ছাত্র নেতা রমেল চাকমা’র খুনী সেনাদের বিচারের দাবিতে কুদুকছড়িতে পিসিপি’র বিক্ষোভ

0
2

কুদুকছড়ি (রাঙামাটি) : ছাত্রনেতা রমেল চাকমা’র খুনী নান্যাচর জোন কমাণ্ডার বাহালুল আলম, জি-টু মেজর তানভীরসহ খুনের সাথে জড়িত সেনা সদস্যদের বিচারের আওতায় এনে সাজা প্রদানের দাবিতে আজ বৃহস্পতিবার (১৯ অক্টোবর ২০১৭) রাঙামাটির কুদুকছড়িতে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ (পিসিপি) রাঙামাটি জেলা শাখা। রমেল চাকমা হত্যাকাণ্ডের ৬ মাস পূর্তিতে এই বিক্ষোভের আয়োজন করা হয়।

মিছিলটি কুদুকছড়ি বড়মহাপূরম উচ্চ বিদ্যালয় গেট থেকে শুরু হয়ে বাজার প্রদক্ষিণ করে ইউপিডিএফ এর কার্যালয়ের সম্মুখে প্রতিবাদ সমাবেশে মিলিত হয়।

পিসিপি’র রাঙামাটি জেলা শাখার সভাপতি কুনেন্টু চাকমা সভাপতিত্বে ও সহ-সাধারণ সম্পাদক রিপন আলো চাকমার সঞ্চালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন হিল উইমেন্স ফেডারেশন রাঙামাটি জেলার সাধারণ সম্পাদক দয়া সোনা চাকমা, গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের কেন্দ্রীয় অর্থ সম্পাদক ধর্মসিং চাকমা প্রমুখ।

বক্তারা একদেশে দুই শাসন চলছে উল্লেখ করে বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামে চলছে সেনাশাসন আর সমতলে সিভিল প্রশাসন। ফলে পার্বত্য চট্টগ্রামে সেনাবাহিনীর নিপীড়ন নির্যাতন, অন্যায় ধর-পাকড় আগের তুলনার বহুগুণ বেড়ে গেছে। সেনাশাসন জারি রাখার কারণে নান্যাচর জোনের সেনাবাহিনী অন্যায়ভাবে ছাত্রনেতা রমেল চাকমাকে মধ্যযুগীয় কায়দায় শারিরীক নির্যাতন চালিয়ে হত্যা করেছে।

বক্তারা অভিযোগ করে বলেন, রমেল চাকমা হত্যাকাণ্ডের ৬ মাস অতিবাহিত হলেও এখনো জোন কমাণ্ডার বাহালুল আলম, মেজর তানভীরসহ দোষী সেনা সদস্যদের বিচারের আওতায় আনা হয়নি।

বক্তারা অবিলম্বে রমেল চাকমার খুনী সেনাদের বিচার ও শাস্তির দাবি জানান।

উল্লেখ্য, গত ৫ এপ্রিল নান্যাচর বাজার থেকে ফেরার পথে উপজেলা পরিষদ এলাকা থেকে পিসিপি’র নান্যাচর উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক ও এইচএসসি পরীক্ষার্থী রমেল চাকমাকে নান্যাচর জোনের সেনারা আটক করে জোনে নিয়ে যায়। সেখানে অমানুষিক শারিরীক নির্যাতনের ফলে অসুস্থ হয়ে পড়ায় সেনারা তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১৯ এপ্রিল মারা যায় রমেল চাকমা।
————-
সিএইচটি নিউজ ডটকম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.