কাউখালীতে এক কার্বারীকে ইউপিডিএফের পোষ্টার ছিঁড়তে বাধ্য করলো সেনারা

0
194

কাউখালী প্রতিনিধি ।। রাঙামাটির কাউখালীতে সেনাবাহিনী কর্তৃক এক গ্রাম কার্বারীকে ইউপিডিএফের ২২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে লাগানো পোস্টার ছিঁড়তে বাধ্য করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

আজ শনিবার (৩০ জানুয়ারি ২০২১) কাউখালীর ঘাগড়া ইউনিয়নের পানছড়িতে সেনারা এ কাণ্ড ঘটায়।

জানা গেছে, আজ বেলা ২টার দিকে কাউখালী ও তালুকদার পাড়া ক্যাম্প থেকে সেনাবাহিনীর দুটি গাড়ি পানছড়িতে যায়। সেখানে যাবার পথে সেনারা রাঙ্গী পাড়া দোকান থেকে বিশিষ্ট মুরুব্বী সুকুমার কার্বারীকে সাথে নিয়ে যায়।

পানছড়িতে পৌঁছে দোকানের পাশের আম গাছে ইউপিডিএফ-এর ২২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী (২৬ ডিসেম্বর ২০২০ ) বার্ষিকী উপলক্ষে লাগানো পোস্টার দেখে তালুকদার পাড়া আর্মি ক্যাম্পের ওয়ারেন্ট অফিসার (সুবেদার) মো. সোহেল সুকুমার কার্বারীকে পোস্টার ‍ছিঁড়তে বলেন । অনিচ্ছা সত্ত্বেও কার্বারী তা ছিঁড়তে বাধ্য হন। এরপর পাশের ইলেকট্রিক খাম্বায় লাগানো পোষ্টারও ছেঁড়ার আদেশ দিলে সুকুমার কার্বারী প্রতিবাদ করে বলেন, “স্যার আমাকে দিয়ে পোষ্টার ছিঁড়াচ্ছেন কেন? আপনারা নিজেরাই তো তা করতে পারেন”।

জবাবে সুবেদার সোহেল বলেন, “আমরা তো আইনের লোক। আইন নিজ হাতে নিতে পারি না।  তাই ছিঁড়তে পারি না”।

সুকুমার কার্বারী তৎক্ষণাৎ জবাব দেন, “ আপনারা আইনের লোক হলে আমিও তো আইনের লোক। আমিও তো সরকার নিযুক্ত কার্বারী। সরকারের কাছ থেকে ভাতা পেয়ে থাকি”। কার্বারীর জবাব শুনে সুবেদার মুখ কাচুমাচু করে মাথা নিচু করেন এবং কোনো জবাবই দিতে পারেননি।

সুকুমার কার্বারী এ প্রতিবেদককে বলেন, “আজ আমাদের বৌদ্ধ বিহারে ’পালা সিয়ং’ ( ভিক্ষু সংঘের অন্ন ) দিতে গিয়েছিলাম। বাড়িতে ফেরার পথে নিরুল কান্তি চাকমার দোকানে বসে চা পানের জন্য বসেছিলাম। সেনারা সেখান থেকে আমাকে তাদের সাথে যেতে বাধ্য করে। পানছড়িতে গিয়ে আমাকে দিয়ে পোষ্টার ছিঁড়ার কাজটি করালো। আমি অপমানিত বোধ করছি।”

এ রিপোর্ট লেখার আগ পর্যন্ত (সন্ধ্যা ৭ টা) সেনা দলটি পানছড়ি সরকারি প্রাইমারী স্কুলে অবস্থান করছিল।

 


সিএইচটি নিউজে প্রকাশিত প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ,ভিডিও, কনটেন্ট ব্যবহার করতে হলে কপিরাইট আইন অনুসরণ করে ব্যবহার করুন।

 

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.