কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি সম্মেলনে প্রশাসনের বাধাদানের প্রতিবাদে খাগড়াছড়িতে পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের বিক্ষোভ

0
4
খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি
সিএইচটিনিউজ.কম
 
পূর্বনির্ধারিত কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি সম্মেলনে প্রশাসনের বাধাদান, দেয়াল লিখন মুছে গণতান্ত্রিক অধিকার খর্ব করা, বাঙালি জাতীয়তা আরোপ, সংকীর্ণ দলীয় স্বার্থে সমাজের বিভেদ সৃষ্টি, সেনা নিয়ন্ত্রণ বৃদ্ধি, জনগণকে হয়রানি তথা সরকারের অব্যাহত ফ্যাসিবাদী কার্যকলাপের বিরুদ্ধে বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ(পিসিপি) আজ ১০ নভেম্বর রবিবার খাগড়াছড়ি জেলা সদর সহ বিভিন্ন উপজেলায় বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে। আমাদের প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর:

খাগড়াছড়ি জেলা সদরের স্বনির্ভর বাজার থেকে দুপুর ১টায় পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের কেন্দ্রীয় সভাপতি থুইক্যচিং মারমার নেতৃত্বে একটি মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি নারাঙহিয়া, উপজেলা হয়ে চেঙ্গী স্কোয়ারে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশ শেষে আবার স্বনির্ভরে এসে শেষ হয়। মির্ছিল পরবর্তী সেখানে অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সমাবেশে পিসিপি’র কেন্দ্রীয় সভাপতি থুইক্যচিং মারমার সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট(ইউপিডিএফ) এর খাগড়াছড়ি জেলা ইউনিটের সংগঠক অংগ্য মারমা, গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক মাইকেল চাকমা ও হিল উইমেন্স ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় সভাপতি কণিকা দেওয়ান

বক্তারা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আগমনে নিরাপত্তার উছিলায় প্রশাসন কর্তৃক কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি সম্মেলন আয়োজনে বাধাদানের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বলেন, সভা-সমাবেশ আয়োজন একটি গণতান্ত্রিক অধিকার। সম্মেলনে বাধাদানের মাধ্যমে সরকারের চরম ফ্যাসিস্ট আচরণ ছাড়া আর কিছুই নয়।

বক্তারা আরো বলেন, সরকারের একেবারে শেষ সময়ে শেখ হাসিনা খাগড়াছড়ি আগমনের উদ্দেশ্য হচ্ছে পাহাড়িদের আবারো প্রতারণার ফাঁদে ফেলা। শেখ হাসিনা ‘ভাগ করে শাসন করার’ কূট কৌশল খাটিয়ে পাহাড়িদের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি করে ফায়দা লুটার চেষ্টায় মশগুল রয়েছেন। পাহাড়িদেরকে বিভক্ত করে পার্বত্য চট্টগ্রামে শান্তির বদলে অশান্তি সৃষ্টি করেছেন।

বক্তারা বলেন, শেখ হাসিনার সরকার নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন না করে উল্টো সংবিধানের পঞ্চদশ সংশোধনীর মাধ্যমে পার্বত্য চট্টগ্রামসহ দেশের সংখ্যালঘু জাতির জনগণের উপর “বাঙালি জাতীয়তা” চাপিয়ে দিয়েছে। অপরদিকে পার্বত্য চট্টগ্রামে ভূমি বেদখল ও সাম্প্রদায়িক হামলা চালিয়ে পাহাড়ি উচ্ছেদের ষড়যন্ত্র চেষ্টা অব্যাহত রেখেছে।

