কালের কণ্ঠ পত্রিকায় "বিদেশি গেরিলারাও সক্রিয়" শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদের একাংশের প্রতিবাদ জানিয়েছে ইউপিডিএফ

0
0

নিজস্ব প্রতিবেদক
সিএইচটিনিউজ.কম
দৈনিক কালের কণ্ঠ পত্রিকায় আজ ১ অক্টোবর ২০১২ সোমবার প্রথম পাতায় প্রকাশিত “বিদেশি গেরিলারাও সক্রিয়” শিরোনামে বিপ্লব রহমান, মনু ইসলাম ও তোফায়েল আহমেদ-কৃত সংবাদ প্রতিবেদনে ইউপিডিএফকে জড়িয়ে যে মিথ্যা সংবাদ পরিবেশন করা হয়েছে তার তীব্র জানিয়েছে ইউপিডএফ
আজ সোমবার দৈনিক কালের কণ্ঠের সম্পাদকের বরাবরে ইউপিডিএফ-এর পাঠানো প্রতিবাদ লিপিতে বলা হয়, সংবাদ প্রতিবেদনের শেষাংশে (৮ম পৃষ্ঠায়) প্রতিবেদকগণ কর্তৃক সম্পূর্ণ কাল্পনিক, উদ্ভট ও হীনউদ্দেশ্যে পার্বত্য চট্টগ্রামে পূর্ণস্বায়ত্তশাসনের দাবিতে আন্দোলনরত আঞ্চলিক রাজনৈতিক দল ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ)-কে জড়িয়ে মিথ্যা সংবাদ পরিবেশন করা হয়েছে, যা সাধারণ জনমনে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করতে পারে
ইউপিডিএফ-এর প্রতিবাদ লিপিতে আরো বলা হয়, ভিনদেশী আরএসও-এর সাথে ইউপিডিএফ-এর কখনও কোন যোগাযোগ নেই, হয় নিকখনও কোন বৈঠকও হয় নিতথ্যটি সর্বৈব মিথ্যা, সম্পূর্ণ মনগড়া, কাল্পনিক ও হীনউদ্দেশ্যপ্রণোদিতপ্রতিবেদনে বলা হয়েছে,”কিছুদিন আগে কক্সবজারের একটি হোটেলে আরএসও-ইউপিডিএফ বৈঠক হয়েছে।” কবে, কখন, কোন হোটেলে, কারা, কী পদবীর অধিকারী ব্যক্তিবর্গ –বৈঠক করেছেন, তার প্রামাণ্যমূলক তথ্য সূত্রও প্রতিবেদকগণ উল্লেখ করেন নিযা দৈনিক কালের কণ্ঠের অঙ্গীকার বস্তুনিষ্ঠ সাংবাদিকতার সম্পূর্ণ বিপরীত, প্রতিবেদনে ইউপিডিএফ বিষয়ে যে তথ্য উপস্থাপন করা হয়েছে তা পুরোটাই মিথ্যা ও বানোয়াট
কালের কণ্ঠের প্রতিবেদনে “ইউপিডিএফ-এর সঙ্গে আরএসও ও নুপার প্রত্যক্ষ যোগাযোগ রয়েছে” এ বক্তব্যের প্রেক্ষিতে ইউপিডিএফ-এর প্রতিবাদ লিপিতে বলা হ, এটা এতটাই ভিত্তিহীন ও বানোয়াট যে, প্রতিবেদনটি পড়ে ইউপিডিএফ কর্মী-সমর্থক ও জনগণকে ক্ষুব্ধ করেছেআরএসও কিংবা নুপা (ন্যাশনাল ইউনাইটেড ফ্রন্ট অব আরাকান)–এ ধরনের ভিনদেশী সংগঠনের সাথে নয়, একটি গণতান্ত্রিক দল হিসেবে ইউপিডিএফ-এর প্রত্য যোগাযোগ রয়েছে বাংলাদেশে সক্রিয় সংগঠন জাতীয় মুক্তি কাউন্সিল, ফ্যাসিবাদ ও সাম্রাজ্যবাদ বিরোধী জাতীয় কমিটিসহ বেশ কিছু সংগঠন ও জোটের সাথে, প্রতিবেদকদের যা জানা থাকা উচিতদেশের আপামর জনসাধারণের মুক্তির ল্েযই ইউপিডিএফ কাজ করে যাচ্ছেসে কারণে পার্বত্য চট্টগ্রামে পূর্ণস্বায়ত্তশাসন প্রতিষ্ঠার আন্দোলন সংগঠিত করার পাশাপাশি ইউপিডিএফ জাতীয় মুক্তি কাউন্সিলের সাথে প্রত্যক্ষভাবে যুক্ত
প্রতিবাদ লিপিতে বলা হয়, অত্যন্ত সঙ্গত ও যৌক্তিক কারণেই ইউপিডিএফ চৌদ্দ বছর আগে সম্পাদিত জনসংহতি সমিতি ও আওয়ামী লীগ সরকারের চুক্তি সমালোচনা করে প্রত্যাখ্যান করেছিল, এখনও পার্বত্য চট্টগ্রামের জনগণের ন্যায়সঙ্গত অধিকার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে পূর্ণস্বায়ত্তশাসনের দাবিতে আন্দোলন সংগ্রাম সংগঠিত করছেইউপিডিএফকে “শান্তিচুক্তি বিরোধী” আখ্যায়িত করারও কোন যৌক্তিকতা নেই
প্রতিবাদ লিপিতে এও বলা হয় যে, প্রতিবেদকগণ নিজেদের গ্রহণযোগ্যতা বাড়াতে ইউপিডিএফ-এর মুখপাত্র নিরন চাকমাকেও উদ্ধৃত করেছেন, যা ব্ল্যাকমেইলিং-এর মত এবং অত্যন্ত নিন্দনীয়প্রকৃতপক্ষে উক্ত প্রতিবেদকদের কারোর সাথেই প্রতিবেদনে কথিত ঘটনার ব্যাপারে নিরন চাকমার কোন ধরনের কথাবার্তা হয় নিপ্রতিবেদকগণের মধ্যে “বিশেষ সংস্থার লোকও” রয়েছে বলে ওয়াকিহাল মহলের ধারণা, ইতিপূর্বে বিশেষ সংস্থার নিযুক্ত উক্ত এজেন্টটির পরিবেশিত মিথ্যা ও বানোয়াট খবরে বহু বিতর্কও সৃষ্টি হয়েছিল

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.