কুলাউড়ার খাসিয়া পুঞ্জিতে হামলাকারীদের গ্রেপ্তারের দাবি

0
7

অনলাইন ডেস্ক ।। মৌলভীবাজার কুলাউড়ার ইছাছড়া খাসিয়া পুঞ্জিতে হামলা ও ভাংচুরকারীদের গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) ও খাসি স্টুডেন্ট ইউনিয়ন।

বুধবার (১১ নভেম্বর), বিকেল ৪টায় সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে আয়োজিত এক মানববন্ধন থেকে সংগঠন দুটি এ দাবি জানায়।

মানববন্ধনে সংহতি জানিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও ছাত্র সংগঠনের নেতা-কর্মীরা বক্তব্য দেন।

বাপা সিলেটের সহ-সভাপতি ও শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. নাজিয়া চৌধুরীর সভাপতিত্বে প্রারম্ভিক বক্তব্য উপস্থাপন করেন বাপা সিলেটের সাধারণ সম্পাদক আবদুল করিম কিম।

এসময় বক্তারা বলেন, আদিবাসী ও খাসিয়া জনগোষ্ঠী যে বন বা পাহাড়ে থাকেন সেখানকার পরিবেশ-প্রকৃতি ভালো থাকে এবং তারা নিজের সন্তানের মতো ভালোবেসে বনকে রক্ষা করেন। দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে কিছু দখলদার-ভূমিখেকো চক্র বন ধ্বংস করতে আদিবাসী ও খাসিয়া জনগোষ্ঠীর উপর হামলা ও ভয়ভীতি দেখাচ্ছে। এর ধারাবাহিকতায় গত ৯ নভেম্বর ইছাছড়া খাসিয়া পুঞ্জিতেও হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে।

বক্তারা বলেন, ইছাছড়া পুঞ্জির পানজুম স্থানীয় সন্ত্রাসী রফিক মিয়ার দখল থেকে উদ্ধার করে প্রশাসন এবং তা খাসিয়াদের বুঝিয়ে দেওয়ার কয়েক ঘণ্টা পরেই রফিক মিয়া পুঞ্জিতে হামলা চালিয়ে বাড়িঘর এবং গির্জা ভাংচুর করে। জীবন ও সম্পদ হারানোর ভয়ে আতঙ্কগ্রস্ত খাসিয়াদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হামলাকারী রফিক মিয়াসহ অন্য সন্ত্রাসীদের দ্রুত গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনার দাবি জানান তারা।

মানববন্ধনে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. জায়েদা শারমীন স্বাতী, বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ড. ফারজানা সিদ্দিকা রনি, ওয়াকার্স পার্টি সিলেটের সভাপতি সিকন্দর আলী, সারথী ওঁরাও, ট্রাইবাল অ্যাসোসিয়েশন সিলেটের সভাপতি জোসেফ হাউই, খাসি স্টুডেন্ট ইউনিয়ন সিলেটের সভাপতি জ্যাক টাংসং ও সংগঠক ব্লেসমি বাড়ে প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলার ইছাছড়া খাসিয়া পুঞ্জিতে ৫২টি পরিবার থাকেন। পুঞ্জির বাসিন্দা জেসপার আমলেংরংয়ের প্রায় ৫ একর জায়গায় একটি পানের জুম রয়েছে। সেটি দীর্ঘদিন ধরে দখল করে রেখেছিল স্থানীয় রফিক মিয়ার নেতৃত্বাধীন একটি ভূমিখেকো চক্র। গত ৯ নভেম্বর সকালে উপজেলা প্রশাসন সেই জুম রফিকের কাছ থেকে উদ্ধার করে খাসিয়া পরিবারটিকে ফিরিয়ে দিলে সেদিন সন্ধ্যায় রফিক মিয়ার নির্দেশে ওই খাসিয়াপুঞ্জিতে হামলা চালিয়ে বেশ কয়েকটি বাড়িঘর ও গির্জা ভাংচুর করা হয়। ‍

সূত্র: জনজাতির কণ্ঠ

 


সিএইচটি নিউজে প্রকাশিত/প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ,ভিডিও, কনটেন্ট ব্যবহার করতে হলে কপিরাইট আইন অনুসরণ করে ব্যবহার করুন।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.