খাগড়াছড়ির স্বনির্ভরে সংস্কার-মুখোশদের সশস্ত্র হামলায় পিসিপি নেতাসহ নিহত ৬

0
0

খাগড়াছড়ি : খাগড়াছড়ি সদরের স্বনির্ভর বাজারে সেনা মদদপুষ্ট সংস্কারী জেএসএস ও নব্য মুখোশদের সশস্ত্র হামলায় পিসিপি-যুব ফোরামের নেতাসহ ৬ জন নিহত হয়েছেন। এছাড়া হামলায় আরো বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন।

আজ শনিবার (১৮ আগস্ট) সকালে এ ঘটনা ঘটে।

হামলায় নিহতরা হলেন- পিসিপি’র খাগড়াছড়ি জেলা শাখার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি তপন চাকমা, গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের খাগড়াছড়ি জেলা সহ সভাপতি পলাশ চাকমা,  পিসিপি’র খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সহ সাধারণ সম্পাদক এল্টন চাকমা, উত্তর খবংপয্যা গ্রামের বাসিন্দা ও মহালছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য সহকারী জিতায়ন চাকমা (৫৩), একই গ্রামের কান্দারা চাকমার ছেলে রুপম চাকমা ও টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ার ধীরাজ চাকমা।

হামলায় আহতরা হলেন- বগাপাড়া গাছবান গ্রামের খুলরাম চাকমার ছেলে ও খাগড়াছড়ি সরকারী কলেজের ছাত্র দ্বিতন চাকমা, বেলতুলি পাড়ার বাসিন্দা ও প্রণয় জ্যোতি ত্রিপুরার ছেলে ফেরেস্টার ত্রিপুরা(৩৫), খাগড়াছড়ি সদরের পশ্চিম নারাঙহিয়ের বাসিন্দা ও পদ্ম চাকমার ছেলে চিজি মনি চাকমা(২৫) ও পিসিপি খাগড়াছড়ি উপজেলা কমিটির সভাপতি সোহেল চাকমা।

জানা যায়, আজ সকাল ৮টার দিকে সংস্কার-মুখোশদের একদল সন্ত্রাসী ভারী অস্ত্র-শস্ত্র নিয়ে স্বনির্ভর বাজারে গিয়ে এলোপাতাড়ি ব্রাশ ফায়ার করে। এতে উক্ত ৬ জন নিহত হন।

স্বনির্ভরে একটি পুলিশ পোস্ট থাকলেও হামলার সময় তারা সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে কোন পদক্ষেপই গ্রহণ করেনি। বেশ কিছুক্ষণ সশস্ত্র তাণ্ডব চালিয়ে সন্ত্রাসীরা বীরদর্পে বিজিবি  সেক্টর  সদর দপ্তরের সামনে হয়ে সিঙিনালার দিকে পালিয়ে যায়।

পেরাছড়াতে মিছিলের ওপর ফের সশস্ত্র হামলা
সংস্কার-মুখোশদের অব্যাহত অপহরণ, খুন, চাঁদাবাজিসহ সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী মিছিল নিয়ে স্বনির্ভরের দিকে আসার সময় দুপুর ১২টার দিকে পেরাছড়া ব্রিজ এলাকায় দ্বিতীয় দফায় সশস্ত্র হামলা চালিয়েছে সন্ত্রাসীরা। এতে নারী সহ চার জন আহত হয়েছেন। আহতরা হলেন, সোনা রঞ্জন চাকমা, উর্মি চাকমা, মিনু চাকমা ও সন কুমার চাকমা। বর্তমানে সন্ত্রাসীরা পেরাছড়া ইউনিয়নের নীলকান্ত পাড়ায় অবস্থান করছে বলে জানা গেছে।

ঘটনার নিন্দা ও প্রতিবাদ
ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট(ইউপিডিএফ)-এর খাগড়াছড়ি জেলা ইউনিটের ভারপ্রাপ্ত প্রধান সংগঠক উজ্জ্বল স্মৃতি চাকমা, গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের কেন্দ্রীয় সভাপতি অংগ্য মারমা, বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ(পিসিপি)-এর সভাপতি বিনয়ন চাকমা ও শ্রমজীবী ফ্রন্ট(ওয়ার্কার্স ফ্রন্ট)-এর সভাপতি সচিব চাকমা সংবাদ মাধ্যমে প্রদত্ত এক যুক্ত বিবৃতিতে উক্ত ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ এ ঘটনাকে কাপুরুষোচিত ও ন্যাক্কারজনক উল্লেখ করে বলেন, সেনাবাহিনী ও প্রশাসনের প্রত্যক্ষ সহযোগিতায় সন্ত্রাসীরা এ হামলা চালিয়েছে।

বিবৃতিতে তারা অভিযোগ করে বলেন, স্বনির্ভর বাজারে পুলিশের একটি পোস্ট ও এর পাশে বিজিবি সেক্টর সদর দপ্তর থাকলেও হামলার সময় তারা নিরব দর্শকের ভূমিকা পালন করেছে। ফলে সন্ত্রাসীরা বেশ কিছুক্ষণ ধরে সশস্ত্র তাণ্ডব চালিয়ে নির্বিঘ্নে পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়েছে।

বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে গণপ্রতিরোধ জোরদার করার আহ্বান জানিয়ে বলেন, সেনাবাহিনীর মদদপুষ্ট সংস্কার ও নব্য মুখোশ সন্ত্রাসীরা পুরোপুরি গণবিরোধী ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছে। একমাত্র গণপ্রতিরোধের মাধ্যমেই তাদেরকে পরাস্ত করা সম্ভব।

বিবৃতিতে তারা অবিলম্বে হামলাকারী সংস্কার-নব্য মুখোশ সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারপূর্বক দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও সন্ত্রাসীদের সেনা মদদদান বন্ধের দাবি জানিয়েছেন।

——————–
সিএইচটি নিউজ ডটকম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।


Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.