খাগড়াছড়িতে শহীদ ক্যজায় মারমার ২২তম শহীদবার্ষিকী পালন করেছে পিসিপি

0
1

খাগড়াছড়ি : অস্থায়ী স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পস্তবক অর্পণ, স্মরণসভা ও সামাজিক-ধর্মীয় অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে আজ ৩১ মার্চ ২০১৮ খাগড়াছড়িতে শহীদ ক্যজায় মারমার ২২তম শহীদবার্ষিকী পালন করেছে বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ (পিসিপি) খাগড়াছড়ি জেলা শাখা।

আজ সকাল ৯টায় খাগড়াছড়ি জেলা সদরের স্বনির্ভরে ইউনাইটেড পিপল্স ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ)-এর কার্যালয়ের সামনে শহীদ ক্যজায় মারমার স্মরণে নির্মিত অস্থায়ী স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের কেন্দ্রীয় কমিটি সাধারণ সম্পাদক জিকো ত্রিপুরা, বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ (পিসিপি) খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সভাপতি তপন চাকমা ও হিল উইমেন্স ফেডারেশনের জেলা সভাপতি দ্বিতীয়া চাকমা। পরিবারের পক্ষ থেকে ফুল দিয়ে শোকাঞ্জলি জানান ক্যজায় মারমার পিতা বলি মারমা।

পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে শহীদ ক্যজায় মারমাসহ নিপীড়িত জনগণের মুক্তির লক্ষ্যে আত্মবলিদানকারী বীর শহীদের শ্রদ্ধা ও সম্মান জানিয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।

পরে এক সংক্ষিপ্ত সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে পিসিপি খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সভাপতি তপন চাকমার সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক অমল ত্রিপুরার সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের কেন্দ্রীয় সদস্য রতন স্মৃতি চাকমা ও হিল উইমেন্স ফেডারেশনের খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সভাপতি দ্বিতীয়া চাকমা। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের কেন্দ্রীয় সভাপতি ও ইউপিডিএফ খাগড়াছড়ি ইউনিটের সংগঠক অংগ্য মারমা।

সভায় বক্তারা ক্যজাই মারমাকে স্মরণ করে বলেন, শহীদ ক্যজায় মারমার পার্বত্য চট্টগ্রামের নিপীড়িত মানুষের অধিকার আদায়ের লড়াই সংগ্রামের নিবেদিত এক অকোতভয় সৈনিক ছিলেন। ১৯৯৬ সালে ৩১ মার্চ তৎকালীন গণ পরিষদের নেতা চাথুইপ্রু মারমার মুক্তির দাবিতে সড়ক অবরোধের প্রচারণা করতে গিয়ে পানখাইয়া পাড়া এপি ব্যাটেলিয়ন গুলিতে তিনি শহীদ হন। মৃত্যুর আগে পার্বত্য চট্টগ্রামের নিপীড়িত জাতিসত্তাসমূহের উদ্দেশ্য তিনি বলেছিলেন “স্বায়ত্তশাসনের জন্য রক্তের প্রয়োজন, আমি রক্ত দিয়ে গেলাম”। তার এই প্রতিবাদী কন্ঠ সেদিন পানখাইয়া পাড়ার রাজপথ কম্পিত হয়েছিল। রাস্তায় নেমেছিল শত শত ছাত্র-যুব-জনতা। তিনি জাতির কাছে চির অমর হয়ে থাকবেন।

বক্তারা শহীদদের আত্মবলিদানে অনুপ্রাণিত হয়ে আগামী দিনের পূর্ণস্বায়ত্তশাসনের সংগ্রামকে বেগবান করতে পার্বত্য চট্টগ্রামের জনগণের প্রতি আহ্বান জানান।

পুষ্পস্তবক অর্পণ অনুষ্ঠান শেষে ক্যজায় মারমার পিতা বলি মারমা সামাজিক রীতি অনুসারে সিঙ্গিনালা বৌদ্ধ বিহারে এক ধর্মীয় অনুষ্ঠান করেন।

এছাড়া বিকাল ৫টায়  ইউপিডিএফ কার্যালয়ের সামনে এক স্মরণসভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ খাগড়াছড়ি জেলা সভাপতি তপন চাকমার সভাপতিত্বে  ও  সাধারণ সম্পাদক অমল ত্রিপুরার সঞ্চালনায়  বক্তব্য রাখেন গণতান্ত্রিক যুব ফোরাম কেন্দ্রীয় সদস্য রতন স্মৃতি চাকমা, প্রগতিশীল মারমা এক্য সমাজ চট্টগ্রাম শাখার যুগ্ন সম্পাদক হ্লাব্রেচাই মারমা ও হিল উইমেন্স ফেডারেশন খাগড়াছড়ি জেলা সভাপতি দ্বিতীয়া চাকমা।

স্মরণসভা শেষে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় তিনটি আকাশ বাতি (ফানুস) ওড়ানো হয়।
—————–
সিএইচটিনিউজ ডটকম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।


Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.