গুইমারায় এসএসসি পরীক্ষার্থী এক পাহাড়ি ছাত্রীকে ৯ দিন আটক রেখে ধর্ষণের অভিযোগ !

0
0
খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি
সিএইচটিনিউজ.কম
গুইমারা: খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা মাটিরাংগা উপজেলার গুইমারা থানাধীন নতুন পাড়ার বাসিন্দা গুইমারা উচ্চ বিদ্যালয়ের এস এস সি পরীক্ষার্থী এক পাহাড়ি ছাত্রী ধর্ষণের শিকার হয়েছে । ধর্ষণের শিকার বালিকা আজ মঙ্গলবার সকালে উদ্ধার করে খাগড়াছড়ি আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে ।১৯৭নং গুইমারা মৌজা কবুতরছড়া গ্রামের বাসিন্দা আবুল খায়েরের ছেলে কাপড় ব্যবসায়ী ধর্ষক ফকরুল ইসলাম লিটন(২৭)কে পুলিশ আটক করেছে । ধর্ষণকারী ফকরুল ইসলামের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন আইন ২০০০ এর সংশোধনী-২০০৩ এর ৭/৯(১) ধারায় মামলা দেয়া হয়েছে। গুইমারা থানায় দায়ের করা এ মামলার নম্বর–৩,তাং-২৭/৫/১৩। মামলার তদন্তকারী এসআই আরফান আলী খন্দকার।

পুলিশ ও এলাকা সূত্রে জানা যায়, জেলা মাটিরাংগা উপজেলার গুইমারা থানাধীন নতুন পাড়ার বাসিন্দা ক্যমং মারমার মেয়ে গুইমারা স্কুলে পড়ালেখা করে। স্কুলে আসা-যাওয়া সুবাদে প্রায় গুইমারা বাজারে তাকে আসতে হতো। মেয়েটি ধর্ষণকারী ফকরুল ইসলাম লিটনের দোকানে কাপড় ক্রয় করতে মাঝে মাঝে যেতো। এ সুযোগে ধর্ষণকারী ছাত্রীটিকে নানা প্রলোভন দেখিয়ে, ফুসলিয়ে গত ১১/০৪/২০১৩ তারিখে সকাল ১০টার সময় বাজার হইতে গুইমারা থানাধীন জালিয়া পাড়া নিয়ে যায় । সেখান থেকে বাসে করে ছাত্রীকে চট্টগ্রামে অজ্ঞাত স্থানে জোর পুর্ব্বক আটক রেখে মেয়ের ইচ্ছার বিরুদ্ধে উপর্যুপরি ধর্ষণ করে । অজ্ঞাত স্থানে ৯দিন ধরে চট্টগ্রামে মেয়েটিকে পাশবিক নির্যাতন চালিয়েছে ।

পরেরদিন মেয়েটি ধর্ষককে ফাকি দিয়ে সূকৌশলে পালিয়ে আসতে সক্ষম হয় ।

জানা যায়, ঘটনার পর স্থানীয় চেয়ারম্যান, মেম্বারসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিদের মধ্যস্থতায় আপোষ-মীমাংসা করতে ব্যর্থ হওয়ায় ভিকটিম ও তার পরিবার আইনের আশ্রয় নিতে বাধ্য হয় ।

প্রভাবশালী ধর্ষক গং(বিবাদী)রা বর্তমানে ধর্ষণের শিকার ছাত্রী ও তার পরিবার-পরিজনদের নানাভাবে জীবনে হুমকি দেওয়ার ফলে প্রশাসনের কাছে নিরাপত্তা চেয়েছেন ।

গুইমারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) মোঃ বশির আহম্মেদ জানান, গুইমারা উচ্চ বিদ্যালয়ের এস এস সি পরীক্ষার্থী ছাত্রীকে কৌশলে ফুসলিয়ে চট্টগ্রামে অজ্ঞাতস্থানে রেখে ধর্ষন ও জীবন নাশের অভিযোগ পাওয়ার তদন্ত সাপেক্ষে মামলা করে আসামীকে আটকের পর কোর্টের চালান দেওয়া হয়েছে । মেয়েটিকে পুলিশ পাহারায় আধুনিক সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে ।

বাংলাদেশ মারমা সংগঠন ঐক্য পরিষদে’র প্রতিষ্ঠাতা ম্রাসাথোয়াই মারমা জানান, অনাকাঙ্খিত এ রকম কোমলমতি স্কুল পড়ুয়া ছাত্রীকে ফুসলিয়ে  পৈশাচিকভাবে ধর্ষণের ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে হুশিয়ারী উচ্চারন করেন, পরবতীতে পুনারাবৃত্তি যদি ঘটে তা হলে কঠোর কর্মসূচী মাধ্যমে সমুচিত জবাব দেয়া হবে ।

 


Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.