নান্যাচর ‍উপজেলায় সংস্কারবাদী জেএসএস ও মুুখোশবাহিনী কর্তৃক গণঅপহরণ!

0
0

রাঙামাটি : কুদুকছড়ি বাজারে আসার পথে ইঞ্জিন বোট থামিয়ে অন্তত ২৫ জন সাধারণ গ্রামবাসীকে অপহরণ করেছে সংস্কারবাদী জেএসএস ও সেনা সৃষ্ট নব্য মুখোশবাহিনীর সশস্ত্র দুর্বৃত্তরা। আজ রবিবার (৮ জুলাই) সকাল সাড়ে ৭টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে একজন প্রত্যক্ষদর্শী সিএইচটি নিউজ ডটকমকে বলেন, ইঞ্জিন চালিত বোট যোগে কাঁচামালসহ বিভিন্ন গ্রামের লোকজন কুদুকছড়ি বাজারে যাওয়ার পথে কেরেটছড়ি দোর (মুখে) হাতিমারা দোরের একটি টিলা থেকে নেমে একদল সশস্ত্র লোক বাজারমুখি সমস্ত বোটগুলো সেখানে থামতে বাধ্য করে। এরপর প্রত্যেক বোট থেকে মুরুব্বীদের জোরপূর্বক নামিয়ে আনুমানিক ২০-২৫ জনকে নিয়ে যায়। তিনি মুখোশ বাহিনীর দ্বিতীয় সর্দার প্রত্যয় চাকমা ওরফে দাজ্জে ও রণয় চাকমা নামে দু’জন সহ সংস্কাবাদী জেএসএস-এর কয়েকজন স্থানীয় নেতাকে চিনতে পেরেছেন বলে জানিয়েছেন।

ঘটনার সময় সেনাবাহিনীর একটি টহল দল ঘটনাস্থল থেকে আনুমানিক ১ কিলোমিটার দূরত্বে ভাঙামুড়া নামক স্থানে ছিল বলে জানান তিনি।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থানীয় একজন জনপ্রতিনিধি জানান, হাটবারের দিনে কুদুকছড়ি বাজার আসার পথে প্রকাশ্য দিবালোকে সংস্কারবাদী জেএসএস ও নব্য মুখোশাবাহিনী কর্তৃক গণ অপহরণ স্থানীয় সেনা-প্রশাসনের মদদ ছাড়া সম্ভব নয়।

মুলত মোটা অংকের মুক্তিপণ ও আসন্ন নান্যাচর উপজেলা উপ নির্বাচনকে প্রভাবিত করার উদ্দেশ্যে প্রশাসনের সাথে যোগসাজশ করে এ অপহরণ ঘটনা ঘটানো হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, আড়ালে থেকে এ অপহরণে নেতৃত্ব দিয়েছেন সংস্কারবাদী জেএসএস-এর স্থানীয় নেতা প্রণতি চাকমা। তিনি আসন্ন নান্যাচর উপজেলা পরিষদের উপ নির্বাচনে সংস্কারবাদী জেএসএস-এর একজন চেয়ারম্যান প্রার্থী। আগামী ২৫ জুলাই অনুষ্ঠিতব্য উপ-নির্বাচনকে সামনে রেখে এলাকায় আতংক সৃষ্টি ও মোটা অংকের মুক্তিপণ আদায়ের উদ্দেশ্যে এ গণঅপহরণের ঘটনা ঘটানো হয়েছে।অপহৃতদের মধ্যে ১২ জনের নাম পাওয়া গেছে। তারা হলেন- চন্দিলাল(৩২), পিতা : সুসেন মনি চাকমা, সাং ত্রিপুরা ছড়া। সোনামনি চাকমা(৩৮), পিতা : মৃত জ্যোতিষ চন্দ্র চাকমা, সাং: দিমোক্কে ছড়া। বায়ুধন চাকমা প্রাকাশ বায়ক্ক(৫২), পিতা : মৃত তেজেন্দ্র চাকমা, সাং ধামাই ছড়া। রাতুমনি চাকমা(৪৫), পিতা : মৃত প্রেম রঞ্জন চাকমা, সাং : সাপমারা। শ্যামল কান্তি চাকমা(৪৫), পিতা দয়াল মনি চাকমা, সাং সাপমারা। প্রত্যে মোহন চাকমা(৫৫), পিতা : মৃত করুণা মোহন চাকমা, সাং লাঙেল পাড়া। সুইধন চাকমা(৩০), পিতা : পদলা চান চাকমা, সাং : নতুন বড়াদাম। নব রতন চাকমা(৪৫), পিতা : কমদ চন্দ্র চাকমা, সাং : হুল্লেং পাড়া। লদ্রু সেন চাকমা(৫০), পিতা : যাত্রা মোহন চাকমা, সাং খামারপাড়া। দেবরঞ্জন খীসা(৫০), পিতা : মৃত দুর্গপদ চাকমা, সাং : ভাঙামুরো। সুনীল কান্তি চাকমা (৫০), পিতা : চন্দ্র মোহন চাকমা, সাং : হাত্তোলতুলি। সুমন চাকমা (৩২), পিতা- চন্দু মনি চাকমা, গ্রাম- কমতলী।

উল্লেখ্য, গত ৪ জুলাই হাটবারের দিন নান্যাচর বাজার থেকে একই উদ্দেশ্যে উপজেলার ১নং বুড়িঘাট ইউপি’র ১নং ওয়ার্ডের বগাছড়ির ভুইয়ো আদামের বাসিন্দা প্রয়াত আনন্দ মোহন চাকমার ছেলে সুখেন্তু চাকমা(৫০) ও একই গ্রামের বাসিন্দা প্রয়াত ডুলু চাকমার ছেলে ত্রিদিব চাকমা(৪৮)কে অপহরণ করা হয়। এরপর ২০ লক্ষ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে সংস্কাবাদী জেএসএস ও নব্য মুখোশরা।

_______
সিএইচটিনিউজ ডটকম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.