এখানে অফিস নির্মাণ ও সমাবেশ করা যাবে না – মেজর সেলিম

0
1

সিএইচটিনিউজ.কম
বাঘাইছড়ি: রাঙামাটির বাঘাইহাট জোনের অধীন করেঙাতলী আর্মি সাব-জোন।  এই ক্যাম্পের কমান্ডার হলেন মেজর সেলিম — যিনি ইতিমধ্যে এলাকায় তার ফ্যাসিস্ট আচরণের জন্য কুখ্যাতি অর্জন করেছেন।

মেজর সেলিমের নেতৃত্বে রূপকারীতে নির্মাণাধীন ইউপিডিএফের অফিসটি এভাবে ভেঙে দেয়া হয় ও নির্মাণ সামগ্রী পুড়িয়ে দেয়া হয়
মেজর সেলিমের নেতৃত্বে রূপকারীতে নির্মাণাধীন ইউপিডিএফের অফিসটি এভাবে ভেঙে দেয়া হয় ও নির্মাণ সামগ্রী পুড়িয়ে দেয়া হয়

জানা গেছে, এই মেজর সেলিম আজ তার আস্তানায় এলাকার নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি ও মুরুব্বীদের একটি মিটিঙ ডাকেন। এই মিটিঙে স্বয়ং বাঘাইহাট জোনের কমান্ডার উপস্থিত থাকবেন বলে তিনি আমন্ত্রিতদের গতকাল জানিয়ে রেখেছিলেন।

কিন্তু আজ সকালে গিয়ে আমন্ত্রিতরা দেখতে পান উক্ত মিটিঙে জোন কমান্ডার অনুপস্থিত। আর আমন্ত্রিতদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মাত্র ১৫ জন। এর মধ্যে বাঙালি ৭ জন ও পাহাড়ি ৮ জন।

উপস্থিত মুরুব্বীদের তিনি বলেন, “এখানে (বাঘাইছড়িতে) চাঁদাবাজি করা যাবে না, কোন অফিস নির্মাণ করা যাবে না এবং সভা সমাবেশও করা যাবে না।”

এই কথা বলেই তিনি তার দলবল নিয়ে রূপকারী মাঠে যান ইউপিডিএফ এর অফিস ভেঙে দেয়ার প্রতিবাদে আয়োজিত সমাবেশ ভন্ডুল করতে। কিন্তু তিনি সেখানে পৌঁছার আগেই সভা সমাপ্ত হয়। উল্লেখ্য, তিনি গতকাল রূপকারী মাঠে ইউপিডিএফএর নির্মাণাধীন অফিস দ্বিতীয় বারের মতো ভেঙে দিয়েছিলেন।

মিটিঙে দেয়া তার বক্তব্য সম্পর্কে কয়েকজনকে মন্তব্য করতে শোনা গেছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক উক্ত মিটিঙে যোগদানকারী এক মুরুব্বী বলেন, “তিনি সন্ত্রাস চাঁদাবাজির কথা বলেন। অথচ গতবার যখন সন্তু গ্রুপের সন্ত্রাসীরা তার ক্যাম্পের পাশে অবস্থান নিয়েছিলো, তখন আমরা তাকে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি করলেও তিনি কিছুই করেনি। আসলে তিনিই তো সন্ত্রাসী ও চাঁদাবাজদের রক্ষা করেন বলে শোনা যায়।”

মিটিঙে অন্য কাউকে বক্তব্য দেওয়ার সুযোগ না দেয়ায় মিটিঙে উপস্থিত পাহাড়ি বাঙ্গালী মুরুব্বীরা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। তারা বলেন, “এই কথাতো তিনি চিরকূটে লিখেও জানাতে পারতেন। আমরা এত দরকারী কাজ ফেলে তার মিটিঙে উপস্থিত হয়েছি কি এইসব আবোল তাবোল কথা শোনার জন্য? তিনি যা করেছেন তাকে মিটিঙ বলা যায় না। মিটিঙে সবার মতামত প্রকাশ ও বক্তব্য দেওয়ার সুযোগ থাকে।”

তারা ভবিষ্যতে আর তার ডাকা কোন মিটিঙে উপস্থিত থাকবেন না বলে সিএইচটি নিউজকে জানিয়েছেন।
——————–

সিএইচটিনিউজ.কম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।


Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.