কল্পনা চাকমা অপহরণ দিবস আজ

0
0
ডেস্ক রিপোর্ট
সিএইচটিনিউজ.কম
 
আজ ১২ জুন কল্পনা চাকমা অপহরণ দিবস। কল্পনা চাকমা পার্বত্য চট্টগ্রামের নারী সমাজের প্রতিনিধিত্বকারী সংগঠন হিল উইমেন্স ফোডারেশনের নেত্রী।  ১৯৯৬ সালের ১২ জুন রাঙামাটি জেলার বাঘাইছড়ি উপজেলার নিউ লাল্যাঘোনা গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে কজইছড়ি সেনা ক্যাম্প কমান্ডার লে. ফেরদৌসের নেতৃত্বে একদল সেনা ও ভিডিপি সদস্য তাকে অপহরণ করে। পার্বত্য চট্টগ্রামে সেনা কর্তৃত্ব ও খবরদারির তীব্র সমালোচনা ও স্থানীয় জনসাধারনকে সংগঠিত করে প্রতিবাদ করায় তাকে অপহরণ করা হয়। দেশ বিদেশের বহুল আলেচিত এ অপহরণের আজ ১৭ বছর পূর্ণ হল।
 
এ অপহরণ ঘটনার পর দেশে বিদেশে ব্যাপক প্রতিবাদ বিক্ষোভের ঝড় ওঠে। কল্পনা অপহরণের প্রতিবাদ জানাতে গিয়ে খুন হন সমর, সুকেশ, রূপন ও মনোতোষ চাকমা।দেশ ও বিদেশের ব্যাপক জনমত ও আন্দোলনের চাপে পড়ে সরকার ঘটনা তদন্তে একই বছর ৭ সেপ্টেম্বর বিচারপতি আব্দুল জলিলকে প্রধান করে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করতে বাধ্য হয়। কিন্তু এ তদন্ত কমিটির রিপোর্ট আজো প্রকাশ করা হয়নি।

এদিকে সরকার পুলিশ বিভাগের মাধ্যমেও তদন্ত চালায়। সর্বমোট ৩৩ জন কর্মকর্তা তদন্ত কার্যের দায়িত্ব পেলেও তারা চূড়ান্ত রিপোর্ট দাখিল করতে ব্যর্থ হন। কিন্তু কল্পনা অপহরণের ৩৪তম আইও বা তদন্ত কর্মকর্তা এস আই ফারুক আহম্মদ অপহরণের সাথে জড়িত প্রকৃত দোষী সেনা অফিসার লেঃ ফেরদৌস, ভিডিপি সদস্য সালেহ আহম্মদ ও নুরল হকের নাম উল্লেখ না করে ২০১০ সালের ২১ মে চূড়ান্ত রিপোর্ট দাখিল করেন। এর বিরুদ্ধে মামলার বাদী কালিন্দী কুমার চাকমা না-রাজি আবেদন জানান।

বিচারক সিআইডির মাধ্যমে পুনর্বার তদন্তের নির্দেশ দিলে সিআইডি কর্মকর্তা মোঃ শহীদুল্লাহ ২০১২ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর চূড়ান্ত তদন্ত রিপোর্ট প্রদান করেন। কিন্তু উক্ত তদন্ত রিপোর্টেও প্রকৃত দোষীদের নাম উল্লেখ করা হয়নি বরং উক্ত তদন্ত রিপোর্টে বিভ্রান্তিমূলক তথ্য দিয়ে কল্পনা অপহরনের সাথে জড়িতদের রক্ষার চেষ্টা করা হয়।

সর্বশেষ এই বছর ২০১৩ সালের ১২ জানুয়ারি সিআইডি প্রতিবেদনের উপর চূড়ান্ত শুনানীর দিন ধার্য করা হলে রাঙামাটির ভারপ্রাপ্ত মুখ্য বিচারিক হাকিম সিরাজুদ্দৌলাহ কুতুবী ১৬ জানুয়ারি নতুন করে মামলার শুনানীর দিন ধার্য করেন। এই দিন সিআইডির দাখিল করা চূড়ান্ত তদন্ত প্রতিবেদনের উপর দু’দফা শুনানী শেষে রাঙামাটির অতিরিক্ত মুখ্য বিচারিক হাকিম মো: সিরাজুদ্দৌলাহ কুতুবী রাঙামাটি পুলিশ সুপারকে(এসপি) দিয়ে পুনঃতদন্তের আদেশ দেন।

এদিকে হিল উইমেন্স ফেডারেশন সহ বিভিন্ন সংগঠন আদালতের এই আদেশ প্রত্যাখ্যান করে এই অপহরণ ঘটনায় স্বাধীন, নিরপেক্ষ ও বিচার বিভাগীয় তদন্ত কমিটির মাধ্যমে তদন্ত এবং অপহরণের মূল হোতা লে. ফেরদৌসসহ তার দোসরদের গ্রেপ্তার করে তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানায়।

অপহরণ দিবসটি উপলক্ষে আজ ১২ জুন বুধবার সকালে রাঙামাটি জেলার কুদুকছড়ি ও বাঘাইছড়ি উপজেলায় হিল উইমেন্স ফেডারেশন সহ বিভিন্ন সংগঠন বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ আয়োজন করেছে।

এছাড়া ঢাকায় ধানন্ডির দৃক গ্যালারিতে “কল্পনা চাকমার সন্ধানে একটি আলোকচিত্র-ফরেনসিক স্টাডি” শীর্ষক এক প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়েছে।
——

 


Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.