশিয়া ভেঙে গেলে দেশটির সকল ইউনিয়ন প্রজাতন্ত্রগুলো স্বাধীনতা ঘোষণা করে। তাতারস্থানও নিজেকে “সার্বভৌম প্রজাতন্ত্র” বলে ঘোষণা দেয়। দুই বছর পর এক গণভোটে উক্ত ঘোষণার পক্ষে রায় দেয়া হয়। সোভিয়েত রাশিয়া সে সময় ব্যাপক বিকেন্দ্রীকরণ এবং বিভিন্ন অঞ্চলের সরকারগুলোর হাতে স্বায়ত্তশাসন ক্ষমতা পুনঃ প্রতিষ্ঠার দিকে ধাবিত হচ্ছিল। ১৯৯২ সালের নভেম্বরে তাতারস্থান একটি প্রজাতান্ত্রিক সংবিধান গ্রহণ করে, যা ছিল স্বাধীনতা ঘোষণার সামিল। অপরদিকে রাশিয়ার সংবিধান গৃহীত হয় ১৯৯৩ সালের ডিসেম্বরে। তাতারস্থান রাশিয়ান ফেডারেশনের বহুপক্ষীয় চুক্তিতে স্বাক্ষর করতে অস্বীকার করে। এই চুক্তিতে ফেডারেল রাষ্ট্রের সদস্যদের সরকার কাঠামো কিরূপ হবে সে সম্পর্কে বলা ছিল। ১৯৯৪ সালে তাতারস্থান প্রজাতন্ত্র ও রাশিয়ান ফেডারেনের নেতারা একটি সমাঝোতায় উপনীত হন এবং উভয় পক্ষের মধ্যে সম্পর্কের বিষয়ে একটি দ্বিপাক্ষিক চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন। এই চুক্তিতে তাতারস্থানকে সার্বভৌমত্ব দেয়া হয়নি। তার পরিবর্তে তাতারস্থানকে রাশিয়ার সাথে যুক্ত একটি রাষ্ট্র হিসেবে উল্লেখ করা হয়। টমাস বেনেডিকটার লেখেন: The Treaty describes Tatarsan as “a state united with Russia on the basis of the constitution of the two states and the Treaty on the Demarcation of Powers between the Agencies of State Power of the Russian Federation and the Republic of Tatarstan.”

রাশিয়া তাতারস্থানের নিজস্ব বৈদেশিক নীতি ও বাণিজ্য পরিচালনা, নিজস্ব সংবিধান ও আইন রক্ষা করা, নিজস্ব বাজেট প্রণয়ন করা, কর সংগ্রহ, আইন ও বিচারিক প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলা, প্রাকৃতিক সম্পদের ব্যবস্থাপনা এবং নিজস্ব ব্যাংক প্রতিষ্ঠার অধিকারের স্বীকৃতি দিয়েছে। তাতারস্থান ও রাশিয়ার মধ্যে যৌথ কাজের মধ্যে রয়েছে ব্যক্তি অধিকার ও  স্বাধীনতা, সংখ্যালঘু জাতি এবং তাতারস্থানের সার্বভৌমত্ব ও ভৌগলিক অখ-তা রক্ষা করা; সামরিক সরঞ্জাম উৎপাদন ও অস্ত্র বিক্রি; প্রতিরক্ষা কারখানাগুলোকে বেসামরিক উদ্দেশ্যে ব্যবহারের জন্য রূপান্তরকরণ; বৈদেশিক বাণিজ্য, অর্থনৈতিক নীতি, আর্থিক নীতি এবং পরিবহন ও যোগাযোগ নীতির সমন্বয় সাধন করা। অধিকাংশ স্বায়ত্তশাসন ব্যবস্থায় একটি সার্বভৌম রাষ্ট্র সচরাচর বৈদেশিক নীতি, আন্তর্জাতিক সম্পর্ক ও প্রতিরক্ষা সংক্রান্ত ক্ষমতা নিজের হাতে রেখে দেয়। সেদিক দিয়ে তাতারস্থান ও রাশিয়ান ফেডারেশনের সম্পর্ক কিছুটা ব্যতিক্রম বলা যায়। (শেষ)

সূত্র:
1. The Working Autonomies in Europe by Thomus  Benedikter.


Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.