হিল উইমেন্স ফেডারেশনের বিবৃতি

নান্যাচর জোন কমাণ্ডারের এইচডব্লিউএফ’র সাধারণ সম্পাদককে হুমকির নিন্দা ও প্রতিবাদ

0
1

রাঙামাটি : হিল উইমেন্স ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় সভাপতি নিরূপা চাকমা আজ শনিবার (২৫ নভেম্বর ২০১৭) সংবাদ মাধ্যমে প্রেরিত এক বিবৃতিতে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মন্টি চাকমাকে নান্যাচর জোন কমাণ্ডার বাহালুল আলমের ফৌজি কায়দায় হুমকি প্রদানের ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

বিবৃতিতে তিনি বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামে স্বৈরাচারি ফৌজি দৈত্য-দানবরা এখনো দাবড়িয়ে বেড়াচ্ছে। ১৯৮৯ সালে স্বৈরাচারি এরশাদের শাসন পতনের মধ্য দিয়ে দেশ স্বৈরাচার মুক্ত হলেও পার্বত্য চট্টগ্রাম মুক্ত হয়নি। এখানে লে. ক. বাহালুল আলমরা এখনো প্রতিনিয়ত গণতন্ত্রের গলায় ছুরি বসাচ্ছে। গত বৃহস্পতিবার রাঙামাটির কুদুকছড়িতে পিসিপি’র সমাবেশ ভণ্ডুল ও মন্টি চাকমাকে হুমকির ঘটনা তার অতি সাম্প্রতিক দৃষ্টান্ত।

বিবৃতিতে তিনি আরো বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম ও দেশ-বিদেশে জোড়ালো প্রতিবাদের ঝড় ওঠা সত্বেও পিসিপি নেতা রমেল চাকমার হত্যাকারী লেঃ কঃ বাহালুল আলমকে এখনো বহাল তবিয়তে রাখা হয়েছে। শাস্তি পাওয়া তো দূরের কথা উল্টো তিনি প্রচন্ড প্রতাপে মিছিল সমাবেশে বাধা প্রদান করে ফৌজি ক্ষমতা প্রদর্শন করছে।

বিবৃতিতে তিনি এক দেশে দুই নীতির কঠোর সমালোচনা করেন। তিনি সভা-সমাবেশে অগণতান্ত্রিক সেনা হস্তক্ষেপ বন্ধ, সেনা শাসন প্রত্যাহারপূর্বক পার্বত্য চট্টগ্রামে গণতান্ত্রিক শাসন ব্যবস্থা চালু ও খুন-ধর্ষণ-হত্যা-নির্যাতনের মতো গুরুতর মানবাধিকার লঙ্ঘনের অপরাধের সাথে জড়িত সেনা কর্মকর্তা ও জোয়ানদের কঠোর শাস্তি প্রদানসহ পার্বত্য চট্টগ্রামে অস্ত্র ও প্রমোশন বাণিজ্যের সাথে জড়িত অসৎ দুর্নীতিবাজ সেনা কর্মকর্তাদের কঠোর শাস্তির দাবি জানান।

উল্লেখ্য, নানিয়ার কলেজ কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিতে স্থানীয় প্রশাসনকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দেয়া নির্দেশনা বাতিলের দাবিতে বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ(পিসিপি) কর্তৃক গত বৃহষ্পতিবার (২৩ নভেম্বর) কুদুকছড়িতে আয়োজিত সমাবেশ প- করে দেন নানিয়ারচর জোনের কুখ্যাত জোন কমান্ডার ও রমেল চাকমার খুনি লেঃ কঃ বাহালুল আলম।

সমাবেশ শুরুর প্রাক্কালে খুনি বাহালুল তিন জীপ আর্মি নিয়ে সেখানে উপস্থিত হন এবং তাঁর অনুমতি ছাড়া কোন সমাবেশ করা যাবে না বলে মিছিল থেকে ব্যানার কেড়ে নেন এবং সমাবেশে যোগ দিতে আসা সাধারণ ছাত্র-জনতাকে ভয়-ভীতি দেখিয়ে সমাবেশস্থল থেকে তাড়িয়ে দেন।

খুনি বাহালুল আলমের এমন রূঢ় আচরণের প্রতিবাদ জানালে এবং গণতান্ত্রিক আধিকারের উপর স্বৈরাচারি হস্তক্ষেপের কারণ জানতে চাইলে তিনি হিল উইমেন্স ফেডারেশন(এইচডব্লিউএফ)-এর কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক মন্টি চাকমাকে ফৌজি মাস্তানি স্বরে বলেন- ‘মিছিল মিটিং করতে হলে আমার অনুমতি লাগবে, না হলে করা যাবে না।’ কেন তাঁর কাছ থেকে অনুমতি নিতে হবে মন্টি চাকমার এ প্রশ্নের জবাবে বলেন- ‘বাড়াবাড়ি করলে মামলা দিয়ে জেলে নিক্ষেপ করব।’ এসময় মেজর সাদেক ও ক্যাপ্টেন আরিফ নামে দু’জন সেনা কর্মকর্তাও তাঁর সাথে উপস্থিত ছিলেন।
—————
সিএইচটি নিউজ ডটকম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।


Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.