দীঘিনালায় প্রয়াত শিক্ষাবিদ অনন্ত বিহারী খীসার স্মরণসভা

0
156

দীঘিনালা প্রতিনিধি ।। খাগড়াছড়ির দীঘিনালায় ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ) দীঘিনালা ইউনিটের উদ্যোগে প্রয়াত শিক্ষাবিদ অনন্ত বিহারী খীসার স্মরণসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আজ শুক্রবার (৫ মার্চ ২০২১) বেলা ২টার সময় অনুষ্ঠিত স্মরণসভায় বিভিন্ন হাইস্কুল ও প্রাইমারি স্কুলের শিক্ষক এবং কলেজের শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

সভার শুরুতে প্রয়াত শিক্ষাবিদের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।

স্মরণসভায় বক্তব্য রাখেন ইউপিডিএফ’র কেন্দ্রীয় সদস্য সচিব চাকমা, দীঘিনালা ইউনিটের সমন্বয়ক মিল্টন চাকমা ও গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক জিকো ত্রিপুরা।

সভায় বিভিন্ন স্কুলের শিক্ষকরা প্রয়াত শিক্ষাবিদের আদর্শ, অমায়িক ব্যবহার ও শিক্ষা বিস্তারে অবদানের কথা শ্রদ্ধাচিত্তে স্মরণ করেন।

সচিব চাকমা তার বক্তব্যে বলেন, অনন্ত বিহারী খীসা মহান জ্ঞানী মানুষ ছিলেন। তাঁর মৃত্যুতে জুম্ম জাতি এক গুণী অভিভাবককে হারিয়েছে। আত্মপ্রচার বিমুখ এই শিক্ষাবিদ যোগ্যতা ও সুযোগ থাকা সত্ত্বেও ক্ষমতা কিংবা খ্যাতির পেছনে দৌঁড়াননি। তাঁর সমসাময়িক অনেকেই সরকারের উচ্চপদে অধিস্থিত হলেও শিক্ষকতাকে মহান পেশা হিসেবে বেছে নিয়েছিলেন। ছড়িয়ে দিয়ে গেছেন জ্ঞানের আলো।

তিনি আরও বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামের জুম্ম জনগণের জাতীয়তাবাদী চেতনা বিকাশে তাঁর অবদান অপরিসীম। ছাত্র অবস্থায় তিনি ছাত্র রাজনীতির সাথে যুক্ত ছিলেন। তাঁর নেতৃত্বেই Chittagong Hill Tracts Students’ Association গঠিত হয়েছিল। পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি গঠনেও তাঁর অগ্রণী ভূমিকা ছিল। যার কারণে শাসক শ্রেণী তাঁকে সবসময় সন্দেহের চোখে দেখতো। সেই কারণে সরকার ’৭২ সালে তাঁকে গ্রেফতার করে কারান্তরীণ করেছিল। অনন্ত বিহারী খীসার অবদান জুম্ম জাতির ইতিহাসে চিরকাল স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে।

মিল্টন চাকমা বলেন অনন্ত বিহারী খীসা ছিলেন জুম্ম জনগণের অনুকরণীয় ব্যক্তিত্ব। জীবদ্দশায় ‍তিনি কোন আত্মজীবনী কিংবা বই লিখে যাননি। সে কারণে তাঁর সম্পর্কে সামান্যই জানা যায়। তবে তাঁর বিভিন্ন সাক্ষাৎকার থেকে তাঁর জীবন সম্পর্কে ধারণা পাওয়া যায়।

তিনি আমৃত্যু সমাজ ও জাতির কল্যাণে কাজ করে গেছেন। তাঁর আদর্শ, নীতি-নৈতিকতা, সমাজ, জাতি ও জনগণের প্রতি দরদ, শিক্ষা বিস্তারে অগ্রণী ভূমিকার কারণে জুম্ম জাতি চিরকাল তাঁর কাছে কৃতজ্ঞ থাকবে।

জিকো ত্রিপুরা বলেন, অনন্ত বিহারী খীসা ছিলেন নিবৃতচারী সমাজ সংস্কারক। জনগণের মাঝে শিক্ষার আলো ছড়িয়ে দিয়ে মানুষের জ্ঞান চক্ষুকে খুলে দিয়েছেন। আমরা তাঁর কাছে চির কৃতজ্ঞ থাকব।

 


সিএইচটি নিউজে প্রকাশিত প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ,ভিডিও, কনটেন্ট ব্যবহার করতে হলে কপিরাইট আইন অনুসরণ করে ব্যবহার করুন।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.