বক্তারা বিতর্কিত পঞ্চদশ সংশোধনী আইন বাতিলপূর্বক পাহাড়ি জনগণের স্ব স্ব জাতীয়তার স্বীকৃতি প্রদান, প্রথাগত ভূমি অধিকার নিশ্চিত করা, বেদখলকৃত ভূমি ফিরিয়ে দেয়া, সেনাবাহিনীকে ব্যারাকে ফিরিয়ে নেয়া এবং বহিরাগতদের জীবিকার নিশ্চয়তাসহ পার্বত্য চট্টগ্রামের বাইরে সম্মানজনক পুনর্বাসন ও গণতান্ত্রিক অধিকারের উপর নগ্ন হস্তক্ষেপ বন্ধ করার দাবি জানান।
সমাবেশ থেকে বক্তারা আগামীকাল ১১ নভেম্বর খাগড়াছড়ি স্টেডিয়ামে আয়োজিত জাতীয় স্বাথী বিরোধী সরকারী সমাবেশ বয়কট করে পিসিপি’র ঘোষিত সকাল-সন্ধ্যা সড়ক অবরোধ সফল করার জন্য সর্বস্তরের জনগণের প্রতি আহ্বান জানান।
অপরদিকে, পিসিপি’র কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক বিলাস চাকমার নেতৃত্বে বটতলী এলাকা থেকে আরো একটি মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি খাগড়াছড়ি শহরের শাপলা চত্বর, চেঙ্গী স্কোয়ার হয়ে স্বনির্ভরে এসে প্রতিবাদ সমাবেশে মিলিত হয়। এতে অন্যান্যের মধ্যে পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক বিপুল চাকমা, গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের কেন্দ্রীয় নেতা জিকো মারমা এবং হিল উইমেন্স ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় সহ সভাপতি নিরূপা চাকমা ও জেলা শাখার সভাপতি মিশুক চাকমা উপস্থিত ছিলেন।
এছাড়াও বিভিন্ন উপজেলায় পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে।
পানছড়ি : সকাল ১০টায় কলেজ গেট এলাকা থেকে একটি মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি কালানাল ব্রিজে পৌঁছলে পুলিশ বাধা দেয়। পরে সেখানেই এক প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের পানছড়ি থানা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক রূপায়ন চাকমার সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের কেন্দ্রীয় সহ সভাপতি চন্দ্রদেব চাকমা ও গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের পানছড়ি উপজেলা কমিটির সভাপতি বরুণ চাকমা। সমাবেশে স্বাগত বক্তব্য রাখেন পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের পানছড়ি থানা শাখার সদস্য সুনীল ত্রিপুরা ও পরিচালনা করেন পানছড়ি কলেজ শাখার সভাপতি লিটন চাকমা।বক্তারা কেন্দ্রীয় সম্মেলনে প্রশাসনের বাধাদানের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান। তারা আগামীকাল সোমবারের সড়ক অবরোধ সফল করার জন্য সকলের প্রতি আহ্বান জানান।

মহালছড়ি : মহালছড়ি উপজেলার বাবুপাড়া হতে সকাল সাড়ে ১১টায় একটি মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি সড়ক ও জনপদ বিভাগের এলাকা ঘুরে বাস স্টেশনে এসে এক সমাবেশ করে। সমাবেশে পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের মহালছড়ি থানা শাখার সভাপতি রতন স্মৃতি চাকমা ও গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের মহালছড়ি উপজেলা কমিটির সভাপতি পলাশ চাকমা বক্তব্য রাখেন।গুইমারা: গুইমারা থানার মারমা উন্নয়ন সংসদের সামনে থেকে বেলা ২.৩০টায় পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ একটি মিছিল বের করে। মিছিলটি গুইমারা বাজারের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে গুইমারা প্রেসক্লাবের সামনে এসে প্রতিবাদ সমাবেশ করে। সমাবেশে পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের গুইমারা থানা শাখার সভাপতি চিত্রজ্যোতি চাকমা ও মাটিরাঙ্গা থানা শাখার সাধারণ সম্পাদক প্রবীর ত্রিপুরা বক্তব্য রাখেন। সমাবেশ পরিচালনা করেন পিসিপি’র রামগড় ডিগ্রী কলেজ শাখার সভাপতি পুষ্প কুসুম চাকমা।

বক্তারা সংবিধানের পঞ্চদশ সংশোধনী বাতিল, প্রথাগত ভূমি অধিকার ও গণতান্ত্রিক অধিকারের প্রতি নগ্ন হস্তক্ষেপ বন্ধের দাবি জানান।

সমাবেশে শেষে আগামীকালের সড়ক অবরোধ সফল করার আহ্বানে আবারো মিছিলটি গুইমারা বাজার প্রদক্ষিণ করে।

দিঘীনালা: বিকাল ৩টায় দিঘীনালায় বিক্ষোভ মিছিল করেছে পিসিপি। মিছিলটি উপজেলা হতে শুরু হয়ে লার্মা স্কোয়ারে গিয়ে শেষ হয়। পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের দিঘীনালা থানা শাখার সভাপতি সুরেশ চাকমা এতে বক্তব্য রাখেন। তিনি আগামীকালের সকাল-সন্ধ্যা সড়ক অবরোধ কর্মসূচি সফল করার জন্য জনগণের প্রতি আহ্বান জানান।

বাঘাইছড়ি: কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি সম্মেলনে বাধাদানের প্রতিবাদে রাঙামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলায়ও বিক্ষোভ প্রদর্শন করেছে পিসিপি। সকাল ১১টায় বাঘাইছড়ি উপজেলা সদর হতে একটি মিছিল শুরু হয়ে শাপলা চত্বরে এসে সমাবেশে মিলিত হয়। পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের বাঘাইছড়ি থানা শাখার সভাপতি নিউটন চাকমার সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের বাঘাইছড়ি উপজেলা কমিটির সহ সভাপতি অঙ্গদ চাকমা, ও পিসিপি’র কাচলং ডিগ্রী কলেজ শাখার সভাপতি সোহেল চাকমা। নিবাস চাকমা সমাবেশ পরিচালনা করেন। 

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.