এইচডব্লিউএফ'র সভাপতি নিরূপা চাকমাসহ আটক নেতা-কর্মীদের মুক্তির দাবিতে

খাগড়াছড়ি ও রাঙামাটির বিভিন্ন জায়গায় ৮সংগঠনের পোস্টারিং

0
1

সিএইচটি নিউজ ডটকম
Photo1162খাগড়াছড়ি ও রাঙামাটি প্রতিনিধি: হিল উইমেন্স ফেডারেশন(এইচডব্লিউএফ)-এর কেন্দ্রীয় সভাপতি নিরূপা চাকমাসহ আটক নেতা-কর্মীদের নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে পার্বত্য চট্টগ্রামে আন্দোলনরত আট গণসংগঠন খাগড়াছড়ি জেলাসদরসহ বিভিন স্থানে পোস্টারিং করেছে।

পোস্টারে ২৯ নভেম্বর খাগড়াছড়িতে ফিলিস্তিন সংহতি দিবস-এর সমাবেশে হামলাকারী ‘নব্য পাক হানাদার’ সেনা-পুলিশের বিচার দাবি করা হয়।

নেতা-কর্মীদের মুক্তির দাবি জানিয়ে পোস্টারে উল্লেখ করা হয়, ‘ফিলিস্তিন সংহতি দিবসে সেনা কর্তৃক আটক হিল উইমেন্স ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় সভানেত্রী নিরূপা চাকমা, জেলা দপ্তর সম্পাদক দ্বিতীয়া চাকমাসহ ৬ পিসিপি নেতা দীপংকর ত্রিপুরা, প্রদীপ ত্রিপুরা, বর্থ রঞ্জন ত্রিপুরা, সুরেশ চাকমা, নয়ন চাকমা, নিকাশ চাকমা ও ইউপিডিএফ নেতা প্রতীম চাকমা, যুব নেতা জিকো ত্রিপুরা, গণপাঠাগার সম্পাদক খোকন চাকমা ও ব্যবসায়ী স্বপন চাকমাক অবিলম্বে নিঃশর্ত মুক্তি দাও’।

পোস্টারে ‘৭১-এ গণহত্যার দায়ে পাকিস্তানের নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনার দাবিতে এবং আসন্ন বিশ্ব মানবাধিকার দিবসে মত প্রকাশ ও ব্যক্তি স্বাধীনতার দাবিতে সোচ্চার হওয়ার আহ্বান জানানো হয়েছে।

আট গণসংগঠনের সূত্রে জানা গেছে, খাগড়াছড়ি জেলা সদরের জেলা পরিষদ, স্বনির্ভর এলাকা, বাস টার্মনাল, মধুপুর বাজার, পানখাইয়া পাড়া, স্লুইচ গেইট, টিটিসি, মহিলা কলেজ এলাকা, মহাজন পাড়া, কলেজ গেট, খবংপয্যা এলাকায় পোস্টারিং করা হয়েছে। এছাড়া  কৃষি গবেষণা, ধর্মঘর, বিজিতলা, চম্পাঘাট, ঘুঙুরোছড়ি, গামারিঢালা, পেরাছড়া, গিরিফুল, ধর্মপুর, জামতলী এবং ভাইবোন ছড়া এলাকার বিভিন্ন জায়গায় পোস্টারিং করা হয়।

দীঘিনালা উপজেলার বাস টার্মিনাল, লারমা স্কোয়ার, কলেজ গেট, নারিকেল বাগান, শান্তিপুর, বাবুপাড়াসহ বাবুছড়া ও বোয়ালখালী ইউপি’র বিভিন্ন এলাকায়, পানছড়ি উপজেলার কলেজ গেট, মঞ্জু আদাম, লাতিবান, শান্তিপুর, নালকাবা সহ বিভিন্ন এলাকায় পোস্টারিং করা হয়।

মহালছড়ি উপজেলার ২৪ মাইল, সিঙ্গিনালা, কেঙেলছড়ি, ব্রিজ পাড়া ও মাইসছড়ির বিভিন্ন এলাকায় পোস্টারিং করা হয়েছে।

লক্ষ্মীছড়ি উপজলায় উপজেলা পরিষদ এলাকা, হাসপাতাল এলাকা, শিলাছড়ি, যতীন্দ্র কার্বারী পাড়া এবং দুল্যাতলী ইউনিয়নের মাষ্টার পাড়া, বানরকাটা সহ বিভিন্ন এলাকায় এবং মানিকছিড়র বিভিন্ন এলাকায়  পোস্টারিং করা হয়।

রাঙামাটি জেলার  মানিকছড়ি, কুদুকছড়ি, ঘিলাছড়ি, বেতছড়ি এলাকাসহ নান্যাচর, কাউখালী, বাঘাইছড়ি ও সাজেকের বিভিন্ন এলাকায় পোস্টারিং করা হয়েছে।

আট সংগঠনের নেতৃবৃন্দ জানান, আটক নেতা-কর্মীদের মুক্তি না দেয়া পর্যন্ত বিভিন্ন কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে।

আট গণসংগঠন (পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ, গণতান্ত্রিক যুব ফোরাম, হিল উইমেন্স ফেডারেশন, পার্বত্য চট্টগ্রাম নারী সংঘ, সাজেক ভূমি ক্ষা কমিটি, সাজেক নারী সমাজ, ঘিলাছড়ি নারী নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটি ও প্রতিরোধ সাংস্কৃতিক স্কোয়াড)-এর কনভেনিং কমিটি কর্তৃক ১ ডিসেম্বর এই পোস্টারটি প্রকাশ করা হয়েছে।
——————–

সিএইচটিনিউজ.কম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।


Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.