খাগড়াছড়িতে গণধর্ষণের ঘটনায় গ্রেফতারকৃত ৬ আসামির আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি

0
84

খাগড়াছড়ি ।। খাগড়াছড়ি সদরের বলপিয়ে আদামে প্রতিবন্ধী পাহাড়ি নারীকে গণধর্ষণের ঘটনায় গ্রেফতারকৃত সাত আসামির মধ্যে ছয় জন ধর্ষণের কথা স্বীকার করে আদালতে স্বীকোরোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

আজ সোমবার (২৮ সেপ্টেম্বর) খাগড়াছড়ি সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ রশিদ বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, খাগড়াছড়ি আদালত ফৌজদারি কার্যবিধির (সিআরপিসি) ধারা ১৬৪ এর অধীনে তাদের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি রেকর্ড করেন। গতকাল দুপুর তিনটা থেকে রাত প্রায় দশটা পর্যন্ত তাদের জবানবন্দি রেকর্ড করা হয়।

তিনি বলেন, ‘তবে, গ্রেপ্তার হওয়া মূল সন্দেহভাজন আসামি মো. আমিন ওরফে নুরুল আমিন এখনো ধর্ষণের কথা স্বীকার করেনি। আমরা আদালতের কাছে তার সাত দিনের রিমান্ড চেয়ে আবেদন করেছি।’

আদালত আসামি আমিনের শুনানির জন্য আগামী বুধবার দিন ধার্য করেছেন বলেও জানান ওসি।

উল্লেখ্য, গত বুধবার দিবাগত গভীর রাত আড়াইটার সময় খাগড়াছড়ি জেলার বলপিয়ে আদাম এলাকায় দরজা ভেঙে ৯ জন সেটলার বাড়িতে ঢুকে মধ্যযুগীয় কায়দায় প্রতিবন্ধী নারীকে পালাক্রমে ধর্ষণ ও স্বর্ণালঙ্কারসহ বাড়ির জিনিসপত্র লুট করে নিয়ে যায়।

ঘটনার পরদিন ভিকটিম পরিবারের পক্ষে ৯ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করা হয়।

এ ঘটনায় প্রকাশ পাওয়ার পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক নিন্দা প্রতিবাদের ঝড় উঠে এবং বিভিন্ন জায়গায় বিক্ষোভ প্রদর্শিত হয়।

পরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে চট্টগ্রাম থেকে ৭ জনকে গ্রেফতার করে।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- মো. আমিন ওরফে নুরুল আমিন (৪০), মো. বেলাল হোসেন (২৩), মো. ইকবাল হোসেন (২১), মো. আব্দুল হালিম (২৮), মো. শাহিন মিয়া (১৯), মো. অন্তর (২০) এবং মো আব্দুর রশিদ ( ৩৭)।

বাকী ২ অপরাধীকে পুলিশ এখনো গ্রেফতার করতে পারেনি।

এদিকে গণধর্ষণের ঘটনায় সুষ্ঠূ বিচার ও জড়িত দুর্বৃত্তদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে দেশের বিভিন্নস্থানে বিক্ষোভ কর্মসূচি অব্যাহত রয়েছে।


Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.