খাগড়াছড়ি টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজে

ছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টাকারী শিক্ষক সোহেল রানাকে দ্রুত গ্রেফতারের দাবি হিল উইমেন্স ফেডারেশনের

0
462

খাগড়াছড়ি ।। খাগড়াছড়ি টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজে এক পাহাড়ি ছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টাকারী শিক্ষক মো. সোহেল রানাকে দ্রুত গ্রেফতার করে যথাযথ শাস্তি প্রদানের দাবি জানিয়েছে হিল উইমেন্স ফেডারেশন।

সংগঠনটির কেন্দ্রীয় সভাপতি নিরূপা চাকমা আজ সোমবার (১ মার্চ ২০২১) রাতে সংবাদ মাধ্যমে দেওয়া এক বিবৃতিতে এই দাবি জানান।

বিবৃতিতে তিনি অভিযোগ করে বলেন, গত ২৫ ফেব্রুয়ারি সংঘটিত ধর্ষণ চেষ্টার ঘটনায় অভিযুক্ত শিক্ষক সোহেল রানার বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণসহ তিন দফা দাবি জানিয়ে শিক্ষার্থীরা গতকাল রবিবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) অধ্যক্ষের কাছে অভিযোগপত্র দাখিল করেন এবং তারা একদিনের সময় বেঁধে দিয়েছিলেন। কিন্তু আজ তাদের বেঁধে দেওয়া সময় অতিবাহিত হওয়ার পরও দোষী শিক্ষকের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক কোন পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি। উপরন্তু অপরাধীকে রক্ষা করতে নানা প্রচেষ্টা চালানো হচ্ছে বলে তিনি অভিযোগ করেন।

বিবৃতিতে তিনি আরও বলেন, টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজের কিছু লম্পট শিক্ষক দ্বারা পরীক্ষায় ফেল করে দেয়া, নম্বর কম দেয়ার ভয় দেখিয়ে অতীতেও বহুবার ছাত্রীদের উপর এ ধরনের যৌন নিপীড়নের ঘটনা সংঘটিত হয়েছে। প্রতিষ্ঠানের প্রশাসন বরাবরই অপরাধীদের পক্ষে সাফাই গেয়ে ঘটনা ধামাচাপা দিয়ে তাদেরকে রক্ষা করেছে। এবারের ঘটনায়ও তার ব্যতিক্রম হচ্ছে না। এসব ঘটনায় জড়িত শিক্ষকদের বিরুদ্ধে শাস্তি পদক্ষেপ না নেওয়ার কারণে বার বার এমন ঘটনা ঘটছে বলে তিনি মন্তব্য করেন। এছাড়া সেটলারদের দ্বারাও ছাত্রীরা নানা যৌন হেনস্থার শিকার হন বলে তিনি অভিযোগ করেন।

বিবৃতিতে ‍তিনি অবিলম্বে ছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টাকারী শিক্ষক সোহেল রানাকে গ্রেফতারপুর্বক দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও ভবিষ্যতে যাতে এ ধরনের ঘটনা না ঘটে তার জন্য শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার দাবি জানান।

উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) বেলা ২টার সময় শিক্ষক সোহেল রানার আদেশ মত ওই ছাত্রী তার অফিসে গেলে তিনি (সোহেল রানা) ছাত্রীকে কুপ্রস্তাব দেন। তাতে ওই ছাত্রী রাজী না হলে সোহেল রানা তাকে জোরপূর্বক ধর্ষণের চেষ্টা করেন বলে ভিকটিম ছাত্রী নিজেই অভিযোগ করেছেন।

এ ঘটনা নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও অভিযুক্ত শিক্ষক সোহেল রানাকে গ্রেফতারের জোর দাবি উঠেছে।

 


সিএইচটি নিউজে প্রকাশিত প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ,ভিডিও, কনটেন্ট ব্যবহার করতে হলে কপিরাইট আইন অনুসরণ করে ব্যবহার করুন।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.