নান্যাচরে এক ব্যক্তিকে মারধর ও মোটর সাইকেল পুড়িয়ে দেয়ার অভিযোগ জেএসএস’র বিরুদ্ধে

0
0

নিজস্ব প্রতিবেদক, সিএইচটিনিউজ.কম
Nannyachar m copyনান্যাচর(রাঙামাট): রাঙামাটির নান্যাচর উপজেলার বেতছড়ি বাজারে আজ ২০ মার্চ শুক্রবার সকালে জেএসএস(সন্তু-উষাতন)-এর সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা শ্যামরতন চাকমা নামে এক ব্যক্তিকে মারধর ও একটি মোটর সাইকেল আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দিয়েছে বলে অভিযোগ করেছে ইউপিডিএফ।

ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট(ইউপিডিএফ)-এর রাঙামাটি জেলা ইউনিটের সংগঠক সচল চাকমা সংবাদ মাধ্যমে প্রদত্ত এক বিবৃতিতে এ অভিযোগ করেন। তিনি এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

বিবৃতিতে তিনি বলেন, আজ সকাল সাড়ে ৯টার দিকে রামহরিপাড়া-কৃষ্ণমা ছড়া এলাকা থেকে অমর চাকমা জঙ্গীর নেতৃত্বে সন্তু-উষাতন বাহিনীর একদল সশস্ত্র সন্ত্রাসী নান্যাচর উপজেলার বেতছড়ি বাজারে হানা দিয়ে এক তান্ডবলীলা চালায়। সন্ত্রাসীরা স্থানীয় বেতছড়ি খামারপাড়ার বাসিন্দা রুনা চাকমার মালিকানাধীন একটি মোটর সাইকেল (ডিসকভার-১৩৫) আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেয়। এছাড়া সন্ত্রাসীরা তন্যা পাড়ার বাসিন্দা শ্যামরতন চাকমা নামে এক চা দোকানদারকেও বেদম মারধর করে। সন্ত্রাসীদের মারধরে তার কপাল ফেঁটে যায়। তান্ডবলীলার পর সন্ত্রাসীরা আবারো রামহরিপাড়া-কৃষ্ণমা ছড়ার দিকে পালিয়ে যায়।

বিবৃতিতে সচল চাকমা অভিযোগ করে বলেন, উষাতন তালুকদার এমপি নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে জেএসএস সন্ত্রাসীরা বেপরোয়া হয়ে এলাকায় সন্ত্রাসী কর্মকান্ড শুরু করেছে। প্রশাসনের ছত্রছায়ায় বিভিন্ন এলাকায় তারা প্রকাশ্যে সশস্ত্র তৎপরতা চালাচ্ছে। যার ফলে এলাকার জনগণ চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন।

বিবৃতিতে তিনি বেতছড়িতে হামলাকারী সন্তু-উষাতন বাহিনীর সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার, তাদের সশস্ত্র তৎপরতা বন্ধ করে এলাকার জনগণের জীবনের নিরাপত্তা বিধান করার জোর দাবি জানান।

এদিকে, ঘটনা সম্পর্কে জানতে চাইলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শী এ প্রতিবেদককে জানান, সকাল সাড়ে ৯টার সময় হঠাৎ করে ১০/১৫ জনের একদল সশস্ত্র লোক বেতছড়ি বাজারে এসে ইউপিডিএফ কর্মীদের খোঁজ করতে থাকে।  কিন্তু তাদের কাউকে খুঁজে না পেয়ে তারা একটি মোটর সাইকেল আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দিয়েছে। এছাড়া তারা বেতছড়ি বাজারের চা দোকানদার শ্যামরতন চাকমাকেও মারধর করেছে।  হামলাকারীরা সন্তু লারমা গ্রুপের লোক বলে তারা জানিয়েছেন। এ সময় লোকজনের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে বলেও তারা জানান।


Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.