খাগড়াছড়ির পানখাইয়া পাড়ায় এক পাহাড়ি মেয়ে ধর্ষিত, ধর্ষককে পুলিশে সোপর্দ

0
1

সিএইচটিনিউজ.কম
Khagrachariখাগড়াছড়ি: খাগড়াছড়ি জেলা সদরের পানখাইয়া পাড়ায় টেইলার্সের দোকানদার দেব বিকাশ বড়ুয়া(৪০) কর্তৃক ২০ বছর বয়সী এক পাহাড়ি মেয়ে(মারমা) ধর্ষণের শিকার হয়েছে। এলাকার লোকজন ধর্ষক দেব বিকাশ বড়ুয়াকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে। বুধবার(২৮ জানুয়ারি) সকাল ১১টায় এ ঘটনা ঘটে।

মেয়েটির আসল বাড়ি গুইমারার নাক্রাই পাড়ায়। সে পানখাইয়া পাড়া বাসিন্দা হ্লাথোয়াই চৌধুরী (অবসর প্রাপ্ত সেনা সদস্য)-এর বাড়িতে গৃহকর্মীর কাজ করে থাকে। মেয়েটি অনেকটা বুদ্ধি প্রতিবন্ধী ধরনের এবং শারিরীক গঠনও স্বাভাবিকের চেয়ে খাটো।

জানা গেছে, ধর্ষক দেব বিকাশ বড়ুয়া একজন চাকরিচ্যুত সাবেক সেনা সদস্য। তার বাড়ি মহালছড়িতে। বর্তমানে তিনি এপি ব্যাটালিয়ন এলাকায় ভাড়া বাসায় বসবাস করে পানখাইয়া পাড়ায় একটি টেইলার্সের দোকান দিয়ে ব্যবসা করছেন। তিনি কুমিল্লায় চাকুরীকালীন সময়ে ২০০৬ইং সালে ফায়ারিং এ অবৈধ কাজে লিপ্ত থাকার অভিযোগে চাকুরীচ্যুত হন।

স্থানীয়রা জানান, দেব বিকাশ বড়ুয়া প্রতিদিন হ্লাথোয়াই চৌধুরীর বাড়ির টিউবওয়েল থেকে খাবার পানি আনতে যান। বুধবার সকালে বাড়ির মালিক হ্লাথোয়াই চৌধুরী ও তার স্ত্রী যার যার কাজে বাড়ির বাইরে চলে যান। এ সুযোগে প্রতিদিনের ন্যায় আজও পানি আনতে গিয়ে দেব বিকাশ বড়ুয়া মেয়েটিকে বাড়ির গেট খুলতে বলে। মেয়েটি গেট খুলে দিলে একা পেয়ে মুখ চেপে ধরে বাথরুমের ভিতর নিয়ে গিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে এবং ধর্ষণের আলামত নষ্ট করতে মেয়েটিকে গোসল করিয়ে দিয়ে চলে যায়।

পরে হ্লাথোয়াই চৌধুরীর বোন সম্পর্কিয় এক আত্মীয় তাঁর বাড়িতে বেড়াতে এসে মেয়েটিকে অসুস্থ অবস্থায় দেখতে পান। পরে তিনি জিজ্ঞেস করলে মেয়েটি ঘটনার বিস্তারিত খুলে বলে। এরপর ঘটনা জানাজানি হলে পাড়ার লোকজন ধর্ষক দেব বিকাশ বড়ুয়াকে আটক করে উত্তম-মধ্যম দিয়ে খাগড়াছড়ি সদর থানা পুলিশের হাতে সোপর্দ করে।

ধর্ষণের শিকার মেয়েটি বর্তমানে খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

এ ঘটনায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে খাগড়াছড়ি সদর থানায় মামলা হয়েছে। যার মামলা নং-০৯, তারিখঃ ২৮-০১-২০১৫খ্রিঃ।
—————-

সিএইচটিনিউজ.কম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.