কাউখালীতে সেনাবাহিনী কর্তৃক শারীরিক প্রতিবন্ধী ব্যক্তিকে নির্যাতনের অভিযোগ

0
256
প্রতীকী ছবি

কাউখালী প্রতিনিধি ।। রাঙামাটির কাউখালী উপজেলার কলমপতি ইউনিয়নে সেনাবাহিনী কর্তৃক এক শারীরিক প্রতিবন্ধী ব্যক্তিকে নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

গতকাল মঙ্গলবার (০২ মার্চ ২০২১) দুপুরে কলমপতি ইউনিয়নের বড়ইছড়ি পাড়ায় এ ঘটনা ঘটে।

নির্যাতনের শিকার প্রতিবন্ধী ব্যক্তির নাম সুইথুইপ্রু মার্মা (৩৭), পিতা- মৃত ঞোজাইরুই মার্মা, গ্রাম বড়ইছড়ি পাড়া। শারীরিক প্রতিবন্ধীতার কারণে তিনি খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে চলাফেরা করেন। পেশায় তিনি উক্ত গ্রামে একজন সাধারণ দোকানদার।

জানা যায় গতকাল দুপুর ১২টার দিকে কাউখালী সেনা ক্যাম্প থেকে একদল সেনা সদস্য বড়ইছড়ি পাড়ায় গিয়ে তাকে দোকান থেকে ধরে নিয়ে কাউখালী ডিগ্রি কলেজ এলাকায় নিয়ে যায়। সেখানে তাকে ইউপিডিএফ সদস্যদের সাথে তার যোগাযোগ আছে এমন মিথ্যা অভিযোগ এনে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে এবং নির্দয়ভাবে শারীরিক নির্যাতন করে। সেনারা তাকে আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে ইউপিডিএফ সদস্যরা কে কোথায় অবস্থান করে, কোথায় খায় ইত্যাদি তথ্য প্রদান করতে না পারলে তার পরিণতি আরো ভয়াবহ হবে বলে হুমকি দিয়ে তাকে ছেড়ে দেয়।

শারীরিক প্রতিবন্ধীর উপর সেনাবাহিনীর এমন নির্দয় আচরণে এলাকার জনগণের মাঝে তীব্র ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে।

উক্ত এলাকার ইউপি মেম্বার পাইচামং মার্মা এ প্রতিবেদকে বলেন, “লোকটি নিরীহ। শারীরিক প্রতিবন্ধী বলে খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে হাঁটে। কাজ কর্মও তেমন করতে পারে না। একটা ঝুপড়ি দোকান দিয়ে কোনমতে দিনাতিপাত করছে”।

তিনি বলেন, মিথ্যা অভিযোগ এনে তাকে যেভাবে মারধর করা হলো তা সভ্য সমাজ ও রাষ্ট্রে অকল্পনীয়। তিনি এমন অন্যায় কাজের নিন্দা জানিয়ে এর বিচার দাবি করেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এলাকার অপর এক মুরুব্বী ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে বলেন, একজন প্রতিবন্ধী ব্যক্তিকে যদি এমন নির্যাতনের শিকার হতে হয় তাহলে সাধারণ মানুষের নিরাপত্তা কোথায়?

তিনি আরও বলেন আওয়ামী লীগ, বিএনপি’র মতো একটি গণতান্ত্রিক দল হিসেবে ইউপিডিএফ’র সাথেও যে কারোরই যোগাযোগ বা সম্পর্ক থাকতে পারে। তাতে তো দোষের কিছু হতে পারে না। কাজেই, অন্যায়ভাবে কাউকে ধরে নিয়ে নির্যাতন করা এটা কোনভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়। আমরা অবিলম্বে এ ধরনের অন্যায়-অবিচার বন্ধের দাবি জানাই।

 


সিএইচটি নিউজে প্রকাশিত প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ,ভিডিও, কনটেন্ট ব্যবহার করতে হলে কপিরাইট আইন অনুসরণ করে ব্যবহার করুন।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.