চিম্বুক পাহাড়ে আগুন: বাগান-বাগিচা পুড়ে গিয়ে ব্যাপক ক্ষতির শিকার ম্রো জনগোষ্ঠী

0
104

বান্দরবান ।। বান্দরবানের চিম্বুক পাহাড়ে ভয়াবহ আগুনে বাগান-বাগিচা পুড়ে গিয়ে ব্যাপক ক্ষতির শিকার হয়েছেন স্থানীয় ম্রো জনগোষ্ঠীর লোকজন। এছাড়াও আগুনে পুড়ে গেছে ৫ হাজার ফুট পানি সাপ্লাইয়ের পাইপ। ফলে পানির সংকটে পড়েছেন তারা।

আগুনে চিম্বুক পাহাড়ের বাইট্টা পাড়া, সিংচ্যং পাড়া, রাংলাই পাড়া, রামরি পাড়া, দেওয়াই হেডম্যান পাড়ার ম্রো জনগোষ্ঠী ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির শিকার হয়েছেন।

স্থানীয় ম্রো জনগোষ্ঠীর লোকজন জানান, সোমবার (২২ মার্চ) রাতের বেলা তাদের পাড়া থেকে কয়েক কিলোমিটার দূরে আগুন জ্বলতে দেখা যায়। পরে এই আগুন গতকাল মঙ্গলবার সকালের দিকে আমাদের এলাকায় পাহাড়গুলোতে ছড়িয়ে পড়ে। গতকাল দিনভর ও মধ্যরাত পর্যন্ত চেষ্টা চালিয়ে গ্রামবাসীরা আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হন। কিন্ত ততক্ষণে সব পুড়ে ছাই হয়ে যায়।

আগুন নেভাতে প্রশাসন থেকে কোন প্রকার সহযোগিতা প্রদান করা হয়নি বলে ম্রোরা অভিযোগ করেছেন।

এই আগুনের সূত্রপাত হিসেবে ম্রোদের অভিযোগের তীর অবৈধ পাথর উত্তোলনকারীদের দিকে। তারা বলেন, অনেক বছর ধরে বিভিন্ন খাল ও ছড়া-ঝিড়ি থেকে অবৈধভাবে পাথর উত্তোলন করা হচ্ছে। খাল ও ঝিড়ির পাথর উত্তোলন শেষ হওয়ায় এখন পাহাড়ের বিভিন্ন খাদে পড়ে থাকা পাথর উত্তোলনের জন্য নেমেছে স্থানীয় বাঙালি পাথর ব্যবসায়ীরা। কিন্তু এই পাথরগুলো গভীর জঙ্গলে থাকায় এগুলো খুঁজে বের করতে বেগ পেতে হয়। তাই বিভিন্ন সময় পাথর ব্যবসায়ীরা পাথর খুঁজতেই জঙ্গলে বেপরোয়াভাবে আগুন লাগায়। পাথর ব্যবসায়ীরাই এই আগুন লাগিয়ে থাকতে পারে বলে তাদের ধারণা।

আগুনে ম্রোদের প্রায় দুই হাজার একরের আম বাগান, বরই বাগান, পেঁপে বাগান, ড্রাগন ফলের বাগান, লিচু বাগানসহ বিভিন্ন বনজ বাগান পুড়ে ছাড়খার হয়ে গেছে।

এছাড়া রামরি পাড়ায় পাঁচ হাজার ফুট পানি সাপ্লাইয়ের পাইপ পুড়ে গেছে। ফলে ৫৯ পরিবারে চরম পানির সংকট দেখা দিয়েছে বলে জানা গেছে।

 


সিএইচটি নিউজে প্রকাশিত প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ,ভিডিও, কনটেন্ট ব্যবহার করতে হলে কপিরাইট আইন অনুসরণ করে ব্যবহার করুন।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